কাশ্মীর নিয়ে নরেন্দ্র মোদী সরকারের সিদ্ধান্তে খুশি হয়েছিলেন। তা নিয়ে টুইটও করেছিলেন সন্ধ্যায়। কয়েক ঘণ্টা পরই এমন দুঃসংবাদ পেতে হবে, তা কল্পনাও করতে পারেননি কেউ। কিন্তু তেমনটাই ঘটল মঙ্গলবার রাতে। প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী তথা বিজেপি নেত্রী সুষমা স্বরাজের অকস্মাৎ প্রয়াণে তাই শোকের ছায়া নেমে এল রাজনৈতিক মহলে।

বিজেপির শীর্ষ নেতারা তো বটেই, সুষমা স্বরাজের প্রয়াণে এ দিন শোকপ্রকাশ করেছেন কংগ্রেস-সহ বিরোধী শিবিরের রাজনীতিকরাও। শোকপ্রকাশ করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। রাজনৈতিক আদর্শ ভিন্ন হলেও, প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গে ভাল সময় কাটিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। 

সুষমা স্বরাজের প্রয়াণে এ  দিন টুইটারে শোকপ্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি লেখেন, ‘অসাধারণ বক্তা এবং সাংসদ ছিলেন সুষমাজি। দলের সকলে তাঁকে সম্মান করতেন। আদর্শ এবং বিজেপির স্বার্থ নিয়ে কখনওই আপস করেননি। দলের উন্নতিতে বিরাট ভূমিকা ওঁর।’

আরও পড়ুন: হৃদরোগে আক্রান্ত, আচমকাই চলে গেলেন প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ​

প্রধানমন্ত্রী আরও লেখেন, ‘গত পাঁচ বছর বিদেশমন্ত্রী হিসাবে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছিলেন সুষমা স্বরাজ, সে কথা কোনও ভাবেই ভুলতে পারব না আমি। শরীর ভাল না থাকা সত্ত্বেও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব সামলে গিয়েছেন। দফতরে কী ঘটছে তার খবর রেখেছেন। কাজের প্রতি ওঁর উদ্যম এবং প্রতিশ্রুতি অতুলনীয়। ওঁর মৃত্যুতে ব্যক্তিগত ভাবেও ক্ষতি হয়ে গেল। দেশের জন্য উনি যা করেছেন, তাঁর জন্য সকলে মনে রাখবেন ওঁকে। এই দুঃসময়ে ওঁর পরিবার, সমর্থক এবং ঘনিষ্ঠদের সমবেদনা জানাই।’

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ লেখেন, ‘সুষমা স্বরাজের প্রয়াণের খবরে শোকস্তব্ধ আমি। দেশবাসী তাঁদের প্রিয় নেতাকে হারালেন, সম্ভ্রম, সাহসিকতা এবং ন্যায়পরায়ণতার জন্য জনমাসনে পরিচিত ছিলেন যিনি। সর্বদা মানুষকে সাহায্য করতেন। মানুষের সেবার জন্যই চিরকাল ওঁকে মনে রাখবেন সকলে।’

কংগ্রেসের টুইটার হ্যান্ডলে লেখা হয়, ‘সুষমা স্বরাজের অকাল প্রয়াণে শোকস্তব্ধ আমরা। ওঁর পরিবার এবং ঘনিষ্ঠদের সমবেদনা জানাই।’

কংগ্রেস নেতা তথা লোকসভা সাংসদ রাহুল গাঁধী টুইটারে লেখেন, ‘সুষমা স্বরাজজির প্রয়াণের খবরে শোকস্তব্ধ আমি। একজন অসাধারণ রাজনীতিক ছিলেন উনি, সুবক্তা এবং ব্যতিক্রমী সাংসদ ছিলেন। সমস্ত রাজনীতিকদের সঙ্গে বন্ধুত্ব বজায় রাখতেন। এই দুঃখের মুহূর্তে ওঁর পরিবারকে সমবেদনা জানাই। ওঁর আত্মার শান্তি কামনা করি।’

দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় লেখেন, ‘সুষমা স্বরাজের প্রয়াণের খবরে কতটা আঘাত পেয়েছি, তা বলে বোঝাতে পারব না।অত্যন্ত বিচক্ষণ সাংসদ ছিলেন উনি। সুবক্তা এবং আসাধারণ নেত্রী ছিলেন। চিরকাল মানুষের মনে থাকবেন উনি। মানুষ চিরকাল মনে রাখবেন ওঁকে। ওঁর অভাব বোধ হবে। রীতিমতো পরিশ্রম করে এই জায়গায় পৌঁছেছিলেন উনি।’

আরও পড়ুন: ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত লোকসভায়, ৩৭০ প্রত্যাহারের বিল পাশ

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটারে লেখেন, ‘সুষমা স্বরাজজির অকস্মাৎ প্রয়াণে মর্মাহত আমি। নয়ের দশক থেকে ওঁকে চিনতাম।  আদর্শগত পার্থক্য ছিল বটে, কিন্তু সংসদে একসঙ্গে অনেক ভাল সময় কাটিয়েছি। একজন অসামান্য রাজনীতিক, নেত্রী এবং সর্বোপরি একজন অসাধারণ ভাল মানুষ ছিলেন উনি। ওঁর অভাব বোধ করব। ওঁর পরিবার এবং সমর্থকদের সমবেদনা জানাই।’

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর কথায়, ‘প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী এবং বিজেপি নেত্রী সুষমা স্বরাজের প্রয়াণে অত্যন্ত ব্যথিত। সুবক্তা, আদর্শ কার্যকর্তা এবং দলের জনপ্রিয় প্রতিনিথি ছিলেন উনি। পরিশ্রমের করে ভারতীয় রাজনীতিতে নিজের জায়গা তৈরি করেছিলেন।’  

প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি টুইটারে লেখেন, ‘সুষমাজির প্রয়াণে ব্যথিত এবং শোকস্তব্ধ আমি। একেবারে ভেঙে পড়েছি। সাম্প্রতিক কালের অন্যতম সেরা রাজনীতিক ছিলেন উনি। যে দায়িত্বই হাতে পেয়েছেন, তা নিষ্ঠাভরে পালন করেছেন। দল, এনডিএ সরকারের শীর্ষ পদে ছিলেন। বিরোধী থাকাকালীনও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলেছেন। ওঁর অভাব পূরণ করা কঠিন।’