×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১২ জুন ২০২১ ই-পেপার

খেলা

বিশ্বকাপ জ্বরে কাঁপছে ফুটবলনগরী

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৩ জুন ২০১৮ ১৮:১৫
বিশ্বকাপ এলেই জেগে ওঠে ময়দান মার্কেট। দোকান উপচে পড়ে ফুটবলপ্রেমীদের ভিড়ে। জার্সি, পতাকা, টুপি কেনার হিড়িক পড়ে যায়। এ বারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। দেদার বিকোচ্ছে আর্জেন্তিনার নীল-সাদা জার্সি। পাল্লা দিচ্ছে অন্য দেশের জার্সিও। তবে মেসির দশ নম্বরেরই চাহিদা বেশি। কিন্তু, আর্জেন্তিনা অধিনায়ক কি কাপ হাতে পোজ দিতে পারবেন এক মাস পর?

গিরীশ পার্কের পাশেই ডোমপাড়া। সেখানে বসছে বিশ্বকাপ। না, আসল নয়। কাপের আদলে গড়া মূর্তি বাড়াচ্ছে কাপ-যুদ্ধের উন্মাদনা। গতবার বিশ্বকাপ জিতেছিল জার্মানি। ব্রাজিলের রিও-তে ফাইনালে আর্জেন্তিনাকে হারিয়েছিল ফিলিপ লামের দল। এ বার কার হাতে উঠবে কাপ, প্রহর গুনতে শুরু করেছেন ফুটবলপ্রেমিরা।
Advertisement
শুধু তো জার্সিতেই নয়, ফুটবল বিশ্বকাপের গতি অবাধ। ফুটবল খেলাটাই যে সবার। তাই ঘুড়িতেও ধরা পড়ছে বিশ্বকাপের উন্মাদনা। সন্তোষ মিত্র স্কোয়ারের ঘুড়ির দোকানে তারই প্রতিফলন। কোনওটায় ব্রাজিলের পতাকা, কোনওটায় ইংল্যান্ডের। রয়েছে নানা রঙের লাটাই, সুতোও।দেখার হল, কোন দেশের ঘুড়ি শেষ পর্যন্ত ভেসে থাকে।

চলন্ত গাড়িতেও চিরন্তন ব্রাজিলপ্রেম। ভবানীপুরে গাড়ির চালকের পাশে বসা সঙ্গীর বাঁ হাতে ব্রাজিলের পতাকা। সবুজ-হলুদের মধ্যে নীল রঙের গোলক। কিন্তু ব্রাজিল কি পারবে রাশিয়ায় বাজিমাত করতে? চার বছর আগে নিজের দেশে সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে সাত গোল খেয়েছিল সেলেকাওরা। সেলেকাওরা কি তার বদলা নিতে পারবে, হাসি ফোটাতে পারবে সমর্থকদের মুখে?
Advertisement
রাজভবনের সামনে শিল্পীর তুলিতে জীবন্ত বিশ্বকাপের নায়করা। আন্দ্রে ইনিয়েস্তা, লুই সুয়ারেজ, ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, নেমার, মেসিরা সবাই উঠে এসেছেন ক্যানভাসে। ইনিয়েস্তার তো বটেই, মেসি, রোনাল্ডো, সুয়ারেজেরও সম্ভবত এটাই শেষ বিশ্বকাপ। এর মধ্যে একমাত্র ইনিয়েস্তারই বিশ্বজয়ের অভিজ্ঞতা রয়েছে। নেমারের বয়স কম, ফের সুযোগ পাবেন তিনি।

আলিপুরের গোপালনগরে দেওয়ালে আগেই শুরু হয়ে গিয়েছে বিশ্বকাপ। বল পায়ে দৌড়চ্ছেন মেসি-নেমাররা। মুগ্ধ বিস্ময়ে তাকিয়ে রিকশাচালক। এই এক মাস পুরো বিশ্বও অপলক তাকিয়ে থাকবে মেসির জাদুর দিকে, নেমারের সাম্বা-ঝলকের দিকে। দু’জনেই চাপে। নেমার চোট সারিয়ে উঠছেন। আর মেসিকে ঘিরে প্রত্যাশার পারদ চড়ছে।

কলকাতার রং এখন নীল-সাদা। দরজায় বিশ্বকাপ কড়া নাড়ছে বলে তা আরও ধরা পড়ছে। আলিপুরের এই বাড়ি তারই উদাহরণ। নীল-সাদা দেওয়াল। জানলায় উঁকি মারছেন ফুটবলপ্রেমীরা। মুশকিল হল, আর্জেন্তিনা এবারও বড্ড বেশি মেসি-নির্ভর। মেসির হ্যাটট্রিকই রাশিয়ার টিকিট এনে দিয়েছিল। না হলে ছিটকে যাওয়াই দেখাচ্ছিল ভবিতব্য।

ওপরে আর্জেন্তিনার ফুটবলারদের নানা ছবি। নানা ভঙ্গিতে বল পায়ে মেসি। রয়েছেন, অন্যান্যরাও। তার নিচে ৩২ দেশের লোগো। আর মাঝখানে আর্জেন্তিনার পতাকা। চলছে শেষ মুহূর্তের কাজ। রাত জাগার প্রস্তুতিও প্রায় শেষ। এবার শুধু ঢাকে কাঠি পড়ার অপেক্ষা। কাউন্টডাউন আর কয়েক ঘন্টার। গোটা বিশ্ব মেতে উঠবে বল-পায়ে ।