৭১ বছরের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ম্যাচ পয়েন্ট বাঁচিয়ে উইম্বলডন জেতার পরে ফেডেরারকে প্রশংসায় ভাসালেন নোভাক জোকোভিচ। 

পঞ্চম উইম্বলডন ট্রফি জিতে বিয়র্ন বর্গকে ছোঁয়ার পরে জোকোভিচ বলেন, ‘‘সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় রজার ফেডেরারের বিরুদ্ধে আমার খেলোয়াড় জীবনের অন্যতম সেরা ফাইনাল। দুর্ভাগ্যবশত এই ধরনের ফাইনালে এক জনকে হারতেই হয়। দুটো ম্যাচ পয়েন্ট বাঁচিয়ে টাইব্রেকে ১২-১২ করা অবিশ্বাস্য লাগছে।’’ জোকোভিচ আরও বলেছেন, ‘‘রজার বলল ওর বিশ্বাস ৩৭ বছরেও যে পারা যায়, সেই বিশ্বাসটা অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পেরেছে। আমিও তাদের মধ্যে অন্যতম। রজার আমাকে অনুপ্রেরণা দিল। আমি আগেও কথাটা বলেছি। যখন আমি টেনিস খেলোয়াড় হওয়ার স্বপ্ন দেখছিলাম। সেন্টার কোর্টের দর্শকদের মধ্যে আমার বাবা-মা ও ছেলেও ছিল। তাই বিশেষ একটা অনুভূতি হচ্ছে।’’

এই জয়ের পরে ফেডেরারের সর্বোচ্চ ২০ গ্র্যান্ড স্ল্যাম ছোঁয়ার আরও কাছাকাছি চলে এলেন জোকোভিচ। তিনি গত ৩৯টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম ম্যাচের ৩৮টিতে জিতলেন। এক মাত্র হার এ বার ফরাসি ওপেনের সেমিফাইনালে দমিনিক থিমের কাছে। 

ফেডেরারও প্রশংসা করেন জোকোভিচের। বলেন, ‘‘দুর্দান্ত একটা ম্যাচ হল। দীর্ঘক্ষণ চলল। ম্যাচটায় সব কিছুই ছিল। নোভাক অভিনন্দন। অসাধারণ খেলা হল।’’ এ রকম রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ টেনিসপ্রেমীরা বহুদিন ভুলতে না পারলেও ফেডেরার বলে গেলেন, ‘‘আমি এই হারটা ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করব। আমার জেতার সুযোগ ছিল। জোকোভিচেরও। দুর্দান্ত টেনিস খেলেছি দু’জনই।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘শারীরিক ভাবে ঠিকঠাক জায়গাতেই আছি। সর্বস্ব উজাড় করে দিয়েছি। তবে আমার পরিবার এই রানার্স হওয়ার পুরস্কার পাওয়া প্লেটটা দেখে খুশি হবে না। ওরা সোনালি ট্রফিটা চায় (চ্যাম্পিয়নের ট্রফি)।’’

কৃতজ্ঞ হালেপ: প্রথম উইম্বলডন জয়ের পরে রোমানিয়ার তারকা সিমোনা হালেপ ধন্যবাদ দিচ্ছেন রজার ফেডেরারকে। সুইস মহাতারকা যে ভাবে ফাইনালের আগে হালেপকে উৎসাহ দিয়েছিলেন, তাতেই তিনি বিশ্বাস করতে শুরু করেছিলেন সেরিনার বিরুদ্ধে জেতা সম্ভব। গত বছর ফরাসি ওপেন জেতার পরে শনিবার খেলোয়াড় জীবনের দ্বিতীয় গ্র্যান্ড স্ল্যাম জেতেন হালেপ। তাও বিধ্বংসী মেজাজে। এক ঘণ্টার মধ্যেই বিপক্ষে থাকা ২৩ গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী মার্কিন তারকাকে হারিয়ে দেন তিনি। এই ম্যাচের আগে ফেডেরার পরামর্শ দিয়েছিলেন হালেপকে, জিতবেই এটা ধরে নিয়ে নামবে। ফেডেরার আরও বলেছিলেন, তিনি বিশ্বাস করেন হালেপের জেতার ক্ষমতা রয়েছে। সুইস মহাতারকার এই উৎসাহ-বার্তা পৌঁছে গিয়েছিল হালেপের কাছে।