নির্মম পেশাদারিত্ব আর শুষ্ক আধুনিকতার আঁচড়ে ক্রিম আর স্ট্রবেরির লাবণ্য যেমন হারাতে বসেছে উইম্বলডন, তেমনই কেরিয়ারের মোড় ঘোরাতে অল ইংল্যান্ড কোর্টের রানিও কি তাঁর লাবণ্য মুছে কর্কশ হয়ে ওঠার গেমপ্ল্যান নিলেন?

সেরেনা উইলিয়ামসের বিরুদ্ধে মহা সেমিফাইনালের আগের দিন মারিয়া শারাপোভা নিয়ে টেনিসমহলে সেই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে!

এক যুগেরও আগে উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর মাশা মাত্র একবার ফাইনালে উঠেছেন। শেষ চার এ বারেরটা ধরে মেরেকেটে দু’বার। তবু ২০০৪-এ সেই সতেরোর তন্বী রুশ টিনএজারের আচম্বিত উইম্বলডন জয়ের ঘটনার রোমন্থন আজও টেনিস রোমান্টিকের প্রিয় নস্টালজিয়া। এগারো বছর আগে সেন্টার কোর্টে রুপোর থালা জয়ী তাই এখনও ‘উইম্বলডনের রানি’ তকমাধারী।

তাঁর বৃহস্পতিবারের প্রতিপক্ষের সঙ্গে লড়াইয়ের পরিসংখ্যানেও কেমন অদ্ভুত সাদৃশ্য শারাপোভার! গত বারো বছর টেনিসগ্রহে যে লড়াই হাইভোল্টেজ, হেভিওয়েট— নানা ভারী ভারী বিশেষণে ভূষিত, সেই সেরেনা বনাম মাশা সাক্ষাতে রুশ টেনিস সুন্দরীর বিরুদ্ধে মার্কিন কিংবদন্তি ১৭-২ এগিয়ে! তার চেয়েও বড় কথা, সেরেনাকে শেষ বার শারাপো‌ভা হারিয়েছেন ২০০৪ অগস্টে ডব্লিউটিএ-র লস অ্যাঞ্জেলিস টুর্নামেন্টে। তার পর থেকে চলতি বছরে অস্ট্রেলীয় ওপেন ফাইনাল পর্যন্ত টানা ১৬ বার সেরেনা হারিয়েছেন শারাপোভাকে। এমনকী গত দশ বছরে শারাপোভার বিরুদ্ধে সেরেনা মাত্র তিনটে সেট খুইয়েছেন!

মাশা বনাম সেরেনা

• ম্যাচ ১৯, সেরেনা জয়ী ১৭, শারাপোভা জয়ী ২, শেষ সাক্ষাৎ ২০১৫ অস্ট্রেলীয় ওপেন ফাইনাল।

• উইম্বলডনে ম্যাচ ২, সেরেনা জয়ী ১, শারাপোভা জয়ী ১, শেষ সাক্ষাৎ ২০১০ প্রি-কোয়ার্টার।

চাকা ঘোরাতে শারাপোভা এ বার তাঁর গোড়াতেই আক্রমণাত্মক খেলার স্টাইল, না কোর্টে বডি ল্যাংগুয়েজ— কোনটা বেশি বদলাবেন, তা নিয়ে সরগরম লন্ডনের টেনিসমহল।

গতকালই কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে সেরেনার দেশের মেয়ে কোকো ভ্যান্ডেওয়েগ অভিযোগ করেন, কোর্টে শারাপোভার আচরণ ছিল অখেলোয়াড়োচিত। ‘‘ও আমার সার্ভিসের সময় বেআইনি ভাবে নড়াচড়া করছিল। আম্পায়ারকে বলায় মহিলা আমায় বললেন, এটা অবিশ্বাস্য মারিয়ার ক্ষেত্রে। তখন আমি বললাম, আপনার যদি ওকে বলতে ভয় লাগে, তা হলে বলুন আমিই কথা বলছি।’’ ম্যাচটায় শারাপোভার সুপরিচিত ঘোঁতঘোঁতানি নিয়েও নতুন করে তীব্র প্রশ্ন উঠেছে।

কোয়ার্টার ফাইনালে শারাপোভার শট মারার সময় মুখে আওয়াজের ডেসিবেল উঠেছিল ১০৯ পর্যন্ত! যেটা ইলেকট্রিক করাত চলার আওয়াজের তুলনায় সামান্য কম! সোশ্যাল সাইটে মাশা-সমালোচকদের কারও দাবি, ‘উইম্বলডনের ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ আওয়াজ!’ কেউ আবার সটান দাবি তুলছেন, ‘‘ডব্লিউটি‌এর উচিত শারাপোভার ম্যাচে আম্পায়ারের হাতে ‘গ্রান্ট মিটার’ দেওয়া। এবং একটা নির্দিষ্ট ডেসিবেল আওয়াজ ছাড়ালে ওর পেনাল্টি পয়েন্ট কেড়ে নেওয়া। মেয়েটা দর্শকদের খেলা দেখার আনন্দই মাটি করে দিচ্ছে!’’

শারাপোভা অতীতে এ রকম সময় নরম থেকেছেন। নীরবতার পথ নিয়েছেন। কিন্তু এ বার পাল্টা আক্রমণ করে বলেছেন, ‘‘ এ নিয়ে একটা কথাও বলব না। এটা কোনও নতুন ঘটনা নয়। কোনও নতুন প্রশ্নও নয়।’’ কিন্তু বিতর্কিত বিষয়টা তাঁর মহাপ্রতিদ্বন্দ্বীও হয়তো ছাড়তে চাননি। কেননা সেমিফাইনাল ম্যাচ নিয়ে সেরেনা একটা অদ্ভুত কথা বলেছেন। ‘‘মারিয়া আমার সেরা খেলাটা বার করে আনে।’’

 

আজ টিভিতে
(স্টার স্পোর্টস-টু)

উইম্বলডন সেমিফাইনাল শুরু বিকেল সাড়ে পাঁচটায়।
দ্বিতীয় ম্যাচ সেরেনা-শারাপোভার।