Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

নির্বাচনী কাঁটায় ক্ষতবিক্ষত দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক

দেশের মাঠে কোথায় আরাম করে, নিশ্চিন্ত মনে ভারত-বধের ছক কষবেন দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক! তা না দল নির্বাচনের কাঁটায় ক্ষতবিক্ষত দেখাচ্ছে তাঁকে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কেপ টাউন ০৫ জানুয়ারি ২০১৮ ০৪:৩৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসি।

দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসি।

Popup Close

ডেল স্টেন নাকি মর্নি মর্কেল?

অলরাউন্ডার না স্পিনার?

এ বি ডিভিলিয়ার্স নাকি তেম্বা বাভুমা?

Advertisement

দেশের মাঠে কোথায় আরাম করে, নিশ্চিন্ত মনে ভারত-বধের ছক কষবেন দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক! তা না দল নির্বাচনের কাঁটায় ক্ষতবিক্ষত দেখাচ্ছে তাঁকে।

সবচেয়ে রক্তাক্ত দেখাচ্ছে দুই অভিজ্ঞ এবং মহাতারকা ক্রিকেটারের নির্বাচনের ব্যাপারে। এ বি ডিভিলিয়ার্স এবং ডেল স্টেন— দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বকালের অন্যতম সেরা দুই ক্রিকেটার। তাঁদের জায়গা করা নিয়েই দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসি। প্রথম টেস্ট শুরুর এক দিন আগেও তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারলেন না, দু’জনে খেলছেন-ই। উল্টে স্বীকার করে নিচ্ছেন, ‘‘ক্যাপ্টেন হিসেবে এটা আমার কঠিনতম প্রথম একাদশ নির্বাচন।’’ তার পরেই মজা করে যোগ করছেন, ‘‘তবে তিন পেসার আহত হয়ে বাইরে থাকার চেয়ে এই পরিস্থিতি অনেক ভাল।’’

স্টেন-কে নিয়ে সমস্যা হচ্ছে, চোদ্দো মাস তিনি ক্রিকেটের বাইরে। যতটা ম্যাচ খেলে এত বড় সিরিজে নামা উচিত ছিল, সেটা সম্ভব হয়নি। দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যানেজমেন্ট চেয়েছিল, তিনি জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে বক্সিং ডে টেস্টে খেলুন। কিন্তু সেই সময় চোট সেরে গেলেও স্টেন জ্বরে কাহিল হয়ে পড়েন বলে খেলতে পারেননি। তবু তিনি ডেল স্টেন। ভারতের বিরুদ্ধে দারুণ রেকর্ড। নিউল্যান্ডসে বরাবর সফল। অত সহজে কি উপেক্ষা করা যাবে?

স্টেন-কে কি নিশ্চিত ভাবেই কেপ টাউনে খেলবেন? সরাসরি প্রশ্নে কিছুটা ব্যাকফুটে গিয়েই ডুপ্লেসি এ দিন বললেন, ‘‘আমার কাছে স্টেন এখনও বিশ্বের সেরা বোলার। নেটে ওকে খেলতে গিয়ে আমার মনে হচ্ছে, ওর বোলিং স্কিল এতটুকু কমেনি। সেই একই গতি। একই রকম সুইং। স্কিলের দিক থেকে মনে হবে, আবার যেন সাইকেলে লাফিয়ে চড়ে চলতে শুরু করে দিয়েছে স্টেন।’’

দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক একবারের জন্যও সরাসরি বলতে পারলেন না, স্টেন নিশ্চিত। বলতে পারলেন না, তাঁর দলরে সবচেয়ে বড় তারকা বোলারের নাম টিমলিস্টে ইতিমধ্যেই লিখে ফেলা হয়েছে। উল্টে বলতে হল, ‘‘আমরা এখনও প্রথম একাদশ চূড়ান্ত করতে পারিনি। চার পেসার নিয়েও নামতে পারি। সমস্ত দিক খতিয়ে দেখছি আমরা।’’

