লিয়োনেল মেসি পরিষ্কার বলে দিলেন, তিনি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো বা জ্লাটন ইব্রাহিমোভিচের মতো নিজের কৃতিত্ব নিয়ে চিৎকার করেন না। ঘটনা হচ্ছে, বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলার হলেও আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি খুবই কম কথার মানুষ। তাঁর ব্যক্তিগত সাফল্য নিয়ে সচরাচর কেন, কখনওই প্রায় মুখ খোলেন না।

স্পেনের এক সংবাদমাধ্যমে মেসি বলেছেন, ‘‘আমি চাই দরকার হলে আমার কথা অন্যরা বলুন। ভাল করেই জানি আমি কী পারি। মাঠে কী কী করেছি তাও মাথায় থাকে। কিন্তু সব কিছুই আমি নিজের মধ্যে রাখি।’’ যোগ করেছেন, ‘‘আমি নিজেকে নিয়ে কথা বলতে ভালবাসি না। বরং ভাল লাগে দলগত সাফল্যের প্রসঙ্গ।’’

মেসির বয়স ৩২। বলা হচ্ছে, তাঁর ফুটবল জীবন এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে। হয়তো বয়স বাড়ার জন্য হালফিলে কয়েক বার চোট-আঘাত নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন। এই মরসুমে যেমন মাত্র পাঁচটি ম্যাচ খেলতে পেরেছেন। 

মেসি স্বীকার করেছেন, এখন তাঁকে অন্য রকম ভাবে পরিকল্পনা নিয়ে খেলতে হচ্ছে। নিজের শরীরের প্রতি তিনি আগের থেকে অনেক বেশি যত্নশীল হয়েছেন। কিংবদন্তি ফুটবলারের নিজের কথায়, ‘‘মানসিক ভাবে তো কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু নিজের বয়স পঁচিশ বছর ভেবে আগের মতো ফুটবলটা খেলা আর সম্ভব নয়। শারীরিক ক্ষমতা অনুযায়ী এখন সব কিছু করতে হয়। ফুটবলটাও খেলতে হচ্ছে আগের থেকে অনেক বেশি সাবধানতা নিয়ে। যে কোনও ম্যাচের জন্য প্রস্তুতির ধরনটাও তাই বদলে ফেলতে হয়েছে।’’

রোনাল্ডোর বিভিন্ন দেশের ক্লাবের লিগে খেলা প্রসঙ্গে মেসির কথা, ‘‘সব মানুষের চাহিদা বা লক্ষ্য এক হয় না। আমার কখনওই মনে হয় না, বিশ্বের সেরা ক্লাব বার্সেলোনা ছেড়ে অন্য কোথাও যাওয়ার কোনও দরকার আছে। তা ছাড়া বার্সেলোনার সব কিছু উপভোগ করি। ব্যক্তিগত জীবন থেকে ফুটবল— সব ক্ষেত্রে এখানে নিজেকে সহজ-স্বাভাবিক মনে হয়। যা কিছু করার এই ক্লাবেই করতে চাই। অন্য কোথাও যাওয়ার দরকার নেই।’’