আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর কথা আগেই ঘোষণা করে দিয়েছিলেন অ্যালেস্টার কুক। এটাই ছিল তাঁর শেষ টেস্ট ম্যাচ। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই সিরিজ হেরে গিয়েছে ভারত। শেষ টেস্ট তাই সম্মানরক্ষার। ইংল্যান্ডের কাছে জিতে কুককে উপহার দেওয়া। কিন্তু শুরুটা শুক্রবার লড়াইয়ের ছিল না। বরং ছিল কুকের বিদায়ী ম্যাচে একসঙ্গে তাঁকে সম্মান জানানোর।

বিরাট কোহালির নেতৃত্বে সেটাই করল ভারতীয় ক্রিকেট দল। ৩৩ বছরের কুক যখন ব্যাট করতে নামলেন তখন ইংল্যান্ড দলের পাশাপাশি তাঁকে গার্ড অফ অনার দিল ভারতীয় দলও। এটাই জেন্টলম্যানস গেম আসলে। গার্ড অফ অনারের সময় বিরাট কোহালির সঙ্গে হাতও মেলালেন কুক। কেরিয়ার শেষ করেলন ১৬১ টেস্টে ১২ হাজার ২৫৪ রান নিয়ে ঝুলিতে। গড় ৪৪.৮৮। এর মধ্যে রয়েছে ৩২টি সেঞ্চুরি ও৫৬টি হাফ সেঞ্চুরি। টেস্ট তাঁর সর্বোচ্চ রান ২৯৪। া ২০১১ সালে বার্মিনহ্যামে এসেছিল এই ভারতীয় দলের বিরুদ্ধেই।

 এ দিন পঞ্চম টেস্টের টসও জিতলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট। গত ২০ বছরে এই প্রথম কোনও অধিনায়ক সিরিজের সব ক’টি ম্যাচেই টস জিতলেন। এর আগে ১৯৯৮-৯৯ সালে এই রেকর্ড ছিল অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক মার্ক টেলরের। রুটই প্রথম ইংল্যান্ড অধিনায়ক ও ক্রিকেট বিশ্বে তৃতীয় অধিনায়ক যাঁর দখলে থাকল ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজের সব ম্যাচে টস জেতার কৃতিত্ব। এর আগে ১৯৪৮-৪৯এ এই রেকর্ড ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন গোদার্ডের ও ১৯৮২-৮৩তে ক্লাইভ লয়েডের।

আরও পড়ুন
রাজ্য সরকারের কাছে কলকাতাতেই থাকার জায়গা চাইলেন স্বপ্না

এ দিনও টস হারের পর বিরাট কোহালি মজা করে বলেন, ‘‘আমার মনে হচ্ছে আমার জন্য কয়েনের দু’দিকেই যদি হেড থাকত তবেই আমি টস জিততাম।’’ এ দিন দলে দুটো পরিবর্তন এনেছিলেন বিরাট কোহালি। আনফিট রবিচন্দ্রন অশ্বিনের জায়গায় দলে আনা হয় রবীন্দ্র জাডেজাকে। এবং হার্দিক পাণ্ড্যকে বসিয়ে ভারতীয় জার্সিতে টেস্ট অভিষেক হল হনুমান বিহারীর। এর আগে বিরাটের মতো ভারতের দুই অধিনায়ক লালা অমরনাথ ও কপিল দেব দু’জনেই সব ক’টি ম্যাচে টস হেরেছিলেন। সব ক’টি টস জয়ের তালিকায় ভারতের একমাত্র অধিনায়ক টাইগার পটৌদি।