রাজধানীর রাস্তায় দুই বিরোধী দলের গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হল দু’জনের। রবিবার বেলা ৪টে নাগাদ দক্ষিণ দিল্লির দ্বারকা মোড় মেট্রো স্টেশনের কাছে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানিয়েছে, সম্পত্তি নিয়ে বচসার জেরেই সংঘাত হয় দুষ্কৃতী দল দু’টির। যার জেরে দিনদুপুরে রণক্ষেত্রের আকার নেয় এলাকা।

পুলিশ সূত্রের খবর, নিহত দুই দুষ্কৃতী প্রবীণ ঘেলট ও বিকাশ দালাল বিহারের নাবাদার বাসিন্দা। তাদের বিরুদ্ধে দিল্লি ও হরিয়ানায় একাধিক খুন, ডাকাতি, জুলুমবাজির অভিযোগ রয়েছে। গত বছর হরিয়ানা পুলিশের হেফাজত থেকে পালিয়েছিল বিকাশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, প্রথমে একটি কালো গাড়ি চড়ে এসে দুই দুষ্কৃতী গুলি চালায় একটি সাদা গাড়িকে নিশানা করে। সাদা গাড়িটি থেকেও পাল্টা গুলি ছোড়া হয়। পুলিশ পরে জানিয়েছে, প্রবীণ একাই ছিল গাড়িতে। নাজাফগড় রোডের উপরে বিকাশ তার গাড়িটির পিছনে ধাওয়া করে। গাড়িতে তার সঙ্গে ছিল আরও এক সঙ্গী। আর এক জন শাগরেদ ছিল মোটরবাইকে। মোট ১৫দফা গুলি চলে। কিছুক্ষণের মধ্যেই হাজির হয় একটি পুলিশের গাড়ি। দুষ্কৃতীদের পিছনে ধাওয়া করে গুলি চালিয়ে তাদের এক জনকে এক হত্যা করেন এক পুলিশকর্মী। নিজেদের মধ্যে গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হয় এক জনের।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

ঘটনার আকস্মিকতায় আতঙ্কে পড়ে যান পথচারীরা। পুলিশের নজর এড়িয়ে দুই দুষ্কৃতী পালিয়ে যায়। তাদের চিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে। যে পুলিশ কর্মী এক জনকে গুলি করে হত্যা করেছে, পুরস্কৃত করার পাশাপাশি পদোন্নতির জন্য তাঁর নাম বাছা হয়েছে। এই ঘটনায় খুনের মামলা দায়ের হয়েছে বিন্দাপুর থানায়।

এই মাসের গোড়াতেও সাকেত কোর্টের বাইরে দুই দুষ্কৃতীর গুলিতে মৃত্যু হয় প্রিন্স নামে এক যুবকের। একটি খুনের মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে এসেছিল সে। রোহিণীতেও মণীশ নামে এক ব্যক্তিকে সিনেমার কায়দায় গাড়ি থেকে নেমে পিছনে ধাওয়া করে গুলি করে দুষ্কৃতীরা।