টেস্ট ফরম্যাটে এই মুহূর্তে যেন মেঘের উপর দিয়ে হাঁটছেন বিরাট কোহালিরা। বিশাখাপত্তনমের প্রথম টেস্টে ২০৫ রানে টিম ইন্ডিয়া হারিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকাকে। রবিবার পুণেতে দ্বিতীয় টেস্ট শেষ হয়ে গেল চারদিনেই। প্রোটিয়াদের ইনিংস ও ১৩৭ রানে হারাল ভারত। ফলে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ২-০ জিতে নিল ভারত। সঙ্গে করে ফেলল বিশ্বরেকর্ড। কী সেই রেকর্ড? ঘরের মাঠে টানা ১১টি টেস্ট সিরিজ জিতল ভারত।

প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজের বল গড়ানোর আগে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে একই বন্ধনীতে ছিল ভারত। দুই দেশই ঘরের মাঠে টানা ১০টি টেস্ট সিরিজ জিতেছিল। রবিবার সিরিজ জেতার ফলে অস্ট্রেলিয়াকে পিছনে ফেলে এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া। সেই ২০১২-১৩ মরসুম থেকে ঘরের মাঠে পাঁচ দিনের ক্রিকেটে শুরু হয়েছিল ভারতের দৌরাত্ম্য।

আরও পড়ুন: ঋদ্ধি আমাদের দলের সম্পদ, বলছেন অশ্বিন​

এই সাত বছরে ঘরের মাঠে ভারত মাটি ধরিয়েছে শক্তিশালী প্রতিপক্ষদের। অস্ট্রেলিয়াকে ০-৪ উড়িয়ে দিয়ে ভারত এই জয়যাত্রা শুরু করেছিল মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ভারত। এক সময়ের প্রবল শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২০১৩-১৪ মরসুমে ০-২ হারায় ভারত। পাঁচ দিনের ফরম্যাটে ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে ব্যাট-বলের লড়াইটা অবশ্য পরিচিত ছিল সচিন তেন্ডুলকরের ফেয়ারওয়েল সিরিজ হিসেবেই। দুটো টেস্টই ইনিংসে জিতেছিল টিম ইন্ডিয়া।

এর মধ্যেই নেতৃত্বের পালাবদল ঘটে যায়। ধোনির হাত থেকে টেস্টের নেতৃত্ব চলে আসে কোহালির কাছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজ ছিল নেতা হিসেবে কোহালির প্রথম হোম সিরিজ। প্রোটিয়াদের ০-৩ মাটি ধরায় ভারত। রবিচন্দ্রন অশ্বিন সে বার সিরিজ সেরা হয়েছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকার পরে ভারত সফরে আসে নিউজিল্যান্ড। এক তরফা সেই ঘরোয়া সিরিজে কিউয়িদের ০-৩ হারায় ভারত। এর পরে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ইংল্যান্ডকে ০-৪ উড়িয়ে দেয় ভারত। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এক ম্যাচের সিরিজেও ভারতের প্রাধান্য অব্যাহত ছিল।

আরও পড়ুন: চারদিনেই শেষ পুণে টেস্ট, ইনিংস ও ১৩৭ রানে জিতল ভারত, পকেটে সিরিজও

২০১৬-১৭ মরসুমে স্টিভ স্মিথের অস্ট্রেলিয়াও থেমে যায় ভারতের কাছে। সেই সিরিজের ফলাফল ছিল ভারতের অনুকূলে ১-২। ২০১৭-১৮ মরসুমে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে ০-১ হারায় ভারত। আফগানিস্তানকে এক টেস্টের সিরিজে উড়িয়ে দেওয়ার পরে ক্যারিবিয়ানদের ০-২ হারায় ভারত। এ বার দক্ষিণ আফ্রিকাও ভারতের মাটিতে হার মানায় টানা ১১টি হোম টেস্ট জেতার বিশ্বরেকর্ড গড়ল ভারত।