• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিনোদন

কীসের জোরে বাহুবলীর মতো কিক, চেন্নাই এক্সপ্রেসও বক্স অফিসে তুফান তুলেছিল?

শেয়ার করুন
১২ vfx
বলিউড মানেই ‘লার্জার দ্যান লাইফ’ কনসেপ্ট। কখনও হিরো পাঁচ তলা বাড়ি থেকে শূন্যে ঝাঁপ দিচ্ছেন। কখনও আবার ‘ভাইজান’ একাই খালি হাতে নেকড়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লড়ছেন। বাস্তবে এমনটা হলে তো মৃত্যু নিশ্চিত! তাই ওই সব দৃশ্যের জন্য ‘রক্ষাকর্তা’ ভিএফএক্স বা স্পেশাল ভিজুয়াল এফেক্ট।
১২ vfx
সাধারণ কোনও দৃশ্যকে দর্শকের চোখে অসাধারণ করে তোলাই এর কাজ। অনেকটা সেই ‘ছিল রুমাল, হয়ে গেল বিড়াল’-এর মতো ব্যাপার। বলিউডের অল টাইম ব্লকবাস্টার এস এস রাজামৌলি পরিচালিত ‘বাহুবলি’র কথা মনে আছে? সেখানে উন্নত মানের ভিএফএক্সের ব্যবহার তাক লাগিয়ে দিয়েছিল নেটিজেনদের।
১২ vfx
ভিএফএক্সের কথা হবে আর সেখানে সলমনের ছবি থাকবে না! ‘কিক’-এর সেই বিখ্যাত ট্রেনের দৃশ্য মনে আছে? ট্রেলারে যার ঝলক দেখেই অবাক হয়ে গিয়েছিলেন বলি- ফ্রিকরা! সেখানেও কিন্তু ব্যবহার করা হয়েছিল স্পেশাল ভিজুয়াল এফেক্ট।
১২ vfx
কিং খানও কম যান না। তাঁর সুপার হিরো সিনেমা ‘রা.ওয়ান’-এও ছিল ভিএফএক্সের ছড়াছড়ি। অ্যান্টি হিরো ‘রা.ওয়ান’ এবং সুপার হিরো ‘জি.ওয়ান’–এর ‘ফাইটিং সিকুয়েন্স’-এ কত যে স্পেশাল এফেক্ট ব্যবহৃত হয়েছিল তার ইয়ত্তা নেই।
১২ vfx
মুম্বইয়ের ঝাঁ চকচকে গ্ল্যামারের মধ্যেও এক নিকষ অন্ধকার রয়েছে। তা নিয়েই মিলন লুথরিয়ার ছবি ‘ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন মুম্বই’। সেখানেও রয়েছে ভিএফএক্সের ব্যবহার।
১২ vfx bhag milkha bhag
অ্যাথলিট মিলখা সিংয়ের জীবন-নির্ভর ছবি ‘ভাগ মিলখা ভাগ’ টান টান প্লট, সুন্দর চিত্রনাট্যের জন্য দর্শকমহলে বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছিল। ফারহান আখতারও মিলখার চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছিলেন সমালোচকদের লেখায়। এই ছবিতেও যে ভিজুয়াল এফেক্ট ব্যবহার করা হয়েছে তা হয়তো অনেকেরই অজানা।
১২ vfx
কিং খানের আর এক সুপারহিট সিনেমা ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’। রোহিত শেট্টি-র এই ‘রম-কম’ মন্দ লাগেনি দর্শকদের। আর রোহিত শেট্টি মানেই যে ভিএফএক্সের ভাণ্ডার, তা হয়তো নতুন করে বলে দিতে হয় না। এই ছবিতেও চিত্রটা মোটের উপর এক। স্পেশাল এফেক্টে ভরপুর এই ছবির বেশ কিছু দৃশ্য।
১২ vfx
ঝাঁসির রানি লক্ষ্মীবাঈকে নিয়েই ঐতিহাসিক মাস্টারপিস ‘মণিকর্ণিকা...’। পরিচালনা এবং মূল চরিত্রে অভিনয়— দু’ক্ষেত্রেই নিজের মুন্সিয়ানা দেখিয়েছিলেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। যুদ্ধের বিভিন্ন দৃশ্যে ‘বাহুবলী’র মতো প্রচুর ভিজুয়াল এফেক্ট ব্যবহার করা হয়েছিল এই ছবিতে।
১২ vfx
২০০৬-এ মুক্তি পাওয়া ‘কৃষ’ ছবির কথা মনে আছে নিশ্চয়ই। কৃষ-এর সেই কালো মুখোশ তো সে সময় ইয়ুথদের ‘ফ্যাশন স্টেটমেন্ট’ হয়ে দাঁড়িয়েছিল রীতিমতো। এই ছবিতেও স্পেশাল এফেক্টের ব্যবহার দেখা গিয়েছিল প্রায় পুরো সিনেমা জুড়ে।
১০১২ vfx
বক্স অফিসে সে রকম সাফল্য পায়নি অক্ষয় কুমার–দীপিকা পাড়ুকোনে অভিনীত ছবি ‘চাঁদনি চক টু চায়না’। তবে ছবির গানগুলো অনবদ্য সুর এবং কথার মেলবন্ধনে দর্শকের প্লে লিস্টে প্রথম সারিতেই জায়গা করে নিয়েছিল। এই ছবিতেই শ্রেয়া ঘোষালের কণ্ঠে ‘তেরে নয়না’ গানের দৃশ্যে ব্যবহৃত স্পেশাল এফেক্ট তাক লাগিয়েছিল নেটিজেনদের।
১১১২ vfx
তিন বন্ধুর রাগ, অভিমান, ভালবাসার গল্প শুনিয়েছিল ‘ককটেল’। ছবিতে অভিনয় করেন সইফ আলি, দীপিকা পাড়ুকোনে এবং ডায়ানা পেন্টি। ওই ছবির ‘দারু দেশি’ গানটি সেই সময় খুবই জনপ্রিয় হয়েছিল। দীপিকার ‘কেয়ার-ফ্রি’ অভিনয় মন ছুঁয়েছিল প্রায় সকলেরই। সে গানেও ভিএফএক্স ব্যবহার করা হয়েছিল!
১২১২ vfx
‘ভাইজান’ মানেই ক্যারিশমা। সলমনের ছবি ‘রেডি’তে আসিনকে নিয়ে পাহাড়ের খাদের একদম ধারে গাছ থেকে ঝুলে পড়ার দৃশ্য মনে আছে? স্পেশাল এফেক্ট ছাড়া এই শট নেওয়া কোনও ভাবেই সম্ভব ছিল না।

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
বাছাই খবর
আরও পড়ুন