প্রশ্ন: কোন ফুটবলার আপনার আদর্শ ছিল?

মেসি: অবশ্যই মারাদোনাকে আমার ভাল লাগত। মারাদোনাই আমার আদর্শ ছিলেন। সঙ্গে পাবলো আইমারের নামটাও বলব। ওর খেলা দেখতে দারুণ লাগত।

প্র: বার্সেলোনায় আসার পর কে আপনাকে মানিয়ে নিতে সাহায্য করেছিল?

মেসি: নিজের দেশ ছেড়ে আসা খুব কঠিন একটা সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু লা মাসিয়ায় এসে সেস ফাব্রেগাসের মতো ভাল একটা বন্ধু পেয়েছিলাম। আজও ও আমার খুব ভাল বন্ধু।

প্র: নিজের কেরিয়ারে কোন কোচের প্রভাব সবচেয়ে বেশি?

মেসি: যাঁদের কোচিংয়ে খেলেছি সবার থেকেই কিছু না কিছু শিখেছি। কিন্তু তার কথা সারাজীবন মনে থাকবে যে প্রথম সুযোগটা দিয়েছিল। আমার ক্ষেত্রে সেটা ফ্র্যাঙ্ক রাইকার্ড। রাইকার্ড আমার উপর ভরসা করেছিলেন। প্রথম দলের সঙ্গে ট্রেনিং করতে দেওয়া। প্রথম ম্যাচ খেলা। আমার কেরিয়ার ওঁর হাতেই শুরু হয়েছিল।

প্র: আপনার সামনে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ কী ছিল?

মেসি: ছোটবেলায় আমি ঠিক মতো বাড়ছিলাম না। তাই হরমন ইঞ্জেকশন লাগত। বার্সেলোনা সেই চিকিৎসার টাকা দিতে রাজি হয়। যদিও সেই কারণে দেশ ছাড়িনি। আমার তেরো বছর বয়সে গোটা পরিবার স্পেনে আসার সিদ্ধান্ত নেয়। সেই সময় বন্ধুদের ছেড়ে এক অজানা সফরে যাওয়া আমার কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল।

প্র: কোন ব্যাপারটা আপনাকে সবচেয়ে বেশি উদ্বুদ্ধ করে?

মেসি: দেশ আর ক্লাবের হয়ে ট্রফি জেতা। আমি কোনও দিন পিছনে তাকিয়ে দেখি না কী সাফল্য পেয়েছি। সেটা অবসরের পর করব। আপাতত আরও সফল হতে চাই।

প্র: নেইমার আর সুয়ারেজের সঙ্গে আপনার এত ভাল কম্বিনেশনের পিছনে রহস্য কী?

মেসি:  প্রথমত ট্রেনিংয়ে আমরা খুব পরিশ্রম করি। মাঠের বাইরেও আমরা ভাল বন্ধু। সেই কারণে মাঠে আপনাআপনি নিজেদের মধ্যে একটা কম্বিনেশন তৈরি হয়েছে।

প্র: প্রিমিয়ার লিগে খেলার ইচ্ছা আছে?

মেসি: আমি সব সময় বলে এসেছি বার্সেলোনা আমায় সব কিছু দিয়েছে। ওরা যত দিন চায় আমি ক্লাবে আছি।

প্র: এ বার কোন ক্লাব প্রিমিয়ার লিগ জিতবে বলে মনে হয়?

মেসি: প্রিমিয়ার লিগ মানেই লড়াই অনেক বেশি। অন্তত শেষ মরসুমে তাই মনে হয়েছিল। সেই কারণে আগেভাগে ভবিষ্যদ্বাণী করা খুব মুশকিল।

প্র: কী মনে হয়, আপনার প্রাক্তন কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা সফল হবে ম্যাঞ্চেস্টার সিটিতে?

মেসি: অবশ্যই। পেপ একজন দুর্দান্ত কোচ। ধীরে ধীরে ঠিক মানিয়ে নেবেন লিগের সঙ্গে। আমি নিশ্চিত পেপ সফল হবেন।

প্র: কোন ব্রিটিশ ফুটবলারের বিরুদ্ধে খেলা সবচেয়ে কঠিন?

মেসি: বছরের পর বছর ইউরোপে অনেক ব্রিটিশ দলের বিরুদ্ধে খেলেছি। তাই অনেক ভাল ব্রিটিশ প্লেয়ারকে দেখেছি। কিন্তু আমি ওয়েন রুনিকে সব সময় শ্রদ্ধা করি। সেরা পর্যায়ের ফুটবলে অনেক দিন খেলেছে। এই প্রজন্মের স্পেশ্যাল প্লেয়ারদের মধ্যে একজন।

প্র: আর্জেন্তিনার হয়ে আবার খেলার পিছনে কার পরামর্শ ছিল?

মেসি: ফাইনালে হারার পর আমি সময় নিয়েছিলাম ভাবতে। অনেকের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। কিন্তু দেশের হয়ে আবার ফেরাটা সঠিক সিদ্ধান্ত ছিল। আর্জেন্তিনার হয়ে কোনও বড় ট্রফি জেতার ইচ্ছা একটুও কমেনি।

প্র: রোনাল্ডোর সম্বন্ধে আপনি কী বলবেন? বিশ্ব সেরাদের একজনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা আপনাকে আরও উন্নতি করতে সাহায্য করেছে?

মেসি: আমি রোনাল্ডোকে শ্রদ্ধা করি। ও খুব বড় একজন প্লেয়ার। ও যা সম্মান পেয়েছে, সেটা পাওয়ার ও যোগ্য। কিন্তু কারও সঙ্গে চ্যালেঞ্জ নয়, ক্লাব ও দেশের হয়ে ভাল খেলাটা আমায় আরও বেশি উদ্বুদ্ধ করে।

প্র: কেরিয়ারের কোন গোলটা আপনার কাছে স্মরণীয়?

মেসি: ২০০৯ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে আমার সেই হেড। গোলটা সুন্দর ছিল ঠিকই কিন্তু স্মরণীয় কারণ সেটার গুরুত্বটা অনেক। আমার গোলটাই ম্যাচটা শেষ করে দেয়।

প্র: কোনটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ, ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে গোল করা নাকি ফাইনালে?

মেসি: অবশ্যই যে গোলটা সব সব কিছুর ফয়সালা করছে, সেটা। দুর্দান্ত গোল করে কী লাভ যদি সেই টুর্নামেন্টটাই না জিততে পারি।

প্র: আপনার কেরিয়ারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ট্রফি কোনটা?

মেসি: বার্সেলোনায় আমরা সব সময় প্রতিটা ট্রফি জিততে চাই। মরসুম শুরুতে সে রকমই লক্ষ্যই থাকে আমাদের। তাই প্রতিটা ট্রফিকেই সমান গুরুত্ব দেওয়া হয়।