সেরিনা উইলিয়ামস তাঁকে ‘চোর’ বলতে ছাড়েননি। বলেছেন ‘মিথ্যেবাদী’ও। যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে মেয়েদের ফাইনালের চেয়ার আম্পায়ার কার্লোস র‌্যামোস মুখ খুললেন ঘটনার তিন দিন পরে। সেই র‌্যামোস, যিনি মেয়েদের টেনিসে মহাতারকার পয়েন্ট এবং গেম কেড়ে নেন। 

আম্পায়ারের এ হেন আচরণের কারণ খেলা চলার সময় কোচ প্যাটট্রিক মোরাতাগলুর কাছ থেকে নাকি নির্দেশ নিচ্ছিলেন সেরিনা। তেইশটি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালকিন যা অস্বীকার করেন। এবং এতটাই রেগে যান যে আম্পায়ারকে মৌখিক আক্রমণ ছাড়াও কোর্টে নিজের র‌্যাকেট ভেঙে ফেলেন। যার জেরে সেরিনার আর্থিক জরিমানাও হয়।

কিন্তু র‌্যামোস পরিষ্কার বুঝিয়ে দিলেন, ঘটনার জন্য তিনি আদৌ অনুতপ্ত নন। এবং যা কিছু করেছেন তা টেনিসের আইন মেনেই করেছেন। ‘‘আমাকে নিয়ে ভাববেন না। আমি দিব্যি সুস্থ আছি। কোনও উদ্বেগও নেই। মানছি পরিস্থিতিটা স্পর্শকাতর। কিন্তু আমি যা করেছি তাতে বিতর্কের কোনও অবকাশ নেই,’’ র‌্যামোস বলেছেন তাঁর ঘনিষ্ঠ মহলে। 

এমনিতে টেনিসের আন্তর্জাতিক সংস্থার নিয়ম হচ্ছে, ম্যাচের কোনও ঘটনা নিয়ে মুখ খুলতে পারবেন না আম্পায়াররা। তাই সরাসরি কোনও বিবৃতি দেননি র‌্যামোস। তবে পর্তুগালের এক সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, এই ঘটনার পরে বহু মানুষ তাঁকে সমর্থন জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন। যাঁদের মধ্যে আছেন বহু প্রাক্তন টেনিস তারকাও। সঙ্গে জানিয়েছেন, সেরিনা নয়, এখন তিনি ভাবছেন তাঁর পরবর্তী দায়িত্ব নিয়ে। 

এ’সপ্তাহের শেষেই র‌্যামোসকে দেখা যাবে ক্রোয়েশিয়ায় ডেভিস কাপ ম্যাচে চেয়ার আম্পায়ারের ভূমিকায়। সেখানে খেলবে যুক্তরাষ্ট্র ও ক্রোয়েশিয়া। এ দিকে শোনা যাচ্ছে সেরিনার আচরণে অখুশি আম্পায়ারদের একাংশ বয়কট করতে পারে তাঁর ম্যাচ।