• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মাঁকড়ীয় আউট করবেনই অশ্বিন

Mankading
বিতর্ক: সেই মুহূর্ত। যা নিয়ে আলোড়িত হয়েছিল ক্রিকেটবিশ্ব। ফাইল চিত্র

গত আইপিএলে তাঁর একটা সিদ্ধান্ত নিয়ে তীব্র বিতর্ক হয়েছিল। রাজস্থান রয়্যালসের সঙ্গে ম্যাচে জশ বাটলারকে মানকাডিং বা ‘মাঁকড়ীয় আউট’ করেছিলেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের তৎকালীন অধিনায়ক আর অশ্বিন। যা নিয়ে ক্রিকেট মহলে তুমুল বিতর্ক তৈরি হয়। অশ্বিন অবশ্য সে জন্য কখনও ক্ষমা চাননি।

নন স্ট্রাইকার এন্ডের ব্যাটসম্যান যদি বল ডেলিভারি হওয়ার আগে ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে যান, আর বোলার তাঁকে রান আউট করে দেন, তখন তাঁকে মাঁকড়ীয় আউট বলে। ক্রিকেটীয় প্রথা অনুযায়ী, বোলার প্রথমে নন স্ট্রাইকার এন্ডে থাকা ব্যাটসম্যানকে সতর্ক করবেন। তা সত্ত্বেও যদি তিনি ক্রিজ ছেড়ে বেরোন, তা হলে বোলার তাঁকে রান আউট করতে পারেন। কিন্তু অশ্বিন সতর্ক না করে প্রথম সুযোগেই বাটলারকে রান আউট করে দেন। যা নিয়ে শুরু হয়েছিল তুমুল বিতর্ক।    

টুইটারে ভক্তদের সঙ্গে একটি প্রশ্নোত্তরের আসরে অশ্বিনকে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। ভারতীয় অফস্পিনারের কাছে এক ক্রিকেট ভক্ত জানতে চান, ‘‘পরের আইপিএলে আপনি কোন কোন ব্যাটসম্যানকে মানকাডিং (মাঁকড়ীয় আউট) করতে চান?’’ যে প্রশ্নের জবাবে অশ্বিন সাফ বলে দেন, ‘‘যে যে ব্যাটসম্যান ক্রিজ ছেড়ে বেরোবে, তাদের সবাইকে আমি মানকাডিং করব।’’ 

অশ্বিনের এই মন্তব্য সম্ভবত খুব একটা ভাল ভাবে নেয়নি বাটলারের আইপিএল দল রাজস্থান রয়্যালস। অশ্বিনের উদ্দেশে এক ক্রিকেট ভক্ত একটি ছবি টুইট করেছিলেন। যেখানে দেখা যাচ্ছে, গোটা ছয়েক সাদা ক্রিকেট বল রয়েছে। এবং, প্রত্যেকটা বলের উপরে লেখা ‘মানকাডিং’। এই ছবি টুইট করে সেই ভক্ত লিখেছেন, ‘‘বড়দিনে অশ্বিনকে আমার উপহার।’’ যে টুইট আবার রিটুইট করে রাজস্থান লিখেছে, ‘‘২০২০ আইপিএলের সময় কার ঝুলিতে এগুলো যাচ্ছে, তা ভেবে বার করার জন্য কোনও পুরস্কার নেই।’’ জনৈক ভক্ত প্রশ্ন করেন, পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের মধ্যে কাকে সেরা ব্যাটসম্যান মনে করেন তিনি? অশ্বিন জানান, তাঁর পছন্দের ব্যাটসম্যান সইদ আনোয়ার।  

এ বার আইপিএলে অশ্বিন অবশ্য কিংস ইলেভেন পঞ্জাব দলে নেই। তিনি চলে এসেছেন দিল্লি ক্যাপিটালসে। কিন্তু দল পরিবর্তন করলেও অশ্বিনের মানসিকতায় যে কোনও বদল হয়নি, তা বোঝা যাচ্ছে অফস্পিনারের মন্তব্যে।  

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন