• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ধোনি নিয়ে এ বার মুখ খুললেন বাঙ্গারও

Sanjay Bangar
—ফাইল চিত্র।

Advertisement

ভারতের ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গার জানালেন, বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে মহেন্দ্র সিংহ ধোনিকে সাত নম্বরে ব্যাট করতে পাঠানো তাঁর একার সিদ্ধান্ত ছিল না। ম্যাঞ্চেস্টারে বৃষ্টিবিঘ্নিত সেই সেমিফাইনাল দু’দিন ধরে চলে। প্রথম দিন নিউজ়িল্যান্ডকে ভারত ৫০ ওভারে ২৩৯ রানে (আট উইকেটে) বেঁধে রাখে। সংরক্ষিত দিনে ভারতীয় ব্যাটিংয়ে ধস নামাতে মূল ভূমিকা নিয়েছিলেন পেসার ম্যাট হেনরি (৩-৩৭)। মাত্র ২৪ রান বোর্ডে উঠতেই ভারতের চার জন ব্যাটসম্যান ফিরে যান। সপ্তম উইকেটে রবীন্দ্র জাডেজা (৭৭) এবং ধোনি (৫০) অসাধারণ লড়াই না করলে এবং জুটিতে ১১৬ রান না তুললে আরও লজ্জার হার হত ভারতের। ২৩৯ রানের লক্ষ্য থেকে ১৮ রান দূরে সে দিন শেষ হয়ে যায় ভারতীয় ইনিংস।

ম্যাঞ্চেস্টারের সেই ম্যাচে ধোনিকে এমনকি দীনেশ কার্তিক, হার্দিক পাণ্ড্যরও পরে নামানো হয়। যার জন্য ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট প্রবল সমালোচনার মুখে পড়ে। ব্যাটিং কোচ হিসেবে যার দায় বর্তায় বাঙ্গারের উপরেও। এক সাক্ষাৎকারে যা নিয়ে বাঙ্গার বলেছেন, ‘‘এই ঘটনার জন্য লোকে যে ভাবে আমাকে অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করেছিল, তা দেখে বিস্মিত হয়েছি। কিন্তু মনে রাখবেন ভারতীয় দলের যে কোনও সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে আমার কোনও একক দায়িত্ব নেই। বিশ্বাস করুন, আমরা পরিস্থিতি অনুযায়ী নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে সব সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’’ ২০১৪ সাল থেকে বাঙ্গার ভারতীয় দলের ব্যাটিং কোচ। তাঁর সময় ভারতীয় দল ৫০টি টেস্ট এবং ১১৯টি ওয়ান ডে ম্যাচ খেলেছে। বাঙ্গার জানিয়েছেন, বিশ্বকাপ শুরুর আগে ব্যাটসম্যানদের কার কী দায়িত্ব, তা নির্দিষ্ট করে বলে দেওয়া হয়েছিল। ‘‘আমরা এ-ও ঠিক করেছিলাম যে, মিডল অর্ডারের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে সব সময় নমনীয় থাকা হবে। বিশেষ করে ৫, ৬ ও ৭ নম্বরের ক্ষেত্রে,’’ বলেছেন ভারতের ব্যাটিং কোচ।

এখানেই থামেননি বাঙ্গার। তিনি আরও বলেছেন, ‘‘সেমিফাইনালের পরে সাংবাদিক সম্মেলনে বিরাট কোহালি নিজেও বলেছিল যে, আফগানিস্তান ম্যাচের পরে ঠিক হয় দরকার হলে ধোনিকে আর একটু নীচের দিকে নামানো হবে (তার আগে ধোনি পাঁচ নম্বরে নামছিলেন)। যাতে ৩৫ ওভারের পর থেকে ধোনি নেমে রানের গতি বাড়াতে পারে। বিশেষ করে ডেথ ওভারে। সেটা হলে লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ও নিজের অভিজ্ঞতা দিয়ে পরিচালনা করতে পারত। তাই ঠিক হয় ধোনি সেমিফাইনালে ৬ নম্বরে নামবে।’’ তিনি আরও যোগ করেন, ‘‘সেমিফাইনালে ৫ নম্বরে নামানো হয় কার্তিককে। তার পরেও দ্রুত উইকেট পড়তে থাকায় ড্রেসিংরুমে ঠিক হয়, ধোনিকে ফিনিশার হিসেবে কাজে লাগানো হবে। মনে রাখবেন এখনকার দলে ওই সব চেয়ে অভিজ্ঞ। তা ছাড়া রবি শাস্ত্রীও একেবারে নির্দিষ্ট করে বলেছে যে, ধোনিকে সাতে নামানোটা দলগত সিদ্ধান্ত ছিল। তাই এটা দেখে অবাক হচ্ছি যে, সবাই ধোনিকে সাত নম্বরে নামানোর জন্য একা আমাকেই দোষ দিচ্ছে।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন