মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের টুইটার হ্যান্ডলে এই মুহূর্তে ঘুরছে একটাই স্লোগান, ‘ওয়ান লাস্ট টাইম’। চলতি আইপিএলে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা রোহিত শর্মাদের এ ভাবেই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার বার্তা দিয়েছেন ‘পল্টন’ ভক্তেরা।

এ বার আইপিএলে তিন বার মহেন্দ্র সিংহ ধোনির চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে জিতেছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। আজ, রবিবার হায়দরাবাদের উপ্পল স্টেডিয়ামে ফাইনাল জিতলে হিসেবটা দাঁড়াবে চারে চার। সেই লক্ষ্য সামনে রেখে তাঁর দল কতটা তৈরি?

শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে সেই ‘চারে চার’ প্রসঙ্গে রোহিতের গলায় শোনা গিয়েছে অন্য সুর। মুম্বই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘আমি ব্যক্তিগত ভাবে এই ব্যাখ্যার সঙ্গে একমত হতে পারছি না। আইপিএল খুব কঠিন একটা প্রতিযোগিতা।

আরও পড়ুন: শেষ যুদ্ধে জিততে আজ কোন ১১ জন যোদ্ধাকে নামাতে পারেন ক্যাপ্টেন কুল

এখানে প্রত্যেকটি দলই বিপজ্জনক।’’ রোহিত আরও বলেছেন, ‘‘মনে রাখা দরকার, রাজস্থান রয়্যালস এ বার প্লে-অফে পৌঁছতে পারেনি। কিন্তু গ্রুপ পর্বে ওরাই আমাদের দু’বার হারিয়েছে। ফলে ম্যাচের দিনে দল কতটা ভাল খেলছে, তার উপরেই সমস্ত কিছু নির্ভর করে।’’ 

বরং‌ সতর্ক রোহিত আরও বলেছেন, ‘‘ফাইনালে খেলব বলে অবশ্যই একটা সুখানুভূতি রয়েছে। তবে আগের মতোই সেরা সফল দলের তকমা বহন করতে আমি রাজি নই। ক্রিকেটারদের বলে দিয়েছি, প্লে-অফে কী হয়েছিল সেই আবেগকে বিসর্জন দিয়ে ফাইনাল নিয়ে ভাবতে হবে। তার বাইরের ব্যাপারগুলো নিয়ে মাথা ঘামানো অর্থহীন।’’

বাঁ কাঁধে চোট পেয়ে আইপিএল থেকে ছিটকে গিয়েছেন চেন্নাই সুপার কিংসের কেদার যাদব। সঙ্গত কারণে বিশ্বকাপের আগে ক্রিকেটারদের অতিরিক্ত ক্রিকেট খেলার ধকল নিয়ে উদ্বেগের বিষয় ফের সামনে চলে এসেছে। রোহিত অবশ্য মনে করছেন, বিশ্বকাপের আগে নিজেদের প্রস্তুত করে নেওয়ার সেরা মঞ্চ আইপিএল। ক্রিকেটারদেরই ঠিক করতে হবে, তাঁরা কতটা ধকল নিতে পারছেন। রোহিত বলেছেন, ‘‘প্রতিযোগিতা শুরুর দিন থেকে আমরা বলেছিলাম, ক্রিকেটারদের শারীরিক সুস্থতার বিষয়ে নজর রাখা হবে। কে কতটা টানা ক্রিকেটের ধকল নিতে পারছে, তা পর্যালোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে সব চেয়ে ভাল উত্তর দিতে পারে ক্রিকেটাররাই।’’

উদাহরণ হিসেবে রোহিত তুলেছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলের দুই সেরা অস্ত্র যশপ্রীত বুমার এবং হার্দিক পাণ্ড্যের নাম। তিনি বলেছেন, ‘‘বুমরার ব্যাপারে বলতে পারি, ও এমন একজন ক্রিকেটার যে সমস্ত ম্যাচেই খেলতে পছন্দ করে। আর বুমরা খুব ভাল ছন্দেও রয়েছে।’’ রোহিতের আরও সংযোজন, ‘‘আমরা প্রত্যেক মুহূর্তে আলোচনা করেছি বুমরার সুস্থতা নিয়ে। ও যদি বিশ্রাম চাইত, আমরা তার জন্য তৈরি ছিলাম। আমাদের দলের ফিজিয়ো এবং বুমরা—দু’পক্ষই জানিয়েছে কোনও সমস্যা হচ্ছে না। ফলে টানা ক্রিকেটের ধকলের বিষয়টা বুমরার ক্ষেত্রে  আদৌ প্রযোজ্য নয়।’’

বরং রোহিত সব চেয়ে বেশি আনন্দ পেয়েছেন, বিশ্বকাপের আগে হার্দিক দুর্দান্ত ফর্মে ফিরে আসায়। তিনি বলেছেন, ‘‘বিশ্বকাপের আগে ওর ফর্মে ফেরাটা আমাদের কাছে খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। বরং আমি মনে করি, বিশ্বকাপের মতো প্রতিযোগিতার আগে খেলার সঙ্গে যুক্ত থাকাটা ওদের পক্ষে লাভজনকই হয়েছে।’’ সেখানেই না থেমে রোহিত আরও বলেছেন, ‘‘আইপিএলের আগে হার্দিক চোট পেয়েছিল। ভারতীয় দলের হয়েও বেশ কয়েকটি ম্যাচে খেলতে পারেনি। কিন্তু এখন যে ভাবে হার্দিক ক্রিকেট খেলছে, সেটা মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের মতো ভারতীয় দলের পক্ষেও খুব ভাল। বিশ্বকাপের আগে হার্দিক নিজেকে খুব ভাল ভাবে যাচাই করে ফেলতে পারছে। সেটা অনেক বেশি ইতিবাচক বিষয় বলে আমি মনে করি।’’

রবিবারের ফাইনাল নিয়ে রোহিতের বক্তব্য, ‘‘উপ্পলে দু’টি দলই এর আগে বেশ কয়েকটা ম্যাচ খেলেছে। আমরা এখানকার উইকেটের চরিত্র সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। যারা এখানকার আবহাওয়া এবং পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারবে, তারাই লাভবান হবে। আমরা যদি আগে ব্যাট করি, তা হলে স্কোরবোর্ডে এমন একটা রান রাখতে হবে যাতে লড়াই করা সহজ হয়। সে ভাবেই নিজেদের তৈরি রাখছি।’’