• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিনোদন

সুপারহিট এই দক্ষিণী নায়িকা ব্যর্থ বলিউডে, মাতৃত্বের স্বাদ পান ১৬ বছরের দাম্পত্য ভেঙে যাওয়ার পরে

শেয়ার করুন
১৪ 1
তিন বার জাতীয় পুরস্কার-সহ পেয়েছেন আরও বহু সম্মান। কিন্তু তার পরেও বলিউডে প্রতিষ্ঠিত হতে পারেননি দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রির জনপ্রিয় নায়িকা রেবতী মেনন। কেরিয়ারের মতো তাঁর ব্যক্তিগত জীবনও সাক্ষী থেকেছে প্রতিকূল ঘাত-প্রতিঘাতের।
১৪ 2
তাঁর জন্ম ৮ জুলাই, ১৯৬৬। কেরলের কোচিন শহরে। জন্মগত নাম ছিল আশা কেলুন্নি নায়ার। তাঁর বাবা ছিলেন ভারতীয় সেনাবাবহিনীর মেজর, মা, গৃহবধূ। স্কুলে থাকতেই ফ্যাশন শো-এ অং‌শ নিতেন তিনি। সে রকমই একটি শো-এর ছবি প্রকাশিত হয় জনপ্রিয় তামিল পত্রিকার প্রচ্ছদে। সেটি দেখে তাঁকে অভিনয়ের সুযোগ দেন পরিচালক ভারতীরাজ। তাঁর ‘মন ভাসানাই’ ছবিতে।
১৪ 3
ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখার পর পাল্টে যায় নাম। ‘আশা’ থেকে তিনি হন ‘রেবতী’। পরবর্তীকালে ওই পরিচয়ই তিনি ব্যবহার করেছেন। ১৯৮৩ সালে মুক্তি পায় তাঁর প্রথম ছবি ‘মন ভাসানাই’। প্রথম ছবিতেই নজর কাড়েন রেবতী। এর পর সুযোগ পেতে বিশেষ অসুবিধে হয়নি।
১৪ 4
ক্রমে তামিল ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি হয়ে ওঠেন প্রথম সারির নায়িকা। তাঁর ফিল্মোগ্রাফিতে উল্লেখযোগ্য হল ‘সেলভি’, ‘কান্নি রসি’, ‘পাগল নিলাভু’, ‘মারুমঙ্গল’, ‘পুন্নাগাই মান্নান’, ‘উথামা পুরুশান’ ‘মাগালির মাট্টুম’, ‘চিন্না পুল্লা’, ‘অবতারম’, ‘ইরুভার’ এবং ‘তাজমহল’। ১৯৯০ সালে মণিরত্নমের পরিচালনায় তাঁর ছবি ‘অঞ্জলি’ ছিল সুপারডুপার হিট।
১৪ 5
তামিল, তেলুগু এবং মালয়ালম, এই তিন ভাষার ছবিতে দাপটের সঙ্গে কাজ করেছেন রেবতী। দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রিতে রেবতীকে বলা হয় সর্বকালের সেরা নায়িকাদের মধ্যে অন্যতম। আশি ও নব্বইয়ের দশকে তিনি পাল্লা দিয়ে অভিনয় করেছেন বিজয়াশান্তি, রাধিকা এবং রাধার মতো নায়িকাদের সঙ্গে। তিনি ছিলেন দক্ষিণী ছবির সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত নায়িকাদের মধ্যে অন্যতম।
১৪ 6
অভিনেত্রীর পাশাপাশি রেবতী এক জন দক্ষ ভরতনাট্যম শিল্পীও। পাশাপাশি তিনি বহু সমাজসেবামূলক কাজের সঙ্গেও যুক্ত।
১৪ 7
তবে এই পরিচিতি রেবতী বলিউডে পাননি। ১৯৯১ সালে সলমন খানের বিপরীতে মুক্তি পায় রেবতীর প্রথম হিন্দি ছবি ‘লভ’। সে সময় রেবতী ছিলেন সুপারহিট নায়িকা। কিন্তু বক্স অফিসে সাফল্য পায়নি ‘লভ’। রেবতীর বলিউড-অভিযান অধরাই থেকে যায়।
১৪ 8
১৯৮৬ সালে রেবতী বিয়ে করেন পরিচালক সুরেশচন্দ্র মেননকে। বাইরে ‘সুখী দম্পতি’ হিসেবে পরিচিত হলেও ভিতের ভিতরে জমছিল চাপা অশান্তির আগুন। তাঁরা মুখ না খুললেও শোনা যায়, দীর্ঘ দিন ধরে রেবতীর মা হতে না পারা-ই ছিল তাঁদের দাম্পত্য সমস্যার কেন্দ্র।
১৪ 9
১৬ বছরের দাম্পত্যে ফাটল ধরে ২০০২ সালে। স্বামীকে ছেড়ে আলাদা থাকতে শুরু করেন রেবতী। তবে তাঁদের চূড়ান্ত বিবাহবিচ্ছেদ হয় ২০১৩ সালে। এর পর তাঁরা দু’জনেই ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করা প্রায় বন্ধ করে দেন।
১০১৪ 10
ডিভোর্সের বছরেই ফের চমক দিলেন রেবতী। ভক্তদের জানালেন, তিনি মা হয়েছেন। মেয়ের নাম রেখেছেন ‘মাহি’।
১১১৪ 11
সে সময় সবাই ধরে নিয়েছিলেন, রেবতী হয়তো সুস্মিতা সেন বা শোভনার মতো সন্তান দত্তক নিয়েছেন। কিন্তু পরে আসল কথা প্রকাশ করেন রেবতী নিজেই। এক সাক্ষাৎকারে জানান, তিনি আইভিএফ পদ্ধতিতে মাতৃত্বের স্বাদ পেয়েছেন।
১২১৪ 12
মাতৃত্বের অনন্য অভিজ্ঞতা তাঁর জীবনকে সম্পূর্ণ পাল্টে দিয়েছে, এক সাক্ষাৎকারে জানান সিঙ্গল পেরেন্ট রেবতী। পাশাপাশি, ইন্ডাস্ট্রিতে অল্পবিস্তর কাজ শুরু করেন তিনি।
১৩১৪ 13
অন্য দিকে, রেবতীর প্রাক্তন স্বামী সুরেশ দীর্ঘ ২০ বছরের বিরতির পরে ফের ইন্ডাস্ট্রিতে ফিরে আসেন ২০১৭-এ। অভিনয় করেন ‘সোলো’ ছবিতে। তার আগে ১৯৯৩-এ মুক্তি পেয়েছিলে তাঁর পরিচালিত ও অভিনীত ছবি ‘পাশমার্গল’।
১৪১৪ 15
দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রিতে গুঞ্জন, সব ভুল বোঝাবুঝি মিটিয়ে প্রাক্তন স্ত্রীর কাছে আবার ফিরে যেতে চাইছেন সুরেশ। ফের জোড়া লাগবে রেবতীর সঙ্গে সুরেশের গাঁটছড়া? অপেক্ষায় ভক্তরা। (ছবি: ফেসবুক)

Advertisement

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
বাছাই খবর
আরও পড়ুন