বয়স ছেচল্লিশ। কিন্তু প্রাণশক্তি অফুরান। ‘প্রবীণ’ লিয়েন্ডার পেজ এই বয়সেও চমকে দিচ্ছেন। নিউপোর্টে শনিবার এটিপি ‘হল অব ফেম’ টেনিস টুর্নামেন্টের ডাবলসে সেমিফাইনালে উঠলেন মার্কাস ড্যানিয়েলকে নিয়ে। হারালেন ম্যাথু এডবেন-রবার্ট লিন্ডসডেট্ জুটিকে।

ড্যানিয়েল নিউজ়িল্যান্ডের খেলোয়াড়। এই টুর্নামেন্টে পেজরা ডাবলসে তৃতীয় বাছাই জুটি। অস্ট্রেলীয়-সুইড জুটিকে তাঁরা হারালেন ৬-৪, ৫-৭, ১৪-১২ ফলে। কোয়ার্টার ফাইনালে লিয়েন্ডাররা তিনটি ম্যাচ পয়েন্টও বাঁচিয়েছেন।

সেই ১৯৯৫ সালে লিয়েন্ডার এই টুর্নামেন্টে প্রথম বার খেলেছিলেন। আর এখন তিনি এটিপি ট্যুরে জন ম্যাকেনরোর পরে সব চেয়ে বয়স্ক সেমিফাইনালিস্ট। ম্যাকেনরো ৪৭ বছর বয়সে সান জোসে শেষ চারের লড়াই লড়েছিলেন। 

শনিবার জয়ের পরে উল্লসিত লিয়েন্ডার বলেছেন, ‘‘এই রকম সব রাতের জন্যই যেন আজও খেলে যাচ্ছি। কঠোর পরিশ্রম। এমনকি জ্বর নিয়েও ম্যাচ খেলা— এ সবই আজও জীবনের অঙ্গ। আজ যেমন জিম করার পরে মনে হয়েছিল খেলতেই পারব না। তবু খেললাম। জিতলামও। অনেকেই ভাবে আমাদের কী মজা। দারুণ দারুণ সব জায়গায় ঘুরে বেড়াই টেনিস ম্যাচ খেলতে। কিন্তু খেলে বেড়াচ্ছি একটাই কারণে। আজও কঠোর অনুশীলনে নিজেকে ডুবিয়ে রাখি। ১৮টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক লিয়েন্ডার বলছে, ‘‘আমার মতো অভিজ্ঞতা আর ক’জনের আছে। দু’পায়ের শক্তি এখনও আগের মতোই রয়েছে। জানি অনেকেই সেটা বিশ্বাস করবেন না।’’