ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডব-পরবর্তী পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা যাতে আনাজের দাম বাড়াতে না-পারে, তা নিশ্চিত করতে পুলিশ ও ব্যবসায়ী সমিতিগুলিকে নজরদারির নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট সব দফতর, পুলিশকর্তা এবং ব্যবসায়ীদের নিয়ে আনাজ-পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘বুলবুলের পরে প্রচার শুরু হয়েছিল, আনাজের দাম বাড়তে পারে। সেই সুযোগ নিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী চাষিদের কাছ থেকে যে-দামে আনাজ কিনেছিল, বাজারে বেচেছে তার চার গুণ বেশি দামে। এটা যাতে ওরা আর করতে না-পারে, তা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।’’

মমতা জানান, সারা রাজ্যে ফসল নষ্ট হয়নি। কিছু এলাকায় হয়েছে। যে-সব এলাকায় ফুলকপি, বাঁধাকপির মতো শীতের আনাজ ভাল হয়েছে, সেখান থেকে তা এনে স্থানীয় বাজারে জোগান বাড়ানোর চেষ্টা চলছে। এর পরে পরিস্থিতি আরও স্বাভাবিক হলে, অন্য আনাজের ফলন বাড়লে বাজারে জোগানও বাড়বে। ২৫ টাকা কিলোগ্রাম দরে রাজ্যকে পেঁয়াজ সরবরাহের চুক্তি করেছিল কেন্দ্রীয় সরকারের অধীন একটি সংস্থা। কিন্তু সেই চুক্তি মানা হয়নি। রাজ্যে ১৪ লক্ষ মেট্রিক টন আলু মজুত রয়েছে। তা দিয়ে ডিসেম্বর পর্যন্ত সামলে দেওয়া যাবে। সরকারি সূত্র জানাচ্ছে, নতুন আলু উঠলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। টাস্ক ফোর্সের বৈঠকে কলকাতা পুরসভা এলাকার ৪৬টি পুর-বাজারের কয়েকশো দোকান মালিকের লিজ নবীকরণের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।