সদ্য শেষ হওয়া বিশ্বকাপে পাকিস্তানের শুটারদের ভিসা না দেওয়ার প্রভাব পড়তে চলেছে ভারতের কুস্তি সংস্থার উপরেও। বিশ্ব কুস্তি সংস্থা (ইউডব্লিউডব্লিউ) তাদের অধীন সমস্ত জাতীয় কুস্তি সংস্থাকে নির্দেশ দিয়েছে ভারতের কুস্তি ফেডারেশনের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার।

এর আগে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক্স সংস্থাও জানিয়ে দিয়েছিল যেহেতু পাকিস্তানি শুটারদের ভিসা দেওয়া হয়নি, তাই ভারতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের কোনও প্রতিযোগিতা আয়োজন করার অনুমতি দেওয়া হবে না। ‘‘ইউডব্লিউডব্লিউ সমস্ত অনুমোদিত জাতীয় সংস্থাকে জানাতে চায়, ভারতীয় কুস্তি ফেডারেশনের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করতে হবে।’’ জাতীয় সংস্থাদের পাঠানো চিঠিতে এমনটাই বলা হয়েছে। ভারতীয় কুস্তি সংস্থার একটি সূত্রের তরফে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। 

গত মাসে পুলওয়ামায় সিআরপিএফ জওয়ানদের উপর সন্ত্রাসবাদী হামলার জেরেই বিশ্বকাপে পাকিস্তানি শুটারদের ভিসা দেওয়া হয়নি। যে কারণে আইওসি দুটি অলিম্পিক্স কোটাও তুলে নিয়েছিল বিশ্বকাপ থেকে। এই দুটি কোটা ২৫ মিটার র‌্যাপিড ফায়ার পিস্তল বিভাগে থাকার কথা ছিল। 

আন্তর্জাতিক কুস্তি সংস্থা চিঠিতে জানিয়েছে ভারতের এ ভাবে পাকিস্তানি খেলোয়াড়দের ভিসা না দেওয়াটা অলিম্পিক্সের মূল নীতির বিরোধী। কোনও অ্যাথলিটের বিরুদ্ধে বৈষম্যমূলক আচরণ করা যাবে না। ইউডব্লিউডব্লিউ জানিয়েছে, এই নির্দেশ তখনই তোলা হবে যদি ভারত সরকার লিখিত ভাবে এ ব্যাপারে নিশ্চয়তা দেয়। ভারতীয় কুস্তি সংস্থার প্রেসিডেন্ট ব্রিজভূষণ শরণ বলেছেন, যতক্ষণ না তিনি এই চিঠি হাতে পাচ্ছেন, ততক্ষণ কোনও মন্তব্য করবেন না।

সদ্য বুলগেরিয়ায় আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় ভারতীয় কুস্তিগিরেরা চারটি পদক পান। যার মধ্যে দুটি সোনা ও দুটি রুপো। কিন্তু আন্তর্জাতিক কুস্তি সংস্থার এই নির্দেশের কী রকম প্রভাব পড়ে ভারতীয় কুস্তিগিরদের উপরে? ভারতীয় কুস্তি সংস্থার একটি সূত্র দাবি করেছে, এই নির্দেশের প্রভাব পড়তে পারে আসন্ন জুনিয়র এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে। আইওসি এবং ইউডব্লিউডব্লিউয়ের কড়া বার্তার পরে ভারতে এই প্রতিযোগিতা আয়োজন করা নিয়ে অনিশ্চয়তা 

তৈরি হতে পারে।