বিশ্বকাপ দেখতে যান অসুবিধা নেই। কিন্তু রাশিয়ায় ভুলেও কেউ জাতীয় পতাকা নিয়ে যাবেন না। স্টেডিয়ামে তো নয়ই।

রাশিয়া বিশ্বকাপের ইংরেজ দর্শনার্থীদের প্রায় এই মর্ম্মেই নির্দেশ দিল সে দেশের পুলিশ বিভাগ। 

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম দাবি করছে, ইংল্যান্ডের কাছে সব চেয়ে বড় আতঙ্ক নাকি রাশিয়ার ‘ফুটবল গুন্ডারা’। সে কারণেই এমন আগাম সতর্কবাণী।  ইংল্যান্ডের বেশি ভয় ভলগোগার্ডকে। যার পুরনো নাম স্তালিনগার্ড। যেখানে তিউনিশিয়ার বিরুদ্ধে গ্যারেথ সাউথগেটের ফুটবলাররা খেলবেন ১৮ই জুন। 

ইংল্যান্ডে ফুটবল সমর্থকদের শৃঙ্খলাবদ্ধ রাখতে পুলিশ বিভাগে আলাদা একটা দফতরই আছে। যার বর্তমান ডেপুটি চিফ কনস্টেবল মার্ক রবার্টস বললেন, ‘‘আমাদের দেশেও আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচ হয়। তা সে ক্লাব স্তরে হোক বা জাতীয় স্তরে। আমরা কখনওই চাই না বিদেশ থেকে একদল লোক এসে খেলা দেখার নামে নেশা করে যা ইচ্ছে তাই করুক। আমার দেশের ফুটবল ভক্তদেরও তাই রাশিয়ায় শালীন আচরণ  করার অনুরোধ করছি। সেটা ওদের নিজেদের নিরাপত্তার পক্ষেও ভাল।’’

ব্রিটিশ পুলিশের এই অফিসার আরও বলেছেন, ‘‘জাতীয় পতাকার ব্যাপারে বেশি সাবধান থাকতে হবে। পতাকার ব্যবহার যেন এমন ভাবে না হয় যে অন্যরা আমাদের সাম্রাজ্যবাদী ভাবে। তাই যেখানে সেখানে পতাকা নিয়ে ঘোরাঘুরি না করাই ভাল। পতাকা ওড়ানোরও দরকার নেই।’’

অতীতে রাশিয়া ও ইংল্যান্ডের ফুটবল ভক্তেরা বহু বার স্টেডিয়ামে ও স্টেডিয়ামের বাইরে ঝামেলায় জড়িয়েছে। ২০১৬ সালে ইউরো-কে কেন্দ্র করে মার্সেইয়ে দু’দেশের ভক্তদের মারামারি-রক্তারক্তির স্মৃতি ভোলার নয়। প্রায় একই ধরনের ঘটনা ঘটে গত মার্চ মাসে ফিফা ফ্রেন্ডলিতে। সে বার আমস্টারডামে ডাচ ও ইংরেজ সমর্থকদের মধ্যে।