• নিজস্ব সংবাদাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সনি নেমে পড়লেন মহড়ায়

কালো কাপড় ঢেকে অনুশীলন ইস্টবেঙ্গলের

Dicka and Colado
টক্কর: ডার্বির আগে দুই বিদেশি। ডিকা ও কোলাদো (ডান দিকে)। নিজস্ব চিত্র

সনি নর্দে মাঠে নেমে পড়লেন। অনুশীলনে ম্যাচ খেললেন। দু’টো দুর্দান্ত পাস বাড়ালেন। পুরনো গতিতেই দৌড়ালেন। চোট সারিয়ে তিনি বৃহস্পতিবার বল পায়ে মাঠে নামতে পারেন, সে খবর ছিলই। এবং সেটা দেখতেই যুবভারতী সংলগ্ন জাল ঘেরা মাঠে উপচে পড়ল ভিড়। হাইতি মিডিয়ো বল ধরলেই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ছেন সবুজ-মেরুন সমর্থকরা। মনোভাবটা এমনই যে, সনি নামলেই রবিবার সবুজ আবির উড়বে।

শিল্টন পাল, হেনরি কিসেক্কাদের অনুশীলন যখন খোলামেলা, তখন ইস্টবেঙ্গল অনুশীলন ঢাকা থাকল কালো কাপড়ের আড়ালে। স্প্যানিশ কোচ আলেসান্দ্রো মেনেন্দেসের অনুশীলন ছিল ক্লোজড ডোর। কারও ঢোকার বা দেখার অনুমতি ছিল না। তা সত্ত্বেও নজিরবিহীন ভাবে যুবভারতী সংলগ্ন জাল ঘেরা মাঠের একটা দিক কালো কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা হল। যাতে বোরখা গোমেসদের কেউ দেখতে না পান। যুব বিশ্বকাপের পর বহু দল এই মাঠে অনুশীলন করেছে। এটিকে তো বটেই, আইএসএল এবং আই লিগের বাইরের দলও অনুশীলন করেছে। কখনও এই দৃশ্য দেখা যায়নি। শুধু তা-ই নয়, নতুন বিদেশি কোচ আসার পরে পনেরো মিনিটের বেশি সংবাদ মাধ্যমকে অনুশীলনই দেখতে দেওয়া হয়নি কোনও দিন। এরই মধ্যে সুখ এবং দুঃখের খবর এসেছে ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের জন্য। পাঁজরের হাড়ে চিড় ধরায় দলের এক নম্বর স্ট্রাইকার এনরিকে এসকুয়েদা ফিরে গেলেন দেশে। ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মেক্সিকান ফুটবলারটি সুস্থ হয়ে ফিরতে পারেন জানুয়ারিতে। যে সম্ভাবনা অবশ্য ক্ষীণ। তাঁর জায়গায় নতুন ফুটবলার নেওয়ার তোড়জোড় চলছে। অন্য দিকে খাইমে সান্তোস কোলাদোর ছাড়পত্র চলে এল এ দিন। আজ শুক্রবার সই করবেন তিনি। স্প্যানিশ খাইমেকে যে ডার্বিতে আলেসান্দ্রো প্রধান অস্ত্র হিসাবে চাইছেন, তা এ দিন অনুশীলনে বুঝিয়ে দিয়েছেন। কালো কাপড়ের ঘেরাটোপের মধ্যে যে অনুশীলন করিয়েছেন লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ, তাতে জবির সঙ্গে কোলাদোকে খেলানো হয়েছে সাপোর্টিং স্ট্রাইকার হিসাবে। কিন্তু মোহনবাগানের দুই স্ট্রাইকার হেনরি কিসেক্কা এবং দিপান্দা ডিকাকে রুখতে স্টপারে কাকে খেলাবেন, তা ঠিক করতে হিমশিম খাচ্ছেন লাল-হলুদ কোচ। এ দিন হঠাৎই বাতিল কিংশুক দেবনাথকে দীর্ঘক্ষণ খেলালেন তিনি বোরখা গোমেজের সঙ্গে। কখনও খেলানো হল জনি আকোস্তা ও সালামরঞ্জন সিংহকেও। শেষ পর্যন্ত কার ভাগ্যে শিকে ছিঁড়বে, জানেন একমাত্র কোচই। তবে ৪-৪-১-১ ফর্মেশনে যে ইস্টবেঙ্গল নামবে, তা বোঝা গিয়েছে। লালরিন্দিকা ডিকা এবং কাশিম আইদারাকে বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া হবে। 

মোহনবাগানে অবশ্য সনি নামার সঙ্গে সঙ্গেই খুশির হাওয়া বইছে। সনির চোটের জায়গায় ফের এমআরআই হয়েছে। কোচ-কর্তারা দেখে নিতে চান তারকা ফুটবলারটিকে খেলিয়ে যাতে দীর্ঘ লিগে কোনও সমস্যায় পড়তে না হয়। যা হয়েছিল গত বছর। সনির সঙ্গে এ দিন দীর্ঘক্ষণ কথা বলেন কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী। সনি পুরোদমে অনুশীলন করলেও তাঁর জায়গায় যাঁকে খেলানো হচ্ছিল সেই ওমর এলহুসেইনি আবার সামান্য চোট পেয়েছেন এ দিন। পায়ে বরফ বেঁধে বসে ছিলেন। তবে ক্লাব সূত্রের খবর, তাঁর চোট গুরুতর নয়। ডার্বিতে খেলতে অসুবিধা হবে না। 

ইস্টবেঙ্গলে যখন বিদেশিদের শুধু যাওয়া-আসা, তখন মোহনবাগানের সব বিদেশিই তৈরি। সনিকে পুরো খেলানো হবে কি না, তা নিয়ে মোহনবাগান কোচ দোটানায় থাকলেও বাকিরা তৈরি। ক্লাবের যা খবর, তাতে সনিকে শুরুতে খেলানো হতে পারে। সেই সময় মাঝমাঠে ওমর ও ইউতা কিনওয়াকি এবং আজহারউদ্দিন মল্লিককে নামানো হবে। সনি উঠে এলে সৌরভ দাশকে নামানো হবে। তবে শঙ্করলাল ঠিক করেছেন, ম্যাচের আগের দিনই সনিকে নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। এমনিতে লিগে দুই প্রধানের কেউই ভাল জায়গায় নেই। তবুও ডার্বির টিকিট বিক্রি ভালই। দুই প্রধানের মাঠে আজ থেকে সদস্যদের টিকিট দেওয়া শুরু হয়েছে। লম্বা লাইনও পড়েছে। দু’শো টাকার টিকিট শেষ হয়ে গিয়েছে। সংগঠকদের আশা, যুবভারতী ভর্তি হয়ে যাবে আই লিগের এই ম্যাচে।           

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন