‘ভারতীদি খাটছেন’, শুভেচ্ছা দেবের 
রাজনৈতিক মহলের ধারণা, এমন সৌজন্যবার্তায় নিজের জয়ের পথই মসৃণ করতে চাইছেন দেব। প্রতিপক্ষকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বিরোধী শিবিরের ভোটও নিজের জন্য নিশ্চিত করতে চাইছেন।
DEV

মনোনয়নপত্র জমা দিতে যাচ্ছেন ঘাটালের তৃণমূল প্রার্থী দেব। শনিবার। ছবি: সৌমেশ্বর মণ্ডল

প্রচারের প্রথম দিন থেকেই তাঁর কথায় ধরা পড়ছে সৌজন্য। মনোনয়ন পেশের দিনটাতেও ব্যতিক্রম হল না। প্রতিপক্ষকে শুভেচ্ছা জানাতে ভুললেন না তৃণমূলের তারকা প্রার্থী।

শনিবার মেদিনীপুরে অতিরিক্ত জেলাশাসকের দফতরে মনোনয়ন জমা দিতে এসেছিলেন ঘাটালের তৃণমূল প্রার্থী দেব। সেখানেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তাঁর বিরুদ্ধ বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ প্রসঙ্গে দেব বলেন, ‘‘ওঁকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আমি বলতে পারব না, ভারতীদি খাটছেন না। উনিও খাটছেন, নিজের করে প্রচার করছেন। আমিও নিজের মতো করে প্রচার করছি। দিদিও (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) নিজের মতো করে প্রচার করছেন। মোদীজিও নিজের মতো করে প্রচার করছেন। মানুষ কার প্রতি বেশি আস্থা, বেশি ভালবাসা দেখায়, সেটা ২৩ মে দেখা যাবে।’’ 

রাজনৈতিক মহলের ধারণা, এমন সৌজন্যবার্তায় নিজের জয়ের পথই মসৃণ করতে চাইছেন দেব। প্রতিপক্ষকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বিরোধী শিবিরের ভোটও নিজের জন্য নিশ্চিত করতে চাইছেন। দেব ঘাটালের বিদায়ী সাংসদ। গত পাঁচ বছরে তিনি যে অনেক কিছু শিখেছেন, তা নিজেই বারবার স্বীকার করেছেন অভিনেতা-রাজনীতিক। দেব যে রাজনৈতিক ভাবে অনেক পরিণত হয়েছেন, এ বার ভোট প্রচারের গোড়া থেকেই তার আভাস মিলছে। এ দিনও দেব বলেছেন, ‘‘মানুষের রাজনীতির প্রতি ভালবাসা এমনিতেই উঠে গিয়েছে। সেখানে আরও বিষ ছড়িয়ে কী লাভ?’’ 

ভোট-প্রচারের মধ্যেই ভারতীকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে সিআইডি। ভোটের সময় ভারতী যেখানে ঘাঁটি গেড়েছেন, সেই দাসপুরেই পৌঁছে গিয়েছেন সিআইডি আধিকারিকেরা। এ ক্ষেত্রে চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছেন ভারতী। এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে দেবের মন্তব্য, ‘‘উনি জেলার পুলিশ সুপার ছিলেন। আমার চেয়ে আইনটা উনি বেশি বোঝেন। তবে উনি (তদন্তে) সহযোগিতা করলে নিশ্চয়ই ভাল হবে। দেড় বছর বাইরে ছিলেন। তখন যদি এখানে থাকতেন তা হলে এই দিনটা আজ হত না।’’

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

সিআইডির জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হওয়ার পরে শুক্রবার রাতেই মিছিল করেন ভারতী। শনিবার সকালেও ঘাটাল শহরে হেঁটে প্রচার সেরেছেন তিনি। প্রচারের ফাঁকে ভারতী বলেন, ‘‘সিআইডি দিয়ে আমাকে দমানো যাবে না, প্রচারও আটকানো যাবে না।” দেবকে অবশ্য এ দিনও বলতে শোনা গিয়েছে, ‘‘আপনারা যাকে ইচ্ছে ভোট দিন। আমার কোনও অসুবিধে নেই। যেই জিতুক, যেই হারুক, আমি ঘাটালের সঙ্গে থাকব।’’ 

এ দিন মনোনয়ন দিয়েছেন মেদিনীপুরের বিজেপি প্রার্থী তথা দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও। দেবের সৌজন্যবার্তা শুনে তাঁর প্রতিক্রিয়া, ‘‘খুব ভাল কথা। তবে উনি এই পরামর্শ আগে তৃণমূলের লোকেদের দিন!’’ 

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত