চেলসি ১          •         লেস্টার সিটি ১

ইপিএলে দ্বিতীয় ম্যাচেও জয় অধরা থাকল চেলসির। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে রবিবার নিজেদের মাঠে  ৬৬ মিনিট পর্যন্ত ১-০ এগিয়ে থেকেও শেষরক্ষা হল না। যাঁর ভুলে চেলসি এ দিন এগিয়ে যায়, লেস্টার সিটির সেই নাইজিরীয় তারকা উইলফ্রেড এনদিদি ‘প্রায়শ্চিত্ত’ করলেন কর্নারে নিখুঁত হেডে গোল শোধ করে।    

এডেন অ্যাজ়ারের রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়া। ক্লাব ছেড়ে চলে যাওয়া আলভারো মোরাতা, গঞ্জালো ইগুয়াইনের। কার্যত নতুন কোনও ফুটবলার না পেয়েই ইপিএলের মতো কঠিন লিগে অভিযান শুরুর চ্যালেঞ্জ কত বিপজ্জনক, তা নতুন ম্যানেজার ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড ভালই জানতেন। প্রথম ম্যাচেই ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের কাছে ০-৪ হেরে যায় চেলসি। তার পর এ দিন এগিয়ে থেকে ড্র।

ম্যান ইউয়ের বিরুদ্ধে বেশ কিছু নতুন ফুটবলারকে খেলানো নিয়ে ল্যাম্পার্ডের সমালোচনা করে জোসে  মোরিনহো বলেছিলেন, ‘‘এত গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে এই পরীক্ষা অবিশ্বাস্য। এটা কোচ ফ্রাঙ্কের অনভিজ্ঞতা স্পষ্ট করছে।’’ ল্যাম্পার্ড কিন্তু পাল্টা কিছু বলেননি। সুপার কাপ ফাইনালে ম্যান ইউ ম্যাচের রিজার্ভ বেঞ্চে থাকা অভিজ্ঞদেরই নামান। টাইব্রেকারে হেরে গেলেও চেলসি যথেষ্ট ভালও খেলে। ল্যাম্পার্ড বলে দেন, ‘‘একটা জিনিসই সঙ্গে ছিল না। ভাগ্য। যে কারণে ম্যাচটা জিতিনি।’’

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে রবিবার ইপিএলে প্রথম ম্যাচটা খেলল চেলসি। এবং এই ম্যাচে অন্তত খেটে গেল ল্যাম্পার্ডের ফাটকা। লেস্টার সিটির বিরুদ্ধে তিনি প্রথম এগারোয় নামিয়ে দিলেন ম্যাসন টোনি মাউন্টকে। কে এই মাউন্ট? মাত্র কুড়ি বছরের এক তরুণ। এতদিন মূলত ইংল্যান্ড ও চেলসির হয়ে (আরও অন্য ক্লাবেও খেলেছেন) বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টে তাঁকে দেখা গিয়েছে। ইপিএলে এই নিয়ে দ্বিতীয় বার শুরু থেকে চেলসির জার্সি পেলেন। তাও ল্যাম্পার্ড রবিবার তাঁকে খেলালেন অভিজ্ঞ মাতেও কোভাচিচের জায়গায়। সাত মিনিটে মাউন্ট লেস্টার সিটির বিরুদ্ধে চেলসিকে ১-০ এগিয়ে দিলেন সুযোগ সন্ধানী গোল করে। গত মরসুমে মাউন্ট তাঁর কোচিংয়েই খেলেন ডার্বি কাউন্টিতে। মিডফিল্ডার হলেও গোল করেন ১১টি। যে কারণে চেলসিতে তাঁকে নিয়েছেন ল্যাম্পার্ড। রবিবার অন্তত পোর্টসমাউথের এই ফুটবলার গুরুর প্রতি সুবিচার করলেন। যদিও শেষরক্ষা হল না, লিগের দ্বিতীয় ম্যাচেও জিততে পারল না চেলসি। পয়েন্ট ভাগ  করে মাঠ ছাড়তে হল প্রাক্তন চেলসি তারকাকে!