আট নম্বর উইম্বলডন ট্রফি এবং রেকর্ড ২৪ গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয় থেকে আর দু’ধাপ দূরে সেরিনা উইলিয়ামস। মার্কিন তারকা মঙ্গলবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে হারালেন সতীর্থ অ্যালিসন রিসক-কে। ফল ৬-৪, ৪-৬, ৬-৩। এই নিয়ে ৩৭ বছর বয়সি সেরিনা উইম্বলডনে ১২ নম্বর সেমিফাইনালে উঠলেন। 

জয়ের পরে সেরিনা বলেন, ‘‘দু’সপ্তাহ আগেও হয়তো ম্যাচটা জিততে পারতাম না। তাই দারুণ লাগছে। রিসক দুর্দান্ত খেলছে। কত বড় বড় খেলোয়াড়কে হারিয়েছে। আমাকেও হারিয়ে দিতে পারত। আমিও আজ ভীষণ তেতে ছিলাম। কারণ, এই ম্যাচটা জিতলেই উইম্বলডনের সেমিফাইনালে ওঠার সুযোগ থাকবে, এটা ভেবে।’’ পাশাপাশি সেরিনা মিক্সড ডাবলসেও শেষ ষোলোয় উঠলেন। অ্যান্ডি মারে-সেরিনা জুটি ৭-৫, ৬-৩ হারায় ১৪ নম্বর বাছাই জুটিকে।

সেমিফাইনালে সেরিনার মুখোমুখি অবাছাই বার্বোরা স্ট্রাইকোভা। চেক প্রজাতন্ত্রের অভিজ্ঞ খেলোয়াড় স্ট্রেট সেটে হারান ১৯ নম্বর বাছাই ব্রিটেনের ইয়োহানা কন্টাকে। ফল ৭-৬ (৭-৫), ৬-১। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে সপ্তম বাছাই সিমোনা হালেপের লড়াই অষ্টম বাছাই এলিনা সোয়াইতোলিনার বিরুদ্ধে। সেরিনা ছাড়া চার সেমিফাইনালিস্টের মধ্যে এক মাত্র হালেপই গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী। গত বছর ফরাসি ওপেন জেতেন তিনি। 

পুরুষদের সিঙ্গলসে বুধবার কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াইয়ে নামবে ‘বিগ থ্রি’। অর্থাৎ রজার ফেডেরার, রাফায়েল নাদাল এবং নোভাক জোকোভিচ। টেনিসপ্রেমীরা ফেডেরার এবং নাদালের সেমিফাইনালে মুখোমুখি হওয়ার আশায়। বুধবার ফেডেরার মুখোমুখি হবেন কেই নিশিকোরির। অষ্টম বাছাই জাপানি তারকাকে হারালেই উইম্বলডনে রেকর্ড ১০০ তম ম্যাচ জিতবেন ফেডেরার। একই সঙ্গে রাফায়েল নাদাল যদি অবাছাই মার্কিন খেলোয়াড় স্যাম কোয়েরিকে হারাতে পারেন, ফরাসি ওপেনের পরে আবার ফেডেরারের মুখে পড়বেন তৃতীয় বাছাই স্প্যানিশ তারকা। সব মিলিয়ে তাদের ৪০তম মুখোমুখি লড়াই হবে। 

৩৭ বছর বয়সি ফেডেরার ১৯৯১ সালে জিমি কোনর্সের পরে সব চেয়ে বেশি বয়সি কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট। অল ইংল্যান্ড ক্লাবে এই নিয়ে ১৭ নম্বর কোয়ার্টার ফাইনাল এবং গ্র্যান্ড স্ল্যামের ক্ষেত্রে সংখ্যাটা ৫৫। নিশিকোরির বিরুদ্ধে মুখোমুখি লড়াইয়ে ৭-৩ এগিয়ে ফেডেরার। তবে গত বছর এটিপি ফাইনালসে নিশিকোরি হারিয়ে দিয়েছিলেন ফেডেরারকে। প্রায় পাঁচ বছরে ফেডেরারের বিরুদ্ধে জাপানি তারকার প্রথম জয়। ‘‘আমি ওর খেলার দারুণ ভক্ত। আমার মনে হয় ওর ব্যাকহ্যান্ড অন্যতম সেরা। দুরন্ত রিটার্ন করতে পারে। মানসিক ভাবে শক্তপোক্ত। আমার সব সময়ই মনে হয়েছে ও অসাধারণ প্রতিভা,’’ নিশিকোরির প্রশংসায় বলেন ফেডেরার।

নাদাল এই নিয়ে সপ্তম উইম্বলডন কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবেন। প্রতিপক্ষ বিশ্বের ৬৫ নম্বর স্যাম কোয়েরির সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে তিনি ৪-১ এগিয়ে। ২০১৭ সালে সেমিফাইনালে উঠেছিলেন স্যাম। তৎকালীন বিশ্বের এক নম্বর অ্যান্ডি মারেকে হারিয়ে। এ বার উইম্বলডনে ১০০টি এস সার্ভিস করে ফেলেছেন কোয়েরি। সার্ভিস হারিয়েছেন মাত্র এক বার। তা ছাড়া প্রথম রাউন্ডে পঞ্চম বাছাই দমিনিক থিমকেও ছিটকে দিয়েছেন তিনি। নাদাল তাই সতর্ক। স্প্যানিশ তারকা বলেছেন, ‘‘যখন ও ছন্দে থাকে যে কোনও সার্ভিসেই বিপজ্জনক।’’

শীর্ষবাছাই জোকোভিচের শেষ আটের প্রতিপক্ষ দাভিদ গফাঁ। মুখোমুখি লড়াইয়ে বিশ্বের এক নম্বর ৫-১ এগিয়ে। ২৮ বছর বয়সি গফাঁ-ই পুরুষদের সিঙ্গলসে টিকে থাকা খেলোয়াড়দের মধ্যে সব চেয়ে কম বয়সি। উইম্বলডনে প্রথম বার কোয়ার্টার ফাইনালে নামবেন। বেলজিয়ামের খেলোয়াড়ের কোচ আবার বলেছেন, জোকোভিচের বিরুদ্ধে খেলা মানে ‘বিপজ্জনক মাকড়শা’র বিরুদ্ধে খেলা। যাঁর দুর্বলতা খুঁজে পাওয়া কঠিন।