কখনও নারীমূর্তি, কখনও ওবামার মাথা, কখনও বা ভাসমান চামচ। নাসার পাঠানো মঙ্গলের ছবিতে মাঝে মাঝেই চমকে উঠছে মানুষ। এবার ঠিক যেন এক বুদ্ধমূর্তি!

মঙ্গলে দেখা এই আকৃতি যে বুদ্ধেরই মূর্তি তা প্রমাণে যাথারীতি আসরে নেমে পড়েছে  ইউএফও সাইটিংস ডেইলি। ভিন গ্রহের প্রাণীর অস্তিত্ব প্রমাণে মরিয়া এই সংস্থার দাবি, মঙ্গলের মানুষরা শুধু ধার্মিকই ছিলেন না, মৃত্যু পরবর্তী জীবনেও নাকি বিশ্বাস করতেন তারা!

এই সংস্থার এক সদস্য স্কট সি ওয়ারিং আবার জানিয়েছেন, এই ছবি থেকেই নাকি স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে মঙ্গলে এক সময় বুদ্ধিমান প্রাণীর অস্তিত্ব ছিল। তবে নাসা এই সত্য কাউকে জানাতে চায় না। জানালে যে অনেক তথ্য জানাতে হবে।  ওয়ারনিংয়ের মতে বড় ছাতি, কাঁধ ও বিশাল পেটযুক্ত এই মূর্তি বুদ্ধরই। আর তাতেই নাকি প্রমাণ হয়ে যাচ্ছে মঙ্গলের প্রাণীরা বেশ ধার্মিক ছিলেন। সে না হয় মানা গেল। কিন্তু মঙ্গলে বৌদ্ধধর্ম প্রচার করলেন কে? এই প্রশ্নের সদুত্তর কি দিতে পারবেন ওয়ারনিং?