• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বক্সিং ডে টেস্টের আগে ফুরফুরে মেজাজে অস্ট্রেলিয়া

পন্টিংকে একহাত নিয়ে রুট বলছেন, বাচ্চা নই

Joe Root
জো রুট।

Advertisement

চলতি অ্যাশেজে ৩-০ পিছিয়ে টেস্ট সিরিজ ইতিমধ্যেই খুইয়েছে ইংল্যান্ড। ডন ব্র্যাডম্যানের দেশে ইংরেজ ক্রিকেটারদের এই দুর্দশা দেখে দিন কয়েক আগেই ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট-কে ‘বাচ্চা ছেলে’ বলে তুমুল সমালোচনা করেছিলেন প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক রিকি পন্টিং।

এ বার বক্সিং ডে টেস্ট শুরুর আগে পন্টিং-কে পাল্টা দুষলেন রুট। বলে দিলেন, ‘‘ইংল্যান্ড ড্রেসিংরুম সম্পর্কে কোনও ধারণাই নেই পন্টিংয়ের। এ ব্যাপারে তিনি  কিছু জানেনও না।’’ মঙ্গলবারই মেলবোর্নে শুরু হচ্ছে ‘বক্সিং ডে’ টেস্ট। তার আগে রুটের এই পাল্টা মন্তব্যে সরগরম অ্যাশেজ।

ঘটনার সূত্রপাত গত সপ্তাহে। যেখানে রিকি পন্টিং ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ সিরিজে এই নাজেহাল অবস্থা সম্পর্কে বলতে গিয়ে ইংল্যান্ড উইকেটকিপার জনি বেয়ারস্টো ও অস্ট্রেলিয়ার ক্যামেরন ব্যানক্রফ্ট-এর মধ্যে পানশালায় মাথা ঠোকাঠুকি করার কথা উল্লেখ করেন। সঙ্গে ইংল্যান্ড বোলার জেমস অ্যান্ডারসনের মাথায় মদ ঢেলে দিয়ে দলের তরুণ ক্রিকেটার বেন ডাকেট-এর নির্বাসিত হওয়ার ঘটনাও তুলে আনেন পন্টিং। তিনি বলেন, ‘‘এই সব ঘটনা প্রমাণ করে দলে অধিনায়ক হিসেবে রুটের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ নেই। লাজুক ভাবে দল পরিচালনা না করে কখনও কখনও কড়া হাতে দলের রাশ ধরতে হয় অধিনায়ককে। টিভিতে রুট-কে অধিনায়ক হিসেবে সাক্ষাৎকার দিতে দেখেছি। ওর কথাবার্তার ধরনও বাচ্চা ছেলেদের মতোই।’’

তার পরেই এ দিন মেলবোর্নে চতুর্থ টেস্ট শুরুর আগে প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ককে এক হাত নিয়েছেন রুট। তাঁর কথায়, ‘‘পন্টিং ব্যক্তিগত মত ব্যক্ত করতেই পারেন। কিন্তু আমাদের ড্রেসিংরুমে বা দলের সঙ্গে তিনি কখনও সময় কাটাননি। ওঁর মন্তব্যের সঙ্গে একমত হতে পারছি না। আমাদের ড্রেসিংরুমে কোচ, সাপোর্ট স্টাফ বা সতীর্থ খেলোয়াড়রা আমার পাশে রয়েছে।’’

ইংল্যান্ড অধিনায়ক আরও বলেন, ‘‘দল পরিচালনা করার জন্য আমার নিজস্ব কৌশল, পরিকল্পনা রয়েছে। কিন্তু তা বাচ্চা ছেলের মতো, তা মানা যাচ্ছে না। আমি যা নই, তা কখনও করে দেখাতে চাই না। এটা ঠিক যে দলের স্বার্থে কখনও কখনও কড়া হতে হয়। মাঠে হয়তো আমাকে সে ভাবে দেখা যায় না। কিন্তু কখন কড়া পদক্ষেপ দরকার সেটা জানি। অতীতে তা করেওছি।’’

চনমনে: ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চতুর্থ টেস্ট খেলতে নামার আগে মেলবোর্নের নেটে ছেলের সঙ্গে ক্রিকেট খেলছেন শন মার্শ (বাঁ দিকে)। মেয়েকে নিয়ে নেটে ডেভিড ওয়ার্নারও।  ছবি: গেটি ইমেজেস

এ দিকে, মেলবোর্ন টেস্ট শুরুর চব্বিশ ঘণ্টা আগে সাংবাদিক সম্মেলনে এ দিনই রুট জানিয়ে দেন, চোট পাওয়া পেসার ক্রেগ ওভার্টনের বদলে বক্সিং ডে টেস্টে অভিষেক হতে চলেছে দক্ষিণ আফ্রিকাজাত পেসার টম কুরান-এর। তাঁর সম্পর্কে এ দিন রুট বলেন, ‘‘পরিশ্রম ও নিষ্ঠা দেখিয়েই প্রথম একাদশে জায়গা করে নিয়েছে কুরান। মেলবোর্নের পিচ ও পরিবেশ দেখার পরই ওকে দলভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’’

এ দিকে, অস্ট্রেলিয়া দলেও বদল হচ্ছে। আহত মিচেল স্টার্ক-এর জায়গায় খেলতে চলেছে জ্যাকসন বার্ড।’

রবিবার নেটে ব্যাট করার সময় আঙুলে চোট পেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। ফলে চতুর্থ টেস্টে তিনি খেলতে পারবেন কি না তা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছিল। এ দিন সেই জল্পনা উড়িয়ে স্মিথ বলে যান, ‘‘ব্যথা রয়েছে। কিন্তু খেলতে সমস্যা হবে না।’’ পাশাপাশি, বক্সিং ডে টেস্ট শুরুর আগের দিনই অস্ট্রেলিয়ার কোচ ড্যারেন লেম্যান জানিয়ে দিয়েছেন, ২০১৯ সালে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে চুক্তি শেষ হবে তাঁর। তার পরে আর কোচের পদে থাকতে চান না তিনি।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন