চোটের জন্য কমনওয়েলথ গেমস-এ অংশ নিতে পারছেন না। তার জন্য হতাশা তো রয়েছেই। কিন্তু একই সঙ্গে রিও অলিম্পিক্সে সাড়া ফেলে দেওয়া ভারতীয় জিমন্যাস্ট দীপা কর্মকার আশাবাদী, আসন্ন এশিয়ান গেমস থেকে পদক জয়ের ব্যাপারে।

গত বছরেই হাঁটুতে চোট পেয়েছিলেন দীপা। ছিঁড়ে যাওয়া লিগামেন্টে অস্ত্রোপচার করিয়ে এই মুহূর্তে ফের অনুশীলন শুরু করেছেন প্রথম ভারতীয় মহিলা জিমন্যাস্ট হিসেবে অলিম্পিক্সে অংশ নেওয়া ত্রিপুরার এই মহিলা জিমন্যাস্ট। এ দিন প্রচারমাধ্যমের কাছে নিজের হতাশা ব্যক্ত করে দীপা বলেন, ‘‘কমনওয়েলথ গেমসে অংশ নিতে পারলাম না বলে খারাপ লাগছে। চার বছর আগে গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছিলাম। চোট না পেলে এ বার গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে দলের সঙ্গে যেতাম। তা হলে পারফরম্যান্স আরও ভাল করার চেষ্টা করতাম।’’

এর পরেই দীপা বলেন, ‘‘ক্রীড়াবিদদের জীবনে চোট-আঘাত আসবেই। তা মেনে নিয়েই এগোতে হয়। অস্ত্রোপচারের পরে আমার রি-হ্যাব শেষ। এখন প্রস্তুতি নিচ্ছি আসন্ন এশিয়ান গেমসের জন্য।’’ সঙ্গে জুড়ে দেন, ‘‘এশিয়ান গেমসে জিমন্যাস্টিকস-এর চার ইভেন্টেই অংশ নিতে চাই। তার জন্য জোরালো প্রস্তুতি চলছে। একজন জিমন্যাস্ট এক বার কোনও বিশেষ ব্যাপার আয়ত্ব করতে পারলে, সেটা আঁকড়েই থেকে যান। কিন্তু প্রোদুনোভা ভল্টের পরে আমি আরও কিছু শিখছি নিজের উৎকর্ষ বাড়ানোর জন্য।’’

একই সঙ্গে এ দিন বিশ্ব জিমন্যাস্টিকসে প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে অরুণা রেড্ডির ভল্ট ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জয় নিয়েও উচ্ছ্বাস ব্যক্ত করেন দীপা। বলেন, ‘‘অরুণার সাফল্যে আমরা সবাই গর্বিত। জাতীয় শিবিরে আমার রুম মেট ছিল অরুণা। একই সঙ্গে নন্দী স্যার (বিশ্বেশ্বর নন্দী)-এর কাছে ভল্ট অনুশীলন করতাম। আসা করছি কমনওয়েলথ গেমসে ও সোনা জিতবে।’’