Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৪ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

চিত্র সংবাদ

Bollywood Gossip: শয্যাদৃশ্যে আপত্তি, প্রকাশ্যে এক নায়কের সঙ্গে ঝগড়ায় জড়ান করিনার প্রাক্তন প্রেমিক

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ১৫ ডিসেম্বর ২০২১ ১০:১৯
শাহিদ কপূর এবং করিনা কপূরের প্রেম বলিউডের বহু চর্চিত বিষয় ছিল এক সময়ে। চর্চার বি‌ষয় বা বিতর্কের নিয়মিত জোগান অবশ্য তাঁরাই দিতেন।

কখনও ব্যক্তিগত ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের এমএমএস ফাঁস হয়ে যেত। কখনও বা সম্পর্কে তৃতীয় ব্যক্তিকে নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি, মন কষাকষি হত দু’জনের। জনসমক্ষে তার প্রকাশও করে ফেলতেন দু’জনে।
Advertisement
করিনাকে নিয়ে তাঁর প্রাক্তন প্রেমিক শাহিদ বহুবার সহ-অভিনেতাদের সঙ্গে ঝগড়াতেও জড়িয়েছেন। সেই সব ঝগড়া কখনও সখনও গড়িয়েছিল হাতাহাতিতে।

এমন বহু কেচ্ছা কেলেঙ্কারিরই সাক্ষী থেকেছে বলিউড। তবে একটি ঘটনা সম্ভবত অনেকের নজর এড়িয়ে গিয়েছিল।
Advertisement
২০০৪ সালে তৎকালীন প্রেমিক শাহিদের সঙ্গে ‘ফিদা’ ছবিতে কাজ করেছিলেন করিনা। ছবিটি ছিল ত্রিকোণ প্রেমের।

ত্রিকোণ প্রেমের ছবি মানেই তিনটি মূল চরিত্র। শাহিদ-করিনার সঙ্গে তৃতীয় ব্যক্তির চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন ফারদিন খান।

ছবিতে ফারদিনের সঙ্গে বেশ কয়েকটি ঘনিষ্ঠ দৃশ্য ছিল করিনার। এর মধ্যে আবার একটি শয্যা দৃশ্য।

শোনা যায় করিনার সঙ্গে ফারদিনের ওই শয্যা দৃশ্য নিয়ে শ্যুটিংয়ে তীব্র আপত্তি তুলেছিলেন শাহিদ।

এ নিয়ে তীব্র বাদানুবাদ হয় দুই নায়কের। ব্যাপারটা নাকি এতটাই খারাপ জায়গায় পৌঁছেছিল যে ছবি বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়।

শেষে দু’জনকে অনেক বুঝিয়ে রাজি করানো হয় ছবির শ্যুটিংয়ের জন্য। যদিও ফারদিন এবং শাহিদের সম্পর্ক এর পর আর কোনওদিনই স্বাভাবিক হয়নি।

ফারদিন এক সাক্ষাৎকারে ঘটনাটির কথা স্বীকার করেছিলেন। সেই সঙ্গে এ-ও বলেছিলেন যে, তিনি এবং করিনা অত্যন্ত ভাল বন্ধু। নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়াও ভাল। শাহিদের অপরিণতমনস্কতার জন্যই সেদিন সমস্যা হয়েছিল।

এরও জবাব দেন শাহিদ। কফি উইথ কর্ণ-এ অভিনেতা বলেছিলেন, ‘‘ওঁর যদি আমার কোনও কথা ভাল না লেগে থাকে, তবে আমাকে ব্যক্তিগত ভাবে বলতে পারতেন। কিন্তু তা না করে ফারদিন বিষয়টি জনসমক্ষে এনেছেন। এটা কাম্য নয়।’’

শোনা যায় করিনাকে নিয়ে দু’জনের ঝগড়ার জেরে এখনও মুখ দেখাদেখি নেই দুই নায়কের।

তবে ঘনিষ্ঠজনেরা বলছেন, এ বার বোধহয় ঝগড়া মিটিয়ে নেওয়ার সময় হয়েছে। কারণ ঝগড়ার কারণই আর নেই।

শাহিদ নিজেও মীরাকে নিয়ে সুখে আছেন। অন্যদিকে ফারদিন বলিউডে প্রত্যাবর্তনের চেষ্টা করছেন। তাই তিক্ততা ভুলে এ বার দু’জনের হাত মেলানো উচিত।