Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০২ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

বিজ্ঞান

জেব্রার গায়ে ডোরাকাটা দাগের কারণ জানেন?

সংবাদ সংস্থা
বুদাপেস্ট ২০ নভেম্বর ২০১৮ ১০:১৯
জেব্রার ডোরাকাটা এল কোথা থেকে? কেনই বা এল? বহুদিন ধরেই চলছে গবেষণা। সম্প্রতি এ নিয়ে আমেরিকার দুটি জার্নালে নতুন গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে।

আঙ্গুলের ছাপ (ফিঙ্গারপ্রিন্ট) যেমন প্রত্যেকের আলাদা,  জেব্রাদের ডোরাকাটা দাগও তেমনি। একটা জেব্রার দাগের সঙ্গে অন্য জেব্রার দাগের মিল নেই।
Advertisement
শিকারীদের বিভ্রান্ত করতে ক্যামোফ্লাজ হিসাবে ডোরাকাটা দাগ জেব্রার গায়ে, এমনটা বলেছিলেন বেশ কয়েকজন বিজ্ঞানী।  কিন্তু এই দাগের পিছনে আদতে কোন জিন রয়েছে, তা নিয়ে রহস্য রয়েই গিয়েছে।

২০ লক্ষ বছরেরও বেশি আগে জেব্রার উৎপত্তি। প্রথমে বিজ্ঞানীদের ধারণা ছিল যে, ওদের শরীরে ডোরাকাটা দাগ কোন একটি কারণেই তৈরি হয়েছে আর তা হল অভিযোজন। পরবর্তীতে আরও ১৭টি তত্ত্ব দেন বিজ্ঞানীরা।
Advertisement
ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়া-ডেভিসের ওয়াইল্ড লাইফ বায়োলজিস্ট টিম বিভিন্ন তাপমাত্রা, অঞ্চলের ওপর ভিত্তি করে খুঁজেছেন কারণ। তাঁদের দাবি, বিষাক্ত সেটসি-সহ অন্যান্য মাছি তাড়ানোর জন্যই নাকি জেব্রার গায়ে ডোরাকাটা দাগ।

তাঁদের গবেষণা বলছে, মাছির প্রকোপ বেশি হলেই জেব্রার ডোরাকাটা দাগের ঘনত্ব বেড়েছে। নেচার কমিউনিকেশন জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে সমীক্ষার রিপোর্ট। ২০১২ সালের ইউরোপীয় বিজ্ঞানীদের একটি গবেষণাও একই তত্ত্ব জানিয়েছিল।

ব্রেন্ডা ল্যারিসনের নেতৃত্বে একদল মার্কিন বিজ্ঞানী গবেষণা করছেন জেব্রার ডোরাকাটা দাগ নিয়ে।তাঁদের মত, এই ডোরাকাটা দাগের সংখ্যা ও ঘনত্ব যে পরিবেশে জেব্রারা বাস করে,  সেখানকার তাপমাত্রা দ্বারা নির্ধারিত হয়।

তাঁরা দেখেন, অপেক্ষাকৃত উষ্ণ পরিবেশের জেব্রার ডোরাকাটা দাগগুলো মোটা এবং গোটা শরীর জুড়ে ব্যাপৃত।

দক্ষিণ আফ্রিকা ও নামিবিয়ার মতো দেশে যেখানে শীতকালটা অপেক্ষাকৃত বেশি ঠান্ডা, সেখানে জেব্রার ডোরাকাটা দাগগুলো কম। অপেক্ষাকৃত সরু, রঙও হালকা। কোনও ক্ষেত্রে পা, শরীরের কিছু জায়গায় ডোরাকাটা দাগ নেই বললেই চলে। আফ্রিকার অন্যত্র ঠিক উল্টো।

থার্মোরেগুলেশন বা শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণই জেব্রার ডোরাকাটা দাগ হওয়া এবং সেই দাগের নির্দিষ্ট বৈশিষ্ট্য লাভের প্রধান কারণ, এমনটা বলেন ল্যারিসন।

প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড্যানিয়েল রুবেনস্টেইন বলেন যে, মোটা মোটা ডোরাকাটা দাগওয়ালা জেব্রাদের শরীরের বাহ্যিক তাপমাত্রা একই সাইজের অন্যান্য প্রাণী, অ্যান্টিলোপের তুলনায়  অনেক কম। কিন্তু এই তত্ত্বও সম্প্রতি খারিজ করেছেন একদল বিজ্ঞানী।

হাঙ্গারির ইওতওভোস লোরান্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী গাভোর হোরবাথ ও হাঙ্গেরির ভেটেরেনারি মেডিসিন, সুইডেনের লান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দল জানায়, তাপমাত্রার সঙ্গে জেব্রার ডোরাকাটা দাগের কোনও সম্পর্ক নেই।

বেশ কিছু ব্যারেলের মাধ্যমে পরীক্ষা করে তাঁরা বলেন, জেব্রার ডোরাকাটা বাঁকা দাগ কখনই শরীরের ‘কোর টেম্পারেচার’ কমাতে পারে না। কারণ একই সাদাটে ছাই রঙের উপরে সমঘনত্বের ডোরাকাটা দাগের ব্যারেল ও জেব্রার ডোরাকাটা দাগের ব্যারেলের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রায় পরিবর্তন হয়নি।

তবে জেব্রার গায়ে এই ডোরাকাটা দাগের পিছনে মেলানিন রঞ্জক ও জিনের ভূমিকা নিয়ে বিজ্ঞানীরা নিরন্তর গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন। কারণ সঠিক একটি কারণ এখনও পর্যন্ত প্রতিষ্ঠিত হয়নি।