• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভারতের জার্সি জীবনই বদলে দিয়েছে সাইনির

Team India jersey has changed the life, says fast bowler Navdeep Saini
লক্ষ্য: দলে নিজের জায়গা পাকা করতে মরিয়া সাইনি। ফাইল চিত্র

ভারতের জার্সিতে দেশের হয়ে বল করাটা তাঁর কাছে স্বপ্ন ছিল। সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে এবং তাঁর জীবনই বদলে দিয়েছে। এমনটাই বলেছেন বিরাট কোহালির দলের তরুণ পেসার নবদীপ সাইনি। 

এই মুহূর্তে যশপ্রীত বুমরা, মহম্মদ শামিদের পাশাপাশি সাইনিও দলের বড় ভরসা হয়ে উঠেছেন। নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট দলেও রেখে দেওয়া হয়েছে তাঁকে। সতীর্থ শামিকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে নবদীপ বলেন, ‘‘আজ যেখানে পৌঁছতে পেরেছি, তাতে আমি খুশি। সবার স্বপ্ন থাকে এই জায়গায় পৌঁছনো। আমারও স্বপ্ন ছিল দেশের হয়ে খেলা। সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। এ বার আরও দূর যেতে চাই।’’

দিন কয়েক আগে হ্যামিল্টনের কাছে ‘ব্লু স্প্রিংস’-এ ট্রেকিং করতে গিয়েছিল ভারতীয় দল। সোমবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ওয়েবসাইটে দেওয়া ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে সেখানেই সাইনির সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন শামি। ‘‘তোমার জীবন বদলে দেওয়া মুহূর্ত কী?’’ শামির প্রশ্নের জবাবে সাইনি বলেন, ‘‘আমি প্রথমে খেলা শুরু করেছিলাম বাড়ির পাশে। সেখান থেকে রঞ্জি ট্রফি খেলি। তার পরে ভারতীয় দলে খেলার সুযোগ পাই। ওখানেই আমার জীবন বদলে যায়। যে স্বপ্ন দেখে এসেছিলাম ছোট থেকে, সেটা সত্যি হয়।’’

ফের লড়াইয়ের ইচ্ছে দেখলাম ইস্টবেঙ্গলের

আইপিএলে কোহালির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে খেলে নজরে কাড়েন সাইনি। কোনও কোনও ম্যাচে ঘণ্টায় দেড়শো কিলোমিটার গতিতেও বল করেছিলেন এই পেসার। যার পরে ভারতীয় দলের সঙ্গে ‘রিজার্ভ’ বোলার হিসেবে বিদেশ সফরে গিয়েছিলেন সাইনি। সেখান থেকে সাদা বলের ক্রিকেটে জাতীয় দলের জার্সিতে অভিষেক হয় তাঁর। এ বার নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট দলেও রেখে দেওয়া হয়েছে তাঁকে। তবে চূড়ান্ত একাদশে সুযোগ পাবেন কি না, সেটা এখন দেখার।

শুধু নিজের কথাই ভাবা নয়, সাইনি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন উঠতি কিন্তু অভাবী খুদে ক্রিকেটারদের দিকেও। শামির প্রশ্ন ছিল, অনেক খুদে ক্রিকেটার আছে যারা বেশ অভাবী। তাদের জন্য কি কোনও আর্থিক সাহায্য বা অন্য কিছু করার কথা ভাবছেন সাইনি? ভারতীয় পেস বোলারের জবাব, ‘‘আমি অ্যাকাডেমির খুদে ক্রিকেটারদের যখনই পারি সাহায্য করি। কাউকে জুতো দিয়েছি, কাউকে ক্রিকেটের সরঞ্জাম দিয়েছি। আবার প্রয়োজনে আর্থিক সাহায্যও করেছি। কারণ আমি জানি, এই সব জিনিস একজন উঠতি ক্রিকেটারের কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন