বিরাটের পাশে শোয়েব, বিদ্রুপ ইউনিসদের
তাঁর স্পষ্ট মন্তব্য, ভারতের টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানেরা বুধবার জঘন্য ব্যাটিং করেছেন।
Akhtar

সহমর্মী: ভারতের পাশে দাঁড়াচ্ছেন শোয়েব আখতার। ফাইল চিত্র

পাকিস্তানের প্রাক্তন পেসার শোয়েব আখতার মনে করেন, শুরুর বিপর্যয়ের পরে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি ও রবীন্দ্র জাডেজার সৌজন্যে দারুণ ভাবেই ঘুরে দাঁড়িয়েছিল ভারত। সেখান থেকে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিততে পারেনি অল্পের জন্য।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বুধবার ২৪০ রান তাড়া করতে নেমে প্রথম সেমিফাইনালে বিরাট কোহালিরা ১৮ রানে হেরে যায়। ম্যাট হেনরির দুরন্ত ওপেনিং স্পেল সত্ত্বেও জাডেজা (৭৭) ও ধোনি (৫০) অসাধারণ জুটি গড়ে সপ্তম উইকেটে ১১৬ রান তোলে। যা ভারতকে প্রায় জয়ের কাছাকাছি নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু মার্টিন গাপ্টিলের অসাধারণ থ্রোয়ে ধোনি রান আউট হতে ছবিটা পাল্টে যায়। যা নিয়ে শোয়েব বলেছেন, ‘‘এত কাছে কিন্তু কত দূরে ভারত! টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানেরা খুবই সাধারণ সব বলে কার্যত নিজেদের উইকেট ছুড়ে দিয়ে আসার পরে নীচের দিকের ব্যাটসম্যানরা যথেষ্ট লড়াই করেছে।’’

ইউটিউব চ্যানেলে ভারত-নিউজ়িল্যান্ড ম্যাচ নিয়ে শোয়েব এ কথা বলেছেন।  তাঁর স্পষ্ট মন্তব্য, ভারতের টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানেরা বুধবার জঘন্য ব্যাটিং করেছেন। শোয়েবের কথায়, ‘‘ভারতের সেরা পাঁচ জন ব্যাটসম্যান খুব খারাপ ব্যাটিং করেছেন। অবশ্য রোহিত খুব ভাল একটা বলে আউট হয়েছে। আর বিরাট কোহালির আউটটা নিয়ে এটা বলতেই হবে যে, ও দুর্ভাগ্যের শিকার। আম্পায়ার আউট না দিলেও পারতেন।’’ শোয়েব সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘‘এমনিতে জাডেজা আসার আগে ভারতের অন্য ব্যাটসম্যানদের খেলায় কিন্তু কোনও গভীরতা ছিল না। ওই অবস্থায় জাডেজা সত্যিই অসাধারণ খেলেছে। ও আর ধোনি মিলে ভারতকে রীতিমতো লড়াইয়ে রেখেছিল।’’

শোয়েব আরও বলেছেন, ‘‘জাডেজা যে বলটায় আউট হল সেটা ওর ছয় মারা উচিত ছিল। আর কে বলতে পারে, রান নেওয়ার সময় ধোনি ডাইভ দিলে হয়তো রানআউটই হত না। ভারতও হয়তো শেষ পর্যন্ত ম্যাচটা জিতে ফিরত।’’ 

শোয়েবের কথায়, ‘‘ধোনি অবশ্যই একজন কিংবদন্তি। এটা নিয়ে কোনও কথাই হতে পারে না। ও ক্রিকেটের একজন মহান দূত। যত ক্ষণ উইকেটে ছিল, তত ক্ষণ মনে হয়েছে, ভারত জিতে যাবে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ও শেষের কাজটা করে যেতে পারল না। কোহালিদের জন্য ভারতীয়দের গর্ববোধ করা উচিত।’’

তবে শোয়েবের মতো প্রতিক্রিয়া দেননি পাকিস্তানের অন্য প্রাক্তন ক্রিকেটাররা। টুইটারে ওয়াকার ইউনিসের প্রতিক্রিয়া, ‘‘ক্রিকেট খেলাটা কী নির্মম। আর কী ভাবে তা সমতা বজায় রাখে। কখনও খেলাটাকে নষ্ট করতে নেই। তা হলে পস্তাতে হয়। বিশ্বকাপ থেকে এটা একটা শিক্ষা।’’

পাকিস্তানের আর এক প্রাক্তন বাসিত আলি ফের ভারত বনাম ইংল্যান্ড ম্যাচ টেনে এনে লিখেছেন, ‘‘আমি আগেই বলেছিলাম, ইংল্যান্ড ও আরও কয়েকটি দেশের সঙ্গে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে খারাপ খেলেছে ভারত। এ বার তার মূল্য চোকাতে হল ওদের। নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে যে ম্যাচটা জেতা উচিত ছিল ওদের। সেটাতেই হেরে ওদের বিদায় নিতে হল বিশ্বকাপ থেকে।’’   

ম্যাচের
Live
স্কোর