ডেভিস কাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ খেলতে পাকিস্তানে যেতে সমস্যা নেই ভারতের টেনিস তারকা রোহন বোপান্নার। তিনি বলেছেন, পাকিস্তানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কোনও চিন্তা নেই তাঁর। সব সময়ই পাকিস্তানে ভাল আপ্যায়ন পেয়েছেন।

১৯৬৪ সালের পরে কোনও ভারতীয় ডেভিস কাপ দল পাকিস্তানে যায়নি। সেপ্টেম্বরে এশিয়া/ওসেনিয়া এক নম্বর গ্রুপের টাইয়ে ইসলামাবাদে পাকিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার কথা ভারতের। বিশ্ব ক্রম পর্যায়ের দিক থেকে বোপান্না এবং দ্বিবীজ শরণ দেশের সেরা ডাবলস খেলোয়াড়। তাই ডেভিস কাপে ডাবলসেও তাঁদের নামার সম্ভাবনাই বেশি। 

সোমবার নয়াদিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে বোপান্না বলেন, ‘‘পাকিস্তানে ডেভিস কাপ টাইয়ে খেলতে মুখিয়ে আছি। পাকিস্তানের টেনিস খেলোয়াড় আইসাম-উল-কুরেশির সঙ্গে আমার কথাও হয়েছে। ও আমার খুব ভাল বন্ধু। ও বলেছে চিন্তার কোনও কারণ নেই। পাকিস্তানে এর আগেও আমি গিয়েছি। সব সময়ই ওখানে দারুণ আপ্যায়ন পেয়েছি। তাই ওখানে যাওয়া নিয়ে আমার কোনও চিন্তা নেই।’’ ৩৯ বছর বয়সি বোপান্না এর আগে আইসামের সঙ্গে ডাবলসে খেলেছেন। ২০১০ সালে তাঁরা রানার্সও হন যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে।

বোপান্নাকে রবিবারের উইম্বলডন ফাইনালে ফেডেরার-জোকোভিচের দ্বৈরথ নিয়েও প্রশ্ন করা হয়। জানতে চাওয়া হয়, ফেডেরারের বয়েসের কারণে কোর্টে নড়াচড়ায় কোনও প্রভাব পড়ছে বলে তিনি মনে করেন কি না। বোপান্না বলেন, ‘‘রবিবারের ফাইনালে জিতেছে দু’জনই। ২১তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম থেকে স্রেফ এক পয়েন্টের দূরত্বে ছিল ফেডেরার। ৩৭ বছর বয়েসেও ফেডেরার দুরন্ত ভাবে কোর্টে নড়াচড়া করছে। তাই আমার মনে হয় না ফেডেরারের খেলায় বয়েসের কোনও প্রভাব পড়েছে।’’

ভারত গ্র্যান্ড স্ল্যাম সিঙ্গলসে কোনও দিন ট্রফি জেতেনি। তবে বোপান্নার মনে হয় সেই কৃতিত্ব অজর্ন করার দৌড়ে এখনও অনেক পিছিয়ে রয়েছে ভারতের খেলোয়াড়েরা। ‘‘আমাদের দেশের টেনিস ফেডারেশন এবং বাণিজ্যিক মহলকে উন্নত মানের সুযোগ-সুবিধে দিতে এগিয়ে আসতে হবে। এখানেই পার্থক্য হয়ে যায়। টেনিস দলগত খেলা নয়। ভারতে যদি আরও বেশি প্রতিযোগিতা হয়, তা হলে ভারতীয় খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স আরও উন্নত হবে,’’ বলেন তিনি।