টানা পাঁচটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে হারের পর ভারতের মেয়েদের কাছে ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই বৃহস্পতিবার। 

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ক্রিকেটের আধুনিক ফর্ম্যাটে ভারতের এই ব্যর্থতা বেশ চিন্তায় ফেলার মতো। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চলতি টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভারত ৪১ রানে হারার পরে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ম্যাচে নামছেন স্মৃতি মন্ধানারা। এর আগে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে পরপর চারটি টি-টোয়েন্টিতে হেরেছেন তাঁরা। এ বার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধেও একই পথে যাচ্ছেন কী না, তার আন্দাজ পাওয়া যাবে এই ম্যাচেই। 

মন্ধানা অবশ্য ভারতীয় দলকে আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে নিয়ে যাওয়ার কথা বলছেন। ঝুলন গোস্বামীর ফের বিশ্বসেরা ওয়ান ডে ক্রিকেটার হওয়া প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বুধবার গুয়াহাটিতে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘‘ঝুলনদির এই সম্মান প্রাপ্য। ওঁর মতো ক্রিকেটার দলে থাকলে খুব ভাল হত। তবে আমাদের লক্ষ্য এখন ভারতীয় দলকে র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে নিয়ে যাওয়া। সেই চেষ্টাই করে চলেছি আমরা।’’ 

সেই চেষ্টায় সবচেয়ে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে টি-টোয়েন্টিতে টানা ব্যর্থতা। আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তার আগে দলকে তৈরি করার জন্য মন্ধানারা বেশ কয়েকটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে। নতুন কোচ ডব্লিউ ভি রামনের তত্ত্বাবধানে শুরুটা খুব একটা ভাল হয়নি। এই নিয়ে মন্ধানা বলেন, ‘‘আমরা এখন তৈরি হচ্ছি। একটা নির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছি আমরা। সাফল্যের রাস্তায় আসতে একটু সময় তো লাগবেই। দলের মেয়েদের সেই সময় দিতেই হবে।’’ এই সিরিজের পরেই মিতালি রাজ হয়তো টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নেবেন। নিজের শেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজকে স্মরণীয় করে রাখতে তিনি নিজেকে কতটা উজাড় করে দিতে পারেন, সেটাই দেখার।

এই সিরিজে চোটের জন্য হরমনপ্রীত কৌর না থাকায় যে দলের ক্ষতি হয়েছে, তা স্বীকার করে নিয়েই মন্ধানা বলেন, ‘‘ওর না থাকাটা অবশ্যই ক্ষতি। তবে এই ধরনের ধাক্কা সামলানোর উপায় অবশ্যই আমাদের রপ্ত করতে হবে। কারণ, এখনকার ক্রিকেটে চোট-আঘাত হতেই থাকে।’’