ভাঁজ করা একটা কাগজের টুকরো যেন। তাতে রয়েছে প্রয়োজনীয় অনেক তথ্য। সেটাই নাকি একটা ফোন!

যদিও তা দিয়ে সেলফি তোলা যাবে না। করা যাবে না ফোন। পাঠানো যাবে না মেসেজও। গুগলের এই নতুন ‘কাগুজে ফোন’ বাজারে আসার পর থেকেই তা নিয়ে আগ্রহ তৈরি হয়েছে নেটিজেনদের মধ্যে। তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা গুগলের ‘ডিজিটাল ওয়েলবিয়িং এক্সপেরিমেন্টেস’ প্রকল্পের ফসল এই ‘ফোন’। নাম পেপার ফোন।

পেপার ফোনে কনট্যাক্ট লিস্ট থেকে নোটবুক, ওয়েদার চ্যানেল থেকে ম্যাপ, ফোটো থেকে ক্যালেন্ডার রিমাইন্ডার— সব তথ্যই রাখা যাবে। এই সব তথ্য বন্দি থাকবে একটা মাত্র কাগজের টুকরোতে। ডিজিটাল দুনিয়া থেকে মানুষকে মুক্তি দিতেই এই উদ্যোগ বলে জানিয়েছে গুগল।

তবে পেপার ফোন নতুন ধরনের স্মার্ট ফোন নয়। এটি গুগলেরই একটি অ্যাপ। যা ইতিমধ্যেই চলে এসেছে অ্যান্ড্রয়েড ও ক্রোমের মতো গুগল প্রোডাক্টে। দৈনন্দিন জীবনের যে সব তথ্য বেশি প্রয়োজনীয়, সেই সব তথ্যকে এক জায়গায় জড়ো করতে সাহায্য করবে এই অ্যাপ। কনট্যাক্ট লিস্ট বা নোটবুকের মতো দরকারি তথ্য একত্রিত করে দেবে নতুন অ্যাপ। তার পর সেই সব তথ্যের প্রিন্ট আউট কাগজে নিতে হবে। ব্যস, সারা দিনে চলার জন্য আপনার ফোনে থাকা দরকারি তথ্য চলে আসবে একটা কাগজে। তাই তথ্য থেকে দূরে না থেকেও আপনি থাকতে পারবেন ‘ডিজিটাল ডিটক্স’-এ— এই ‘কাগুজে ফোন’-এর মাধ্যমে। 

প্রযুক্তির যুগে, ডিজিটাল সর্বস্ব দুনিয়া থেকে সাধারণ মানুষকে নিস্তার দিতেই পেপার ফোন অ্যাপ আনা হয়েছে। এ নিয়ে অ্যাপ নির্মাতারা জানিয়েছেন, ‘‘যারা ফোনের সঙ্গে অতিরিক্ত সময় কাটান এবং প্রযুক্তির সঙ্গে সামাজিক জীবনের ভারসাম্য করতে চাইছেন, তাঁদের জন্যই এই অ্যাপ।’’  

আরও পড়ুন: পেশাজনিত রোগ সারাতে হাতে হাত মেলাচ্ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

আরও পড়ুন: নোবেল প্রাইজের আগে