বান্ধবীর নগ্ন ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার দায়ে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া এক যুবকের ৫ বছর কারাদণ্ড এবং সাড়ে ৯ হাজার টাকা জরিমানার নির্দেশ দিলেন বিচারক।

বুধবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (তৃতীয়) গৌতমকুমার নাগ পাঁশকুড়ার রাধাবল্লভচক গ্রামের বাসিন্দা অনিমেষ বক্সী নামে ওই ছাত্রকে দোষী সাব্যস্ত করে এই সাজা দেন। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিচারক শাস্তি ঘোষণার পরে অনিমেষের জামিনের আবেদনের ভিত্তিতে তাঁকে শর্তাধীন ৬০ দিনের জন্য জামিন মঞ্জুর করেন।

অনিমেষ বক্সী একটি বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। এলাকারই বাসিন্দা পাঁশকুড়া কলেজের এক ছাত্রীর সঙ্গে তার সম্পর্ক তৈরি হয়। অনিমেষ তাঁর একাধিক নগ্ন ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেয়। গত ২১ জুলাই ওই ছাত্রীর বাবা এই মর্মে পাঁশকুড়া থানায় অনিমেষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ। পরে ইন্সপে়ক্টর অতনু সাঁতরার নেতৃত্বে সিআইডি তদন্তে নামে। তমলুক আদালতে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেয় সিআইডি। শুরু হয় বিচারপ্রক্রিয়া। বুধবার ওই মামলায় অভিযুক্ত অনিমেষ বক্সীকে ভারতীয় দণ্ডবিধি ও তথ্য প্রযুক্তি আইনের একাধিক ধারায় দোষী সাব্যস্ত করেন বিচারক।

এ দিন আদালতে মামলার রায় ঘোষণার আগে বিচারক অভিযুক্তর বক্তব্য জানতে চান। অনিমেষ বলে, ‘‘আমি নির্দোষ। পড়াশোনা শেষ করতে চাই।’’

সরকারি আইনজীবী বিভাস চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘সাইবার ক্রাইম মামলায় আজকের রায় দৃষ্টান্তমূলক। এ রাজ্যে প্রথম সাইবার ক্রাইম মামলায় রায় ঘোষণা হল।’’