সরকারি প্রকল্পের গরমিল ধরে ফেলায় মাস দেড়েক আগে নিজের দফতরেই আক্রান্ত হয়েছিলেন সন্দেশখালি-২ ব্লকের বিডিও কৌশিক ভট্টাচার্য। তাঁর দফতরে ঢুকে হামলার সেই ঘটনায় তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত প্রধান এবং তাঁর দলবলের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল। নিগৃহীত সেই বিডিও-কে দক্ষিণ দিনাজপুরের ‘ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট অ্যান্ড ডেপুটি কালেক্টর’ বা ডিএম অ্যান্ড ডিসি-পদে বদলির নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। 

শুধু কৌশিকবাবুকেই নয়, বৃহস্পতিবার সারা রাজ্যে একসঙ্গে ২৪ জন ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক বা বিডিও-কে বদলি করেছে রাজ্য সরকার। সকলেই বদলি হয়েছেন ডিএম অ্যান্ড ডিসি-পদে। তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাপার হল, ওই ২৪ জনের মধ্যে মালদহ-পুরুলিয়ারই বিডিও আছেন এক ডজন। লোকসভা ভোটে ওই দু’টি জেলায় তৃণমূলের ফল আশানুরূপ হয়নি। প্রশাসনিক মহলের মতে, এই বদলির সঙ্গে রাজনীতিকে গুলিয়ে ফেলা অর্থহীন। এটা রুটিন বদলি।

মালদহে ইংলিশবাজার, গাজোল, বামনগোলা, ওল্ড মালদহ ও রতুয়া এবং পুরুলিয়ার কাশীপুর, হুড়া, জয়পুর, পুরুলিয়া-২ ও ঝালদার দু’টি ব্লকের বিডিও-রা বদলি হয়েছেন। বদলি করা হয়েছে সন্দেশখালি-১ ব্লকের বিডিও-কেও। দক্ষিণ দিনাজপুরের বংশীহারি, হরিরামপুর ও গঙ্গারামপুর ব্লকের বিডিও-পদে বদল হয়েছে। গোঘাটের দু’টি ব্লক, খড়্গপুর-১, কুমারগ্রাম এবং ধূপগুড়ির বিডিও-কে বদলি করেছে রাজ্য।

আরও কয়েক জন বিডিও-কে বদলি করার সম্ভাবনা আছে বলে জানাচ্ছেন প্রশাসনিক মহলের একাংশ। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, শাসক দলের ফল ‘মনের মতো’ না-হলে প্রশাসনের অনেককেই পরে কাঠগড়ায় তোলা হয়। বাম এবং অ-বাম সব জমানাতেই এটা কমবেশি হয়ে থাকে বলে অনেক পর্যবেক্ষকের অভিমত।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।