জলদাপাড়ায় বেড়াতে এসে জিপসি গাড়িতে কন্টেনারের ধাক্কায় আহত হলেন বনগাঁ থেকে আসা ১২ জন পর্যটক। তাঁদের মধ‍্যে চারজনের অবস্থা আশাঙ্কাজনক। তাঁদের প্রথমে মাদারিহাট হাসপাতাল ও পরে বীরপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁদের শিলিগুড়িতে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালে রেফার ক‍রা হয়েছে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে এ দিন ঘটনাস্থলে যান মাদারিহাট থানার ওসি অনির্বাণ মজুমদার। দুর্ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শিক্ষামূলক ভ্রমণের জন্য জলদাপাড়া এসেছিলেন বনগাঁর একটি বেসরকারি বিএড কলেজের পড়ুয়া ও শিক্ষক মিলিয়ে ৮৬ জন। এ দিন সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ জলদাপাড়ার জঙ্গলে সাফারি করে ফিরে আসার সময় তাঁরা রাস্তার ধারে বিশ্রাম নেবার জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন। সে সময় পিছন দিক থেকে আসা একটি কন্টেনার খুব জোরে ধাক্কা মারে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা তাঁদের জিপসি গাড়িতে। সে সময় জিপসিতে ছ’জন ছাত্রী ও একজন গাইড বসে ছিলেন। রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে ছিলেন আরও চার ছাত্রী। গাড়িতে ধাক্কা মেরেই কন্টেনারটি পালিয়ে যায়। বাসিন্দারা আহতদের উদ্ধার করেন।

বাসিন্দাদের ক্ষোভ, এশিয়ান হাইওয়ে নতুন করে সম্পসারণ হওয়ার পরে গাড়ির গতি বেড়েছে অনেকটাই। এই পথে মাঝে মধ্যেই দুর্ঘটনা লেগেই আছে। পুলিশ প্রশাসনের তেমন নজর চোখে পড়ে না বলেও দাবি তাঁদের। তাঁরা জানান, ডুয়ার্সের অন্যতম পর্যটনকেন্দ্র জলদাপাড়ায় অভয়ারণ্যে সারা বছর পর্যটকদের ভিড় লেগেই থাকে। সেই গুরুত্ব বুঝেও যান নিয়ন্ত্রণে কোনও পদক্ষেপ নেই বলে ক্ষোভ তাঁদের। মাঝে মধ্যে কিছু সিভিক ভলান্টিয়ার মোতায়েন করে দায় সারা হয় বলে অভিযোগ। এক পর্যটক বলেন, ‘‘পর্যটকদের জন্য এই এলাকার গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার ধারে পুলিশের তরফে ট্রাফিক ব্যবস্থা আরও উন্নত করা প্রয়োজন।’’