না, ভুল দেখছেন না। আজকাল হামেশাই যেখানে ৪ জিবি (গিগা বাইট)  র‌্যামের  পার্সোনাল কম্পিউটার দেখা যায় বাড়িতে বাড়িতে, সেখানে মাত্র ৮ কেবি (কিলো বাইট)  র‌্যামের যন্ত্রের এমন দাম শুনলে চমকে ওঠারই কথা। আসলে এই যন্ত্রের দাম এখন আর তার কার্যকারিতায় নেই, আছে ঐতিহাসিক মূল্যে। সম্প্রতি নিলামে বিক্রি হল প্রায় সাড়ে চার দশক আগে বাজারে ছাড়া অ্যাপল-এর প্রথম পিসি বা পার্সোনাল কম্পিউটারগুলির একটি। দাম উঠল ৪ লক্ষ ৭১ হাজার মার্কিন ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৩ কোটি ২৮ লক্ষ টাকা।

আজ তো কম্পিউটার আমাদের হাতের মুঠোয়। কিন্তু ৫০ বছর আগে টেবিলের উপর রাখা একটা ব্যক্তিগত কম্পিউটারের কথাও ভাবতে পারা যেত না। সেইসময় কম্পিউটার ব্যবহৃত হত কিছু গবেষণাগার এবং প্রথম বিশ্বের হাতে গোনা কয়েকটা বড় বড় অফিসে। মাপে সেই যন্ত্রগুলো ছিল বিশাল। বড় বড় আলমারি-এর সমান। কিন্তু কম্পিউটারকে ছোট করে, ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করার ভাবনাটি বাস্তবায়িত হয়েছিল ১৯৭৫ সালে, যখন পৃথিবীর প্রথম পার্সোনাল কম্পিউটার 'এমটিআইএস অল্টেয়ার ৮৮০০' (MTIS Altair 8800) বাজারে আসে। এর পরই ১৯৭৬ সালে অ্যাপল-এর 'অ্যাপল ১' বাজারে আসে।

অ্যাপল ১ বাজারে নিয়ে আসেন আমেরিকার দুই বন্ধু। দু’জনের নামই স্টিভ। তাঁদের একজন পরবর্তীতে কিংবদন্তি হয়ে ওঠা স্টিভ জোবস। অন্যজন স্টিভ ওজনিয়াক। বাজারে আনা মডেলটি মূলত ওজনিয়াকের তৈরি। জোবস সেটি বাজারে বিক্রি করার পরিকল্পনা করেন। এই কাজে, সাইকেল নিয়ে সেই সময় তিনি ঘুরে বেড়িয়েছেন রাস্তায় রাস্তায়। মোট ২০০টি অ্যাপেল ১ কম্পিউটার সেট তখন বাজারে এসেছিল। এক একটার দাম ছিল ৬৬৬.৬৬ মার্কিন ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৪৭ হাজার টাকা)।

আরও পড়ুন: কাজ করতে করতেই আগুন ধরে গেল ল্যাপটপে! দেখুন ভিডিয়ো

 ‘আদ্দিকালের’ সেই পিসিগুলোর স্পেসিফিকেশন কী ছিল?

•  মাপে এবং দেখতে একটি ব্রিফকেসের মতন।

• এটি এমওএস (MOS) প্রসেসর দিয়ে তৈরি। যার মধ্যে ছিল ৬৫০২ মাইক্রোপ্রসেসর এবং  র‌্যাম ৮ কেবি।

• সেই সময় এই পিসিতে বেসিক কিছু কাজ, প্রোগ্রাম ডেভলপিং করা যেত। গেম খেলা যেত।

এই কম্পিউটার বিক্রির জন্য স্টিভ জোবস একটি বিজ্ঞাপনও লেখেন। বিজ্ঞাপনটা ছিল এ রকম— "এটি একটি সম্পূর্ণ মাইক্রো কম্পিউটার সিস্টেম, যেটি সিঙ্গল পিসি বোর্ড দ্বারা তৈরি। এটি অত্যন্ত শক্তিশালী একটি সিস্টেম যেটি সমস্ত কিছুর জন্য ব্যবহার করা যাবে, প্রোগ্রাম ডেভলপিং থেকে শুরু করে গেম খেলা কিংবা বেসিক কাজ করা সবটাই করবে এই কম্পিউটার। যেহেতু এই পিসিটি সম্পূর্ণ ভাবে পরীক্ষিত এবং নিরীক্ষিত, এ ছাড়া এর নিজস্ব পাওয়ার সাপ্লাই রয়েছে, সেই কারণে এই কম্পিউটারটি চালানো খুবই সহজ এবং ঝঞ্ঝাটহীন।"

এই বছর ২৩ মে 'ক্রিস্টিস'-এর অনলাইন নিলামে সেই 'অ্যাপল ১'-এরই একটি বিক্রি হল ভারতীয় মুদ্রায় ৩ কোটি ২৮ লক্ষ টাকায়। এই দাম কিন্তু রেকর্ড নয় একেবারেই। এর আগে অ্যাপলেরই আর একটা পুরনো কম্পিউটার বিক্রি হয়েছিল ভারতীয় মুদ্রায় ৫ কোটি টাকায়।

আরও পড়ুন:চুরির দায়ে কেন ধরা হল? অ্যাপলের বিরুদ্ধে মামলা ঠুকল ১৮ বছরের ছেলে