জঙ্গিদের গুলিতে নিহত বায়ুসেনার কম্যান্ডো কর্পোরাল জ্যোতিপ্রকাশ নিরালার পরিবারের হাতে আজ ‘অশোক চক্র’ তুলে দিতে গিয়ে স্পষ্ট দেখা গেল— রুমালে চোখ মুছছেন রামনাথ কোবিন্দ। প্রথা মেনে আজ প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে বাহিনীর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সম্মান ‘কীর্তি চক্র’-ও দেন কোবিন্দ। এই সম্মান পান উত্তরাখণ্ডের বাসিন্দা মেজর বৈজয়ন্ত বিস্ত। কিন্তু কর্পোরাল নিরালার স্ত্রী সুষমা এবং মা মালতী দেবীর মুখোমুখি হয়েই রাষ্ট্রপতি আজ যে ভাবে আবেগে ভাসলেন, তা কার্যত ‘নজিরবিহীন’ বলছে রাজপথ।

জঙ্গিদের গুলিতে শরীর ঝাঁঝরা। তবু পিছু হটেননি জ্যোতিপ্রকাশ নিরালা। একা হাতে নিকেশ করেছিলে ৩ জঙ্গিকে। গত বছর ১৮ নভেম্বরের ঘটনা। কাশ্মীরের বান্দিপোরার এক বাড়িতে জঙ্গিরা ঘাঁটি গেড়েছে খবর পেয়ে ‘অপারেশন রক্ষক’ অভিযানে নামে সেনার একটি দল। সেই দলেই ছিলেন বায়ুসেনার গার্ড স্পেশাল ফোর্সের কম্যান্ডো নিরালা। সংঘর্ষে নিহত ৬ জঙ্গির মধ্যে ছিল লস্কর-প্রধান জাকি-উর রহমান লকভির ভাইপোও। পরে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানায়, ‘‘কর্পোরাল জ্যোতিপ্রকাশ সে দিন যে ভাবে জঙ্গিদের ঘাঁটি আগলে পড়ে থেকেছিলেন, তা অনবদ্য।’’