অবশেষে ঘেরাও মুক্ত হলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। রাজ্যপাল তথা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীপ ধনখড়ের গাড়িতে দীর্ঘ ক্ষণ আটক থাকতে হয় তাঁকে। পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সওয়া আটটা নাগাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস থেকে ওই গাড়িতেই ঘুরপথে বেরতে সক্ষম হন রাজ্যপাল এবং মন্ত্রী। সেখান থেকে বেরিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে নিয়ে রাজভবনে যান জগদীপ ধনখড়। 

এ দিন দুপুরে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে এবিভিপি। সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসেন বাবুল সুপ্রিয়। দুপুর সওয়া দুটো নাগাদ ক্যাম্পাসে ঢুকতে গেলে তাঁকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ শুরু করেন ছাত্রছাত্রীদের একাংশ। অভিযোগ ওঠে বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে। বাবুলকে ঘিরে ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়। ক্যাম্পাসে তুমুল বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে। বাবুলকে চরম হেনস্থা করা হয়। অবশেষে বাবুল সুপ্রিয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে পুলিশ ডাকার আর্জি জানান। কিন্তু উপাচার্য তাতে রাজি হননি। তিনি গাড়িতে করে ক্যাম্পাস ছাড়েন। তবে তিনি ক্যাম্পাস থেকে বেরনোর সময় তাঁর গাড়ি ঘিরেও তুমুল বিক্ষোভ দেখান পড়ুয়ারা। 

এর পর সন্ধ্যায় রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ঘনটায় তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে বিবৃতি দেন রাজভবন থেকে। মুখ্যসচিব মলদ দে-কে ফোন করেন তিনি। তার পর নিজেই সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ পৌঁছন যাদবপুর ক্যাম্পাসে। বিক্ষোভের জেরে প্রায় ১৫ মিনিট তিনি গাড়ি থেকে নামতেই পারেননি। পরে বাবুল সুপ্রিয়কে নিয়ে নিজের গাড়িতে ওঠেন। কিন্তু তাঁর গাড়ির সামনের রাস্তায় বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন পড়ুয়ারা। 


e university to bring things to normal @MamataOfficial didi needs to intervene, this is a place where students study not a war zone. pic.twitter.com/6oSm3fs8WW

 

অন্য দিকে, এবিভিপির বিরুদ্ধেও তাণ্ডব চালানোর অভিযোগ উঠেছে। ক্যাম্পাসের চার নম্বর গেটের পাশে ছাত্র সংসদ কার্যালয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। ক্যাম্পাসের সামনের রাস্তা পুরোপুরি দখলে নিয়ে নেন এবিভিপি সমর্থকরা। বন্ধ হয়ে যায় রাজা সুবোধচন্দ্র মল্লিক রোডের ক্যাম্পাস সংলগ্ন এলাকা। ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। তার মধ্যেই বাইরে আগুন জ্বালিয়ে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ শুরু করেন এবিভিপি সমর্থকরা। খবর পেয়ে দমকল কর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে তাঁদেরও বাধা দেওয়া হয়।  

লাইভ আপডেট

• বিশ্ববিদ্যালয়ের সব গেট বন্ধ করে দিল পুলিশ 

• বাইরে এবিভিপির সমর্থকরাও রয়েছেন 

• প্রচুর পুলিশ মোতায়েন ক্যাম্পাসে, বাইরে রয়েছে র‌্যাফের বিশাল বাহিনী  

• তবে এখনও উত্তপ্ত ক্যাম্পাস, ভিতরে চলছে ছাত্রদের অবস্থান-বিক্ষোভ 

• আচমকাই ঘুরিয়ে ৩ নম্বর গেট দিয়ে গাড়ি বের করে দেয় পুলিশ 

• রাজ্যপালের গাড়ি বেরনোর কথা ছিল ৪ নম্বর গেট দিয়ে 

• রাত ৮টা ১৫: বাবুল সুপ্রিয়কে উদ্ধার করে নিজের গাড়িতে  করে নিয়ে বেরলেন রাজ্যপাল 

• বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ নম্বর গেটের সামনে বিক্ষোভ

• গাড়িতে বসেই মোবাইল হাতে বারবার ফোন করতে দেখা যায় রাজ্যপাল এবং বাবুলকে 

• কিন্তু দমকলকে আগুন নেভাতে বাধা দেন এবিভিপি সমর্থকরা

• এবিভিপি সমর্থকদের জ্বালানো আগুন নেভাতে পৌঁছে যায় দমকল

• ভিতরে জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে এবিভিপি 

• বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ এবং ৪ নম্বর গেটের সামনের রাজা সুবোধ চন্দ্র মল্লিক রোডের দখল নিয়ে নেয় এবিভিপি সমর্থকরা 

• এবিভিপি সমর্থকদের সঙ্গে গেটের মুখে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষ, ধস্তাধস্তি 

• ক্যাম্পাসে ঢুকতে গেলে বাধা দেয় পুলিশ

• হাতে লাঠিসোটা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে জমায়েত শুরু করেন এবিভিপি সমর্থকরা

• তখন সুদীপ সরকার বলেন, ‘‘রাজ্যপালের বয়সের কথা মাথায় রেখে আপনারা দ্রুত সিদ্ধান্ত নিন’’

• পড়ুয়ারা নিজেদের মধ্যে আলোচনার জন্য সময় চেয়ে নেন

• প্রস্তাব দেন, রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপালকে অভিযোগ জানানোর

• পুলিশের ডিসি এসএসডি সুদীপ সরকার ছাত্রদের অবস্থান তুলে নিতে অনুরোধ করেন

 • বাবুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ উগরে দেন পড়ুয়ারা, পুলিশের কাছেও বাবুলকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানান পড়ুয়ারা

• ৭.৪০: পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারী ছাত্রছাত্রীদের কথোপকথন

• রাজ্যপাল ও বাবুল সুপ্রিয় একই গাড়িতে রয়েছেন, ওই গাড়ির পথ আটকে অবস্থান বিক্ষোভ করছেন পড়ুয়ারা

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