Advertisement
২৮ জানুয়ারি ২০২৩

বিশ্বকাপে মিতালিদের চারে চার

ঝুলন গোস্বামী (২-২৬) এবং পুনম যাদবের (২-২৩) বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কা হার মানতে বাধ্য হয়। ঝুলন ফেরান ওপেনার হাসিনি পেরেরা ও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান শশীকলা সিরিবর্ধনেকে।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের পথে ভারতের মেয়েরা। ছবি: সংগৃহীত।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের পথে ভারতের মেয়েরা। ছবি: সংগৃহীত।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৬ জুলাই ২০১৭ ০৫:০২
Share: Save:

চারে চার করে বিশ্বকাপের শেষ চারের দিকে পা বাড়িয়ে রাখলেন ভারতের মেয়েরা। বৃহস্পতিবার ডার্বিতে দীপ্তি শর্মা ও মিতালি রাজ জুটির ব্যাটিং দাপটের পরে ঝুলন, পুনমদের বোলিংয়ের সামনে সে ভাবে লড়াই করতে পারল না শ্রীলঙ্কা। ভারতের ২৩২-৮-এর জবাবে শ্রীলঙ্কা ৫০ ওভারে ২১৬-৭-এ শেষ। হারল ১৬ রানে।

Advertisement

এই নিয়ে টানা চার ম্যাচে জিতল ভারত। আট দেশের এই বিশ্বকাপে ভারত ছাড়া শুধু অস্ট্রেলিয়াই টানা চার ম্যাচ জিতেছে। তবে নেট রান রেটে অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে পিছনে রয়েছেন মিতালি রাজরা। বুধবারের পরে ভারত দু’নম্বরে থাকলেও সেমিফাইনালের অনেক কাছেই পৌঁছে গিয়েছে। এ দিন টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মিতালি। ৩৮ রানের মধ্যে তাঁদের দুই ওপেনার পুনম রাউত ও স্মৃতি মানধানা ফিরে যাওয়ার পরে ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন মিতালি এবং দীপ্তি। ১১৮ রানের পার্টনারশিপ গড়েন এই দুই ব্যাটসম্যান। দীপ্তি দশটা চার মারেন ও মিতালি চারটে। দু’জনের স্ট্রাইক রেট যদিও কম। কিন্তু বিপক্ষের বোলারদের হতাশ করে তোলার পক্ষে যথেষ্ট।

আরও পড়ুন: কোচের দৌঁড়ে সব দিকেই এগিয়ে রবি

ঝুলন গোস্বামী (২-২৬) এবং পুনম যাদবের (২-২৩) বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কা হার মানতে বাধ্য হয়। ঝুলন ফেরান ওপেনার হাসিনি পেরেরা ও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান শশীকলা সিরিবর্ধনেকে। তবে নিজের দলের স্পিনারদের রান আটকানোর কৌশলের প্রশংসা করে মিতালি খেলা শেষে বলেন, ‘‘আমাদের স্পিনাররা খুব ভাল বল করেছে আজ। মাঝের ওভারগুলোতে ওদের ডটবল এত বেড়ে গিয়েছিল যে, শেষ দিকে চাপে পড়ে যায়। যার ফলে ওদের ব্যাটসম্যানরা পরে ঝুঁকি নিতে বাধ্য হয়। উইকেট তোলার সুযোগ পাই আমরা।’’ ব্যাটে ভাল ফর্ম দেখানোর পর অফস্পিনার দীপ্তি বল হাতে মাঝের ওভারগুলোতেও ভাল বল করেন। ৪৬ রানে এক উইকেট পান তিনি। আর পাকিস্তান ম্যাচের নায়ক, বাঁ-হাতি স্পিনার একতা বিস্ত ৪৮ রানে এক উইকেট নেন।

Advertisement

উচ্ছ্বাস: শ্রীলঙ্কার উইকেট নিয়ে ঝুলন গোস্বামী। ছবি: রয়টার্স

ম্যাচের সেরার পুরস্কার নিয়ে দীপ্তি বলেন, ‘‘ব্যাট করার সময় উইকেটটা বেশ স্লো ছিল। তাই মানিয়ে নেওয়ার জন্য বেশ কিছুটা সময় দরকার হয়ে পড়েছিল। স্ট্রেট ব্যাটের শটগুলো ঠিকঠাক টাইম করার চেষ্টা করছিলাম। নিয়মিত জিম করি। তাই জোরে শট নিতে অসুবিধা হয় না।’’ খুচরো রান নেওয়ার ব্যাপারে দীপ্তি বলেন, ‘‘মিতালি আর আমার মধ্যে বোঝাপড়াটা ভাল। আমরা ঠিক করে নিয়েছিলাম প্রথম রানটা খুব জোরে দৌড়ে নেব। তাই দ্বিতীয় রানগুলো সহজ হয়ে যাচ্ছিল।’’

ভারতের এর পর ম্যাচ বাকি দক্ষিণ আফ্রিকা (৮ জুলাই), অস্ট্রেলিয়া (১২ জুলাই) ও নিউজিল্যান্ডের (১৫ জুলাই) বিরুদ্ধে। তিনটে দলই লিগ টেবিলে প্রথম পাঁচের মধ্যে রয়েছে। ফলে মিতালিদের লড়াই এ বার কঠিন হতে পারে, বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে শেষ চারে কিন্তু ভারতকে দেখছেন সবাই।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.