Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

এ বার সিএবি-র সেরা ব্যাটসম্যান হচ্ছেন প্রকাশ

নিজস্ব সংবাদদাতা
পুরুলিয়া ২৫ জুলাই ২০১৫ ০১:০৫
লক্ষ্যে স্থির। পুরুলিয়ার ছেলে প্রকাশ সিংহ।—নিজস্ব চিত্র।

লক্ষ্যে স্থির। পুরুলিয়ার ছেলে প্রকাশ সিংহ।—নিজস্ব চিত্র।

ক্রীড়া ক্ষেত্রে পুরুলিয়ার মুকুটে যোগ হচ্ছে আরও একটি পালক। সিএবি-র পক্ষ থেকে চলতি বছরে সেরা ব্যাটসম্যানের সম্মান পাচ্ছেন পুরুলিয়ার তরুণ প্রকাশ সিংহ (বুলেট)।

মানভূম ক্রীড়া সংস্থা সূত্রে জানানো হয়েছে, আজ শনিবার কলকাতায় সিএবি-র বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রকাশের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। সংস্থার ত্রিকেট সচিব হিমাদ্রি বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘সিএবি পরিচালিত এস পি হাজরা ডিস্ট্রিক্ট ক্লাব কাপ চ্যাম্পিয়নশিপে সেরা ব্যাটসম্যানের সম্মানের পাচ্ছেন প্রকাশ।’’ তিনি জানান, এই প্রতিযোগিতায় প্রতিটি জেলার প্রতিনিধি হিসেবে একটি করে ক্লাব অংশ নেয়। সেই প্রতিযোগিতায় প্রকাশ চারটি ম্যাচে ১৮৫ রান করার পাশাপাশি ৪টি উইকেটও নিয়েছে। তবে তিনি এই সম্মান পাচ্ছেন তাঁর ব্যাটিং পারফরম্যান্সের জন্য।

সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, এই প্রতিযোগিতায় প্রকাশ ওরফে বুলেট চারটি ম্যাচের মধ্যে মেদিনীপুর (৭০ রান) ও বাঁকুড়ার বিরুদ্ধে (৬৫ রান) দু’টি হাফ সেঞ্চুরি সমেত ১৮৫ রান করেছে। এই প্রথম নয়, এর আগে ২০১০-’১১ তেও প্রকাশ সিএবি-র বর্ষসেরা ক্রিকেটারের সম্মানও পেয়েছেন।

Advertisement

পুরুলিয়া শহরের রামবাঁধ পাড়া এলাকার বাসিন্দা এই তরুণ প্রতিভা নিতান্তই নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তান। পাড়াতেই বাবার একটি চায়ের দোকান রয়েছে। কাকভোরে উঠে বাবার সঙ্গে দোকানও সামলাতে হয় তাঁকে।

প্রকাশের কথায়, ‘‘সকালের দিকটায় দোকানে ভিড় থাকে। তাই প্র্যাকটিশের চাপ না থাকলে বাবাকে দোকানে সাহায্য করি। কিছুক্ষণ দোকান সামলে চলে যাই সোজা হিলভিউ মাঠে। সেখানে প্র্যাকটিশের পরে স্নান সেরে স্কুল।’’ পুরুলিয়া এম এম হাইস্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র প্রকাশের ক্রিকেট-প্রেম সেই দশ-এগারো বছর বয়স থেকেই। অভাবের সংসারে রাজার খেলা ক্রিকেটের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলায় বাধা অবশ্যই টাকা। কিন্তু যে ছেলের মন পড়ে থাকে বাইশ গজে তাঁর আর অত ভাবার সময় কোথায়?

প্রকাশের কথায়, ‘‘আমাকে ছোটবেলায় মহম্মদ সোনু নামে একজন প্রথম হাতেখড়ি দিয়েছিলেন। আমরা তাঁকে সোনুস্যার বলতাম। তারপরে অনেকের কাছেই শিখেছি। সবার কাছেই কৃতজ্ঞ।’’ তাঁর প্রিয় খেলোয়াড় সচিন। প্রকাশের কথায়, ‘‘অমন একজন খেলোয়াড়ের অনুকরণ করা তো সম্ভব নয়। মুগ্ধ হয়ে খেলা দেখতে হয়। সৌরভকেও ভাল লাগে। তিনি বাংলার ক্রিকেটকে একটা অন্য জায়গায় পৌঁছে দিয়েছেন।’’ প্রকাশের প্রিয় শট কভার ড্রাইভ। তাঁর লক্ষ্য, ‘‘বাংলা দলে সুযোগ পাওয়া।’’

‘‘পিঙ্কি প্রামাণিক থেকে সোমা কর্মকারের জেলা পুরুলিয়া যে ক্রীড়াক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই তা বারবার প্রমাণিত হচ্ছে’’— বলছিলেন রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যাপীঠের শারীর শিক্ষা বিভাগের শিক্ষক তথা বাংলা মহিলা ফুটবল দলের প্রশিক্ষক অশোক ঘোষাল। তাঁর কথায়, ‘‘পুরুলিয়াতেও প্রতিভা রয়েছে। শুধু প্রয়োজন সুযোগের।’’

জেলার আর এক প্রাক্তন অ্যাথলিট গৌতম চট্টোপাধ্যায়ের কথায়, ‘‘এই যে সোমা বা পিঙ্কি পুরুলিয়া থেকেই আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় সাফল্য এনেছে, তা তো সত্যি। দৌড়ে শশধর মাহাতো, জ্যোৎস্না মাজি, নির্মল মাহাতো, ডিসকাসে অরবিন্দ সিংহ, জ্যাভলিনে সাদিনুর খাতুন এমন কত সফল ক্রীড়াবিদের নাম ছড়িয়ে রয়েছে, যাঁরা নিকট অতীতে রাজ্য স্তরের প্রতিযোগিতায় সাফল্য পেয়ে জেলার মুখ উজ্জ্বল করেছেন।’’

জেলার মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতোর আশ্বাস, ‘‘তরুণ প্রতিভাদের অনুশীলনের সুযোগের জন্য আমরা পুরুলিয়ায় স্পোর্টস হস্টেল চালু করছি।’’

আরও পড়ুন

Advertisement