কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিতিন গডকড়ীর মন্তব্যে বেজায় অস্বস্তিতে পড়ে এবার পাল্টা চাপের কৌশল নিল বিজেপি। ‘মিথ্যে স্বপ্ন দেখালে জনতা তাকে পেটাতেও পারে’— প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নয়, গডকড়ী এই মন্তব্য কংগ্রেসের উদ্দেশেই করেছেন। এমনই দাবি করল তারা। রবিবার গডকড়ীর মন্তব্যের পর সোমবার এই দাবি করেছেন বিজেপি মুখপাত্র জিভিএল নরসিমা রাও। যদিও গডকড়ী কাঁটার অস্বস্তি তাতে কমেনি। কংগ্রেস পাল্টা কটাক্ষ করেছে, ‘মোদীজি... জনতা ধেয়ে আসছে।’

মোদী সরকারের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ দফতরের মন্ত্রী গডকড়ী। তাঁর হাতে রয়েছে সড়ক পরিবহণ ও হাইওয়ে, জাহাজ, জলসম্পদের মতো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রক। কিন্তু এ হেন গডকড়ীই কার্যত বিদ্রোহী হয়ে উঠেছেন। প্রধানমন্ত্রীর দাবিদার বলেও গুঞ্জন ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে তাঁর ঘনিষ্ঠ মহল থেকে। মন্ত্রী নিজেও মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান এবং ছত্তীসগঢ়ের বিধানসভা ভোটের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন। বলেছিলেন, ‘‘আমি দলের দায়িত্বে থাকলে হারের দায় নিতাম।’’ অচ্ছে দিন’ স্লোগান ‘গলার কাঁটা’— এমন খোঁচাও দিয়েছেন। সাংবাদিক ও বিরোধীরা তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করেছেন বলে পরে দাবি করলেও তাঁকে বিজেপিতে ‘বিদ্রোহী’ হিসেবেই মনে করে রাজনৈতিক মহল।

এর মধ্যেই রবিবার মুম্বইয়ে গডকড়ী বলেন, ‘‘মিথ্যে স্বপ্ন দেখালে এবং সেই স্বপ্ন পূরণ না হলে জনতাই সেই নেতাকে পেটাবে।’’ ‘মিথ্যে স্বপ্ন’ দেখানোর প্রশ্নে রাজনৈতিক মহলের ধরে নিতে অসুবিধা হয়নি তাঁর নিশানায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই। বিরোধী নয়, প্রধানমন্ত্রী মোদীরই সহকর্মী গুরুত্বপূর্ণ এক মন্ত্রীর এমন মন্তব্যে ব্যাপক অস্বস্তিতে পড়ে বিজেপি। অস্বস্তি ঢাকার চেষ্টায় আসরে নামেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ জিভিএল নরসিমা রাও। তাঁর বক্তব্য, ‘‘দলের নেতৃত্ব নয়, কংগ্রেসকেই আক্রমণ করতে চেয়েছেন গডকড়ী।’’

আরও পডু়ন: বিদেশে পালাতে পারেন কে ডি সিংহ! তৃণমূল সাংসদের বিপুল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ইডি

আরও পড়ুন: ‘হিন্দু মেয়ে’ থেকে ‘মুসলিম মেয়ে’! কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পরপর বিতর্কিত মন্তব্যে টুইটার তোলপাড়

কিন্তু তাতেও অভিমুখ ঘোরানো যায়নি। সুযোগ বুঝে খোঁচা দিয়েছে কংগ্রেস। মধ্যপ্রদেশে মাস দুয়েক আগেই বিজেপিকে হারিয়ে ক্ষমতায় এসেছে কংগ্রেস। সেই মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেসের টুইট, ‘‘কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করেছেন...। মোদীজি, জনতা আসছে। প্রায় একই ভাবে টুইট করেছেন অল ইন্ডিয়া মজলিস-এ-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েইসি। টুইটারে প্রধানমন্ত্রীর দফতরকে ট্যাগ করে তাঁর বক্তব্য, ‘নিতিন গডকড়ী আয়না দেখাচ্ছেন, এবং খুব সূক্ষ্ম ভাবে।’

তবে নিতিন গডকড়ী নিজে এই মন্তব্যের কোনও ব্যাখ্যা দেননি। সংবাদ মাধ্যম বা বিরোধীরা তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করেছে, আগের মতো এমন কোনও মন্তব্যও তিনি করেননি। 

(ভারতের রাজনীতি, ভারতের অর্থনীতি- সব গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)