কুকথার বিরাম নেই! এ বার প্রিয়ঙ্কাকে ‘চোরের স্ত্রী’ বলে কটাক্ষ উমা ভারতীর
জমি দুর্নীতি কেলেঙ্কারি-সহ টাকা নয়ছয় মামলায় নাম জড়িয়েছে প্রিয়ঙ্কার স্বামী রবার্ট বঢরার। তার জেরে দফায় দফায় তাঁকে জেরা করেছেন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের আধিকারিকরা।
uma priyanka

উমা ভারতী ও প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা। —ফাইল চিত্র।

নির্বাচনী প্রচারে ফের কদর্য ভাষার প্রয়োগ। এ বার প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরাকে ‘চোরের স্ত্রী’ বলে কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেত্রী তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উমা ভারতী। তাঁর কথায়,‘‘রবার্ট বঢরার বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ রয়েছে। তাই প্রিয়ঙ্কাকে চোরের স্ত্রী হিসাবেই দেখবেন দেশবাসী।’’

এ বছর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না উমা ভারতী। তবে দলের হয়ে প্রচার নেমেছেন।মঙ্গলবার ছত্তীসগঢ়ের দুর্গে জনসভা ছিল তাঁর। সেখানে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হলে প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরার জনপ্রিয়তা বিজেপির উপর কোনও প্রভাব ফেলবে কিনা জানতে চাওয়া হয় তাঁর কাছে। জবাবে উমা ভারতী বলেন, ‘‘কোনও প্রভাবই পড়বে না। একজন মহিলার স্বামীর বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ। তাঁকে আর কী ভাবেই বা দেখতে পারেন দেশের মানুষ? ভারতে একজন চোরের স্ত্রীকে যে ভাবে দেখা হয়, সে ভাবেই দেখা হবে।’’

জমি দুর্নীতি কেলেঙ্কারি-সহ টাকা নয়ছয় মামলায় নাম জড়িয়েছে প্রিয়ঙ্কার স্বামী রবার্ট বঢরার। তার জেরে দফায় দফায় তাঁকে জেরা করেছেন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের আধিকারিকরা। সেই প্রসঙ্গ টেনেই প্রিয়ঙ্কাকে কটাক্ষ করেন উমা ভারতী। তবে এই প্রথম নয়, সক্রিয় ভাবে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার পর প্রিয়ঙ্কাকে নিয়ে কুমন্তব্য করেছেন একাধিক বিজেপি নেতা।  যাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন দলের নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

আরও পড়ুন: তৃণমূলের প্রচারে নেমে ফেরদৌসের পর বিতর্কে আর এক বাংলাদেশি অভিনেতা, কমিশনে অভিযোগ বিজেপির​

আরও পড়ুন: নোটবন্দির পর চাকরি খুইয়েছেন ৫০ লাখ পুরুষ! নয়া সমীক্ষায় আরও অস্বস্তিতে মোদী সরকার​

প্রিয়ঙ্কার হাতে পূর্ব উত্তরপ্রদেশের দায়িত্ব তুলে দেওয়ার পর কংগ্রসকে কটাক্ষ করে কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন, ‘‘যোগ্য নেতা নেই কংগ্রেসে। তাই চকোলেট মার্কা মুখের ভরসায় নির্বাচনে যাচ্ছে।’’পরে যদিও ওই মন্তব্য প্রিয়ঙ্কার উদ্দেশে নয় বলে দাবি করেন তিনি। বিহারের বিজেপি নেতা সুশীলকুমার মোদী আবার বলেন, ‘‘নির্বাচন কুস্তির আখড়া বা সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা নয়।’’মেরঠে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে স্কার্ট পরা নিয়ে প্রিয়ঙ্কাকে আক্রমণ করেন দলের প্রবীণ নেতা জয়করণ গুপ্তও।’’

নির্বাচনী নির্ঘণ্ট

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত