Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৯ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

লড়াই এক ব্যাটসম্যান ও এক পেসারের জায়গা নিয়ে

বিশ্বকাপের দৌড়ে শেষ মুহূর্তে চমক হয়তো পৃথ্বী

ছয় ব্যাটসম্যানের মধ্যে পাঁচ জনের নাম চূড়ান্ত। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে কার নাম লেখা হবে, তা নিয়েই সব চেয়ে বেশি আগ্রহ তৈরি হয়েছে।

সুমিত ঘোষ 
কলকাতা ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ০৪:৪৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
বিশ্বকাপের খেলার দাবিদার হিসেবে শোনা গেল নতুন এক নাম— পৃথ্বী শ।

বিশ্বকাপের খেলার দাবিদার হিসেবে শোনা গেল নতুন এক নাম— পৃথ্বী শ।

Popup Close

নিউজ়িল্যান্ডে ৪-১ সিরিজ জিতে ‘উরি’ দেখতে গেল ভারতীয় দল। তাঁদের জন্য বিশেষ স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছিল ওয়েলিংটনে। একই সঙ্গে আগামী জুনের বিশ্বকাপে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’-এর প্রস্তুতিও শুরু করে দেওয়া হল।

ডন ব্র্যাডম্যান এবং রিচার্ড হ্যাডলির দেশে বিজয়ধ্বজা উড়িয়ে দিয়ে নতুন ইতিহাস লেখার পরে এখন প্রধান লক্ষ্য বিশ্বকাপের পনেরো জনের দল চূড়ান্ত করা। নিউজ়িল্যান্ডে ওয়ান ডে সিরিজ উত্তর যা দাঁড়াচ্ছে, এক জন ব্যাটসম্যান এবং এক জন পেস বোলারের জায়গা নিয়েই লড়াই তীব্র হতে চলেছে। চার নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে অম্বাতি রায়ডুর যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল। রবিবার ম্যাচের সেরা হয়ে তিনি সেই কালো মেঘ কাটাতে পেরেছেন বলে ভারতীয় দলের মস্তিষ্করা মনে করছেন।

বিশ্বকাপে দল নির্বাচনী নকশা মোটামুটি তৈরি করে ফেলা হয়েছে। ছয় ব্যাটসম্যান, দুই উইকেটকিপার, এক অলরাউন্ডার, চার পেসার এবং দুই স্পিনার— এই হবে পনেরো জন বাছার ফর্মুলা। বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া ইঙ্গিত অনুযায়ী, যে ১৩ জনের আসন কার্যত পাকা বলে জানা গিয়েছে, সেই নামগুলি এ রকম: রোহিত শর্মা, শিখর ধওয়ন, বিরাট কোহালি, অম্বাতি রায়ডু, কেদার যাদব, মহেন্দ্র সিংহ ধোনি, ঋষভ পন্থ, হার্দিক পাণ্ড্য, যশপ্রীত বুমরা, ভুবনেশ্বর কুমার, মহম্মদ শামি, কুলদীপ যাদব এবং যুজবেন্দ্র চহাল।

Advertisement



নকশা: বিশ্বকাপের প্রথম একাদশ প্রায় গুছিয়ে ফেলেছেন গুরু শাস্ত্রী এবং অধিনায়ক কোহািল। ফাইল চিত্র

দেখা যাচ্ছে, ছয় ব্যাটসম্যানের মধ্যে পাঁচ জনের নাম চূড়ান্ত। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে কার নাম লেখা হবে, তা নিয়েই সব চেয়ে বেশি আগ্রহ তৈরি হয়েছে। এ দিন নতুন এক নাম শোনা গেল দাবিদার হিসেবে— পৃথ্বী শ। টেস্ট ক্রিকেটে ইতিমধ্যেই সাড়া জাগিয়ে যাঁর আবির্ভাব ঘটেছে। অনেকে তাঁকে সচিন তেন্ডুলকরের পরে নতুন বিস্ময় প্রতিভা হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। কিন্তু এত দিন এক দিনের ক্রিকেটের দৌড়ে ছিলেন না। যদিও কারও ভুলে যাওয়ার কথা নয়, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দলের অধিনায়ক ছিলেন পৃথ্বীই।

বিশ্বস্ত সূত্রের খবর, দেরিতে হলেও তিনি বিশ্বকাপের দৌড়ে ঢুকে পড়েছেন। আর তার কারণ কে এল রাহুলের ফর্ম নিয়ে সংশয় তৈরি হওয়া। টেস্টে ধারাবাহিক ভাবে ব্যর্থ হয়েছেন রাহুল, এমনকি ইংল্যান্ড লায়ন্সের বিরুদ্ধেও রান পাননি। ফেব্রুয়ারি-মার্চে দেশের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে পাঁচটি এক দিনের ম্যাচ খেলবে ভারতীয় দল। সেখানে রোহিত শর্মা এবং শিখর ধওয়নকে সব ম্যাচ না খেলিয়ে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে। তখন তাঁদের কারও জায়গায় পৃথ্বীকে দেখে নেওয়া হতে পারে, যদি তিনি সম্পূর্ণ ফিট হয়ে যান।

অস্ট্রেলিয়ায় প্রস্তুতি ম্যাচে গোড়ালিতে চোট পেয়ে সিরিজ থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন তিনি। এখনও মাঠে ফিরতে পারেননি। পৃথ্বী নিজে কয়েক দিন আগে বলেছিলেন, আইপিএলের আগে পুরো ফিট হয়ে যাবেন। তবে মন দিয়ে রিহ্যাব করলে দ্রুত সেরে উঠতে পারেন বলেও আশা রয়েছে। একান্তই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ওয়ান ডে-র সময়ে ফিট না হতে পারলে আইপিএলেই তাঁকে দেখে সিদ্ধান্ত নিতে হবে নির্বাচকদের।

রিজভি স্প্রিংফিল্ডের হয়ে ৫৪৬ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে সচিনের মতোই মুম্বইয়ের স্কুল ক্রিকেট থেকে উত্থান পৃথ্বীর। আন্তর্জাতিক ওয়ান ডে না খেললেও ঘরোয়া এক দিনের ক্রিকেটে বেশ ভালই রেকর্ড। ২৫ ম্যাচে করেছেন ১০১৪ রান। গড় ৪০.৫৬। স্ট্রাইক রেটও খারাপ নয়— ১১৬.৪১। সেঞ্চুরি তিনটি, হাফ সেঞ্চুরি ছ’টি। সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, পৃথ্বীর ব্যাটিং উৎকর্ষ নিয়ে উচ্ছ্বসিত দল পরিচালন সমিতি। হেড কোচ রবি শাস্ত্রী বলে দিয়েছেন, তিনি একই সঙ্গে সচিন, সহবাগ ও লারার ছায়া দেখতে পেয়েছেন পৃথ্বীর মধ্যে।



বিশ্বকাপ হবে ইংল্যান্ডে। জুন মাসে গরম চলবে, পরিবেশ বা পিচ হয়তো পেসারদের দারুণ বন্ধু হয়ে দেখা দেবে না। তবু ইংল্যান্ডের স্বাভাবিক প্রচলন অনুযায়ী, বল শুরুর দিকে নড়াচড়া করতেই পারে। দল পরিচালন সমিতি এবং নির্বাচকদের তাই মনে হচ্ছে, বাড়তি ব্যাটসম্যান হিসেবে এমন এক জনকে নিয়ে যাওয়া উচিত, যিনি প্রয়োজনে তৃতীয় ওপেনারের কাজ করতে পারবেন। বিশ্বকাপ দীর্ঘ প্রতিযোগিতা। সেমিফাইনালের আগেই খেলতে হবে ৯টি ম্যাচ। এ বারের ফর্ম্যাট অনুযায়ী, দশটি দেশের প্রত্যেকে প্রত্যেকের সঙ্গে খেলবে। তার পরে সেমিফাইনাল, ফাইনাল।

লম্বা প্রতিযোগিতায় নিয়মিত ওপেনারদের কেউ চোট পেলেও তো বিকল্প লাগতে পারে। সেই কারণে মনে করা হচ্ছে, তৃতীয় ওপেনার জরুরি। বিশেষ করে ইংল্যান্ডের মতো জায়গায়, যেখানে যতই গরম থাকুক অন্তত শুরুর দিকে নতুন বল সুইং করবেই। এত দিন রাহুলকে ধরা হচ্ছিল তৃতীয় ওপেনার। কিন্তু বিশ্বকাপ যত এগিয়ে আসছে, ততই যেন রাহুল পিছিয়ে পড়ছেন। যেমন পিছিয়ে পড়া লাগছে রবীন্দ্র জাডেজাকেও। বিশ্বকাপের উড়ানে ওঠার আশা ক্রমশ ফিকে হতে শুরু করেছে বাঁ হাতি অলরাউন্ডারের।

পৃথ্বী ছাড়া ষষ্ঠ ব্যাটসম্যানের দৌড়ে থাকছেন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে তাঁর সতীর্থ এবং নিউজ়িল্যান্ডে অভিষেক ঘটানো শুভমন গিল ও দীনেশ কার্তিক। কলকাতা নাইট রাইডার্সের ক্রিকেটার শুভমনের স্ট্রোক নেওয়ার দক্ষতা দেখে সকলে উচ্ছ্বসিত। কিন্তু ম্যাচে রান করে দেখাতে হবে তাঁকে। আর শুভমনের আইপিএল অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক ফিনিশার হিসেবে সাম্প্রতিককালে দারুণ সফল। ইংল্যান্ডে ভাল রেকর্ড তাঁর। কিন্তু শোনা যাচ্ছে, দ্বিতীয় উইকেটকিপার হিসেবে ঋষভ পন্থের স্থান প্রায় নিশ্চিত। তাঁকে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে এক দিনের সিরিজে খেলানো হবে। যার অর্থ, জায়গা পেতে গেলে কার্তিককে লড়াই করতে হবে রাহুল, পৃথ্বী, শুভমনের সঙ্গে। এই চার জনের মধ্যে থেকে হয়তো এক জনই উঠবেন বিশ্বকাপের উড়ানে।

তেমনই দলের তিন জন পেসার চূড়ান্ত। যশপ্রীত বুমরা, ভুবনেশ্বর কুমার এবং মহম্মদ শামি। চতুর্থ পেসার কে হবেন, তা নিয়েই দড়ি টানাটানি। কিছুটা হলেও এগিয়ে বাঁ হাতি খলিল আহমেদ। জয়পুর থেকে ৬০ মাইল অভ্যন্তরে টঙ্ক বলে একটি জায়গা থেকে যাঁর আগমন। বাবা কম্পাউন্ডার। কিন্তু ওষুধ বা ইঞ্জেকশন নয়, খলিলের মন টানল ক্রিকেট বল। তাঁকে লড়াইয়ে রাখতে পারেন মহম্মদ সিরাজ। হায়দরাবাদের অটোচালকের পুত্র। আইপিএল নিলামে ২০ লক্ষের বেস প্রাইস থেকে যাঁকে ২.৬ কোটি টাকায় কিনে চমকে দিয়েছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

যিনিই বিশ্বকাপের টিকিট জিতুন, গলি থেকে রাজপথের নতুন কাহিনি পেতে চলেছে ভারতীয় ক্রিকেট!

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement