শুটিংয়ের পাঁচ জন কোচকে ছেঁটে ফেলল সাই। জাতীয় শুটিং ফেডারেশনের জমা দেওয়া ২৯ জন কোচের তালিকা থেকে পাঁচ জনের নাম প্রত্যাখ্যাত হল মঙ্গলবার। জাতীয় রাইফেল সংস্থা অবশ্য সাই-এর এই সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক ও অমানবিক বলে দাবি করেছে। রাইফেল সংস্থার প্রেসিডেন্ট রণিন্দর সিংহ এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করে সাইকে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। যেখানে এই সিদ্ধান্তকে ‘অত্যন্ত অমানবিক’ ও ‘ক্রীড়াজগতের অপমান’ বলে মন্তব্য করেছেন।

সেই চিঠির জবাব দিয়েছে এই সরকারি সংস্থাও। সাই-এর বিশেষ ডিরেক্টর জেনারেল ওঙ্কার কিডিয়া সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন, ‘‘জাতীয় রাইফেল সংস্থার সঙ্গে এর আগেও এ ব্যাপারে কথা বলেছে সাই। ২৯ জন কোচের তালিকা থেকে তখনই ২৪ জন অনুমোদিত হয়েছিলেন।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘সাই-এর সিদ্ধান্তের কথা জাতীয় রাইফেল সংস্থাকে জানানো হয় ২৬ জুলাই। তখন কোনও প্রতিবাদপত্র পাইনি আমরা। অথচ হঠাৎই ছয় সপ্তাহ পরে ওদের মনে হল এই সিদ্ধান্ত অপমানজনক। তা হলে এত আলোচনা ও জিজ্ঞাসাবাদের কোনও মূল্যই রইল না।’’

কিডিয়া জানিয়েছেন, যে পাঁচ জন কোচের নাম প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে তাঁদের মধ্যে শ্রেয়ান কপূর, ও নীলাঞ্জনা ঘোষালের আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কোনও অভিজ্ঞতাই নেই। কোচিং করানোরও কোনও প্রমাণও নেই। পাওয়া যায়নি কোনও শ‌ংসাপত্রও। তৃতীয় ও চতুর্থ জনের নাম অমর জঙ্গ ও জিতেন্দর বেনিওয়াল। জাতীয় পর্যায়ে তিনি খেলেছেন এব‌ং ‘সি’ লেভেল কোচিং ডিগ্রি রয়েছে। কিন্তু সাই-এর মনে হয়েছে, আন্তর্জাতিক শুটারদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার মতো উপযুক্ত যোগ্যতা তাঁর নেই। 

আর পঞ্চম কোচ এম এস ভাঙ্গালে তো চাকরির ইন্টারভিউ দিতেই আসেননি। 

পাঁচ জনের প্রত্যেকেই শটগান বিভাগের কোচ। সাই অনুমোদিত বাকি ২৪ জন কোচের পাশাপাশি ১৭ জন শুটারকে টার্গেট অলিম্পিক পোডিয়াম পরিকল্পনার আওতায় প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।