আগামী বছর থেকে নতুন নিয়মে ডেভিস কাপ। আর তার শুরুতেই কলকাতায় পছন্দের ঘাসের কোর্টে খেলবে ভারত। প্রতিপক্ষ ইটালি। দেশের সেরা তিন টেনিস খেলোয়াড় এখন বিশ্বের সেরা দেড়শোয়। তাই সব দিক থেকেই ভারত সুবিধা পেতে চলেছে বলে মনে করেন ডেভিস কাপ দলের অধিনায়ক ও প্রাক্তন তারকা মহেশ ভূপতি। 

বৃহস্পতিবার কলকাতায় প্রেমজিৎ লাল আমন্ত্রণী টেনিসের উদ্বোধন করে মহেশ বলেন, ‘‘সাউথ ক্লাবের ঘাসের কোর্টে আমাদের সফল হওয়ার সম্ভাবনা যথেষ্ট। আমাদের ছেলেরাও এখন যথেষ্ট ভাল ফর্মে রয়েছে। তাই আমি আশাবাদী।’’ জয়দীপ মুখোপাধ্যায় টেনিস অ্যাকাডেমি আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় সাকেত মিনেনি, বিষ্ণু বর্ধন ও পূরব রাজার মতো নামীরা অংশ নিচ্ছেন। 

আগামী বছর থেকে ডেভিস কাপ হচ্ছে নতুন নিয়মে। যেখানে ২৪টি দেশের মধ্যে হবে বাছাই পর্ব। এই ১২টি টাইয়ের বিজয়ী দলগুলি সরাসরি চলে যাবে নভেম্বরে মূলপর্বে। ভারত ১ ও ২ ফেব্রুয়ারি কলকাতায় এই টাইয়ে ইটালিকে হারাতে পারলে সোজা মূলপর্বে পৌঁছে যাবে। এ বার থেকে প্রতি ম্যাচের নিষ্পত্তি হবে তিন সেটে। দু’টি সিঙ্গলস ও একটি ডাবলস। নতুন এই নিয়ম নিয়ে মহেশ এ দিন বলেন, ‘‘এখন এই ব্যাপারে আমাদের কোনও মতামত দিয়ে লাভ নেই। কারণ, এটা ঠিক হয়ে গিয়েছে আর আমাদের এটা মানতেই হবে।’’

কলকাতায় প্রায় দু’দশক পরে ডেভিস কাপ ফিরে আসছে শুনে একটু অবাকই হয়েছেন মহেশ। তিনি বলেন, ‘‘এখানেই প্রথম ডেভিস কাপ ম্যাচ খেলেছি। টেনিসের একটা ঐতিহ্য আছে এই শহরে। আমার মনে হয়, ১৯৯৮-এ ইয়োনাস বর্কম্যান, টমাস এঙ্কভিস্তের সুইডেনের বিরুদ্ধে শেষ ডেভিস কাপ টাই খেলেছি এখানে। তার পরে আর ডেভিস কাপ হয়নি এই শহরে! এটা ঠিক হয়নি।’’

ঘরের মাঠে লিয়েন্ডার পেজের খেলার সম্ভাবনা নিয়ে মহেশ বলেন, ‘‘লিয়েন্ডারের যদি সুযোগ প্রাপ্য হয়, তা হলে নিশ্চয়ই খেলবে। তবে আমাদের তিনটে ছেলে এখন বিশ্বের সেরা দেড়শোর র‌্যাঙ্কিংয়ে মধ্যে রয়েছে। প্রজ্ঞেশ গুণেশ্বরন (১০৪), রামকুমার রামনাথন (১৩৩) ও ইয়ূকি ভামব্রি (১৩৭)। এঁরা ভাল খেললে দলও ভাল খেলবে।’’  

রজার ফেডেরারের ভক্ত মহেশ এ দিন সুইস তারকার খেলা চালিয়ে যাওয়া নিয়ে বলেন, ‘‘চার বছর আগে অনেকে বলেছিল ফেডেরার আর গ্র্যান্স স্ল্যাম জিততে পারবে না। তার পরেও ও তিনটে জিতেছে। ওর মতো জিনিয়াসকে সহজেই উড়িয়ে দেওয়া যায় না।’’