দক্ষিণ আফ্রিকা শিবিরে কারও কারও মত, স্টেন-কে এখন না খেলিয়ে আরও ফিট করে নামানো উচিত। এখন খেলাতে গেলে যদি ফের চোট পেয়ে যান, তা হলে আর তাঁর পক্ষে এই সিরিজে খেলা সম্ভব হবে না। দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি হিসেবে শন পোলকের চেয়ে মাত্র চার উইকেট পিছিয়ে রয়েছেন স্টেন। তাঁর মধ্যে তাই ছটফটানি থাকা স্বাভাবিক। কিন্তু জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে সদ্য পাঁচ উইকেট নেওয়া, ফিট মর্কেল-কে বাইরে রাখতে হবে তাঁকে খেলানোর জন্য। সেটাই ডুপ্লেসিদের ভাবাচ্ছে।

ডিভিলিয়ার্সের জায়গা নিয়ে যে কোনও সংশয় থাকতে পারে, বিশ্বাস করাই কঠিন। বিশ্বের যে কোনও দলে চোখ বুজে তিনি ঢুকতে পারেন, এটাই প্রচলিত ধারণা। কিন্তু এখানেও সেই দক্ষিণ আফ্রিকার নির্বাচনী নীতি ডিভিলিয়ার্সের রাস্তাতেও কিছু বাধা তৈরি করে রেখেছে। একে তো দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট প্রশাসকেরা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে তৈরি করার উপর বেশি জোর দিচ্ছেন। ডিভিলিয়ার্স, ডুপ্লেসি, ডেল স্টেন, মর্নি মর্কেল ভার্নন ফিল্যান্ডার— সকলেই তিরিশ পেরিয়ে গিয়েছেন। সম্ভবত ২০১৯ বিশ্বকাপ তাঁদের সকলের জন্য বিদায়ী টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে। এই অবস্থায় তরুণ প্রজন্মকে তৈরি না করতে পারলে ভবিষ্যৎ আতঙ্কের হতে পারে বলে মনে করছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট প্রশাসকেরা। তাঁদের দল নির্বাচনে এমন নীতিও আছে যে, পাঁচ জনের বেশি শ্বেতাঙ্গ রাখা যাবে না। সেটাও মাথায় রাখতে হচ্ছে।

যদিও এ বি-কে নিয়ে অনেক বেশি আশাবাদী দেখাল ডুপ্লেসি-কে। দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক বললেন, ‘‘এ বি-কে দেখে তরতাজা আর ক্ষুধার্ত লাগছে। মানসিক ভাবে খুব চাঙ্গা লাগছে ওকে। নিজের সেরাটা দিতে ছটফট করছে। এ রকম মনোভাব যখন থাকে ওর মতো কোনও চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটারের, বুঝতে হবে অর্ধেক কাজ হয়ে গিয়েছে।’’ আবার এই ডুপ্লেসি-ই কয়েক মাস আগে মন্তব্য করেছিলেন, তিনি খুব অবাক হবেন ডিভিলিয়ার্স যদি টেস্টের মঞ্চে ফিরে আসেন। শোনা যায়, দু’জনের সম্পর্কও নাকি খুব সহজ, বন্ধুত্বপূর্ণ নয়। তবু বিশ্বাস করা খুবই কঠিন যে, ডিভিলিয়ার্স-কে ছাড়া কেপ টাউনে প্রথম টেস্ট খেলতে নামার দুঃসাহস দেখাবে দক্ষিণ আফ্রিকা। যদি সত্যিই ঘটে, কেপ টাউন টেস্ট শুরুর আগেই বিতর্কের আগুন ছড়িয়ে পড়বে। ফ্যাফ ডুপ্লেসি কি সেই আগুনে নিজের হাত পোড়াতে চাইবেন?



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement