Advertisement
০৭ অক্টোবর ২০২২
TU-160

Bomber Jet: রাশিয়ার থেকে বোমারু বিমান ‘হোয়াইট সোয়ান’ কিনছে ভারত? কী রয়েছে এই বিমানে

বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম হলেও ভারতীয় বায়ুসেনার অস্ত্রাগারে বর্তমানে কোনও সুপারসনিক বোমারু বিমান নেই। ফলে জল্পনা আরও জোরালো হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ১২ অগস্ট ২০২২ ১৭:০৬
Share: Save:
০১ ১১
বায়ুসেনাকে আরও শক্তিশালী করতে ভারত কি এ বার রাশিয়ার সুপারসনিক বোমারু বিমান টিইউ-১৬০ কিনতে চলেছে? বেশ কয়েকটি সূত্র অন্তত তেমনই দাবি করছে।

বায়ুসেনাকে আরও শক্তিশালী করতে ভারত কি এ বার রাশিয়ার সুপারসনিক বোমারু বিমান টিইউ-১৬০ কিনতে চলেছে? বেশ কয়েকটি সূত্র অন্তত তেমনই দাবি করছে।

০২ ১১
বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম হলেও ভারতীয় বায়ুসেনার অস্ত্রাগারে বর্তমানে কোনও সুপারসনিক বোমারু বিমান নেই। ফলে জল্পনা আরও জোরালো হয়েছে যে, রাশিয়ার কাছ থেকে বোমারু বিমান কিনতে পারে ভারত।

বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম হলেও ভারতীয় বায়ুসেনার অস্ত্রাগারে বর্তমানে কোনও সুপারসনিক বোমারু বিমান নেই। ফলে জল্পনা আরও জোরালো হয়েছে যে, রাশিয়ার কাছ থেকে বোমারু বিমান কিনতে পারে ভারত।

০৩ ১১
রাশিয়ার বায়ুসেনা অস্ত্রাগারের অন্যতম শক্তিশালী বোমারু বিমান টুপোলেভ টি-ইউ ১৬০। এটি ‘হোয়াইট সোয়ান’ নামেও পরিচিত।

রাশিয়ার বায়ুসেনা অস্ত্রাগারের অন্যতম শক্তিশালী বোমারু বিমান টুপোলেভ টি-ইউ ১৬০। এটি ‘হোয়াইট সোয়ান’ নামেও পরিচিত।

সর্বশেষ ভিডিয়ো
০৪ ১১
টিইউ-১৬০ বোমারু বিমানটি আবার ‘ব্ল্যকজ্যাক’ নামেও পরিচিত। বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত, বড় সুপারসনিক বোমারু বিমান এটি। বিমানটি রুশ বাহিনীর মেরুদণ্ড হিসেবে পরিচিত।

টিইউ-১৬০ বোমারু বিমানটি আবার ‘ব্ল্যকজ্যাক’ নামেও পরিচিত। বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত, বড় সুপারসনিক বোমারু বিমান এটি। বিমানটি রুশ বাহিনীর মেরুদণ্ড হিসেবে পরিচিত।

০৫ ১১
১৯৮১ সালে বিমানটিকে পরীক্ষামূলক ওড়ানোর পর ১৯৮৭ সালে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের বায়ুসেনায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। সব রকম আবহাওয়ায়, যে কোনও পরিস্থিতি এবং যে কোনও ভৌগোলিক অবস্থানে এই বিমান উড়তে পারে।

১৯৮১ সালে বিমানটিকে পরীক্ষামূলক ওড়ানোর পর ১৯৮৭ সালে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের বায়ুসেনায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। সব রকম আবহাওয়ায়, যে কোনও পরিস্থিতি এবং যে কোনও ভৌগোলিক অবস্থানে এই বিমান উড়তে পারে।

০৬ ১১
ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২২০০ কিলোমিটার বেগে উড়তে পারে টিইউ-১৬০ বোমারু বিমানটি। এই বিমানটিকে আরও উন্নত পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু করেছে রাশিয়া। রুশ বাহিনীতে বর্তমানে ১৬টি টিইউ-১৬০ বিমান রয়েছে।

ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২২০০ কিলোমিটার বেগে উড়তে পারে টিইউ-১৬০ বোমারু বিমানটি। এই বিমানটিকে আরও উন্নত পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু করেছে রাশিয়া। রুশ বাহিনীতে বর্তমানে ১৬টি টিইউ-১৬০ বিমান রয়েছে।

০৭ ১১
টিইউ-১৬০ বিমানটি সাড়ে ৭ হাজার কিলোমিটার এলাকা জুড়ে কার্পেট বম্বিং করতে পারে।

টিইউ-১৬০ বিমানটি সাড়ে ৭ হাজার কিলোমিটার এলাকা জুড়ে কার্পেট বম্বিং করতে পারে।

০৮ ১১
টুপোলেভ সংস্থার দাবি, বিমানটি একটানা ১২,৩০০ কিলোমিটার উড়তে পারে।

টুপোলেভ সংস্থার দাবি, বিমানটি একটানা ১২,৩০০ কিলোমিটার উড়তে পারে।

০৯ ১১
এই বোমারু বিমান বোমা-সহ সর্বোচ্চ ২৭৫ টন ওজন বহন করতে পারে।

এই বোমারু বিমান বোমা-সহ সর্বোচ্চ ২৭৫ টন ওজন বহন করতে পারে।

১০ ১১
বিমানটি ৪০ টন পর্যন্ত ফ্রি-ফল বোমা বহন করতে পারে।

বিমানটি ৪০ টন পর্যন্ত ফ্রি-ফল বোমা বহন করতে পারে।

১১ ১১
বিমানে ১২কেএইচ-৫৫এমএস ক্ষেপণাস্ত্র এবং ২৪কেএইচ-১৫পি স্বল্প দূরত্বের পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র বহন করতে পারে।

বিমানে ১২কেএইচ-৫৫এমএস ক্ষেপণাস্ত্র এবং ২৪কেএইচ-১৫পি স্বল্প দূরত্বের পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র বহন করতে পারে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
আরও গ্যালারি

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.