বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগেই দুঃসংবাদ বিরাট কোহালির শিবিরে। আজ, শনিবার নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নামবে ভারত। তার আগের দিন ওভালে অনুশীলন চলাকালীন চোট পেলেন ওপেনার শিখর ধওয়ন ও  অলরাউন্ডার বিজয় শঙ্কর।

শুক্রবার ওভালে অনুশীলন চলছিল ভারতীয় দলের। ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গারের থেকে থ্রো-ডাউন নিচ্ছিলেন শিখর। একটি বল আচমকা বাউন্স করে আছড়ে পড়ে শিখরের হেলমেটে। শিখর সামলাতে পারেননি। সেই বল ঠোঁটে লেগে সামান্য রক্তপাত হয়। 

চোট লাগার কিছুক্ষণ পরেই নাকি হাসতে, হাসতে মাঠ ছেড়ে বেরোতে দেখা যায় ভারতীয় ব্যাটিংয়ের ‘গব্বর’-কে। শোনা যাচ্ছে বাঁ হাতি ওপেনারের চোট তেমন গুরুতর নয়। তাই নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে শিখরের খেলা নিয়ে সে রকম সংশয় নেই।

নেটে ব্যাট করতে গিয়ে আহত শিখর। টুইটার

এ দিকে অনুশীলনেই চোট পান ভারতীয় অলরাউন্ডার বিজয় শঙ্কর। নেট বোলার হিসেবে ইংল্যান্ড উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বাঁ হাতি পেসার খলিল আহমেদকে। নেটে তাঁর বল খেলতে গিয়েই ডান হাতে চোট পান বিজয়। খলিলের শর্ট বলে পুল করতে গিয়ে বল আছড়ে পড়ে তাঁর ডান হাতে। চোট লাগার পরেই নেট থেকে বেরিয়ে যান বিজয়। কিন্তু তাঁর চোট কতটা গুরুতর তা এখনও জানা যায়নি।  

শুক্রবারের অনুশীলন শুরু হয় ফুটবল সেশন দিয়ে। কিছুক্ষণ গা-ঘামানোর পরেই শুরু হয় নেট সেশন। কেন উইলিয়ামসনের দলের বিরুদ্ধে ব্যাটিং অর্ডারের চার নম্বর ব্যাটসম্যান চূড়ান্ত করে নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। যেখানে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য মুখিয়ে থাকবেন বিজয় শঙ্কর, কে এল রাহুল ও দীনেশ কার্তিক। 

২০১৫ বিশ্বকাপের মতো ২০১৯ বিশ্বকাপেও অন্যতম ফেভারিট দল হিসেবে নামতে চলেছে ভারত। বিরাটদের যাত্রা শুরু ৫ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। তার আগে ইংল্যান্ডের পরিবেশ ও পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি ম্যাচে কোনও ফাঁকি দিতে চাইবে না ভারতীয় দল।

ভারতের সব চেয়ে বড় অস্ত্র তাঁদের ব্যাটিং অর্ডারের গভীরতা। প্রথম তিন হিসেবে রয়েছেন রোহিত শর্মা, শিখর ও স্বয়ং কোহালি। চার নম্বর এখনও ঠিক করা হয়নি। তার পরে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি, কেদার যাদব ও ‘পাওয়ারহিটার’ হার্দিক পাণ্ড্য। বোলিংয়ে নজর থাকবে যশপ্রীত বুমরার উপর। বুমরাই হয়ে উঠতে পারেন ভারতীয় বোলিংয়ের মূল অস্ত্র। এ বারের আইপিএলে দেখা গিয়েছে বুমরার বিরুদ্ধে সে রকম রান তুলতে পারেননি কোনও ব্যাটসম্যান। ফাইনালে তাঁর ইয়র্কার ও শরীর লক্ষ্য করা শর্ট বল সামলাতে নাজেহাল অবস্থা হয়েছিল শেন ওয়াটসনের। সমস্যা হয়েছিল আন্দ্রে রাসেলেরও। বুমরার পাশাপাশি পেস আক্রমণে রয়েছেন মহম্মদ শামি, ভুবনেশ্বর কুমার। দু’জনেরই অস্ত্র সুইং। কিন্তু এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডের পরিবেশে বল সুইং করছে না। সে ক্ষেত্রে বলের সিম কী ভাবে তাঁরা ব্যবহার করেন সেটাই দেখার।

পরীক্ষার মুখে পড়তে হবে ভারতের দুই রিস্টস্পিনারকেও। এ বারের আইপিএলে যুজবেন্দ্র চহাল বা কুলদীপ যাদব সে ভাবে সাফল্য পাননি। কিন্তু বিশ্বকাপের আগে এটাই নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার সুযোগ।