বেহাল টালা সেতু বন্ধ করে চলাচলের জন্য বিকল্প সেতু নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই। বুধবার নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, টালা ব্রিজ ও বেলগাছিয়া ব্রিজের বিকল্প হিসেবে কাশীপুরের খগেন চ্যাটার্জি রোড এবং চিৎপুর লকগেট উড়ালপুল ব্যবহার করতে চাইছে প্রশাসন। আজ, বৃহস্পতিবার থেকেই খগেন চ্যাটার্জি রোড দিয়ে পরীক্ষামূলক ভাবে একমুখী গাড়ি চালানো হতে পারে।

বিকল্প এই ব্যবস্থা নিয়ে অবশ্য এখনই সন্দেহ-সংশয় প্রকাশ করছে পুলিশের একাংশ। তাদের মতে, খগেন চ্যাটার্জি রোডে লেভেল ক্রসিং আছে। আর চিৎপুর সেতুর অবস্থাও ভাল নয়। তাই ওই রাস্তা টালা ব্রিজের বিকল্প হিসেবে কতটা উপযোগী হবে, তা নিয়ে সন্দেহ আছে। চিৎপুর লকগেট উড়ালপুলে গাড়ি চালানো নিয়েও ভাবছে পুলিশ।

লালবাজার সূত্রের খবর, খগেন চ্যাটার্জি রোডের অবস্থা ভাল ছিল না। তাই কয়েক দিন ধরে তার মেরামতির কাজ চলছে। আজ, বৃহস্পতিবার ভোরে ওই রাস্তার মেরামতির কাজ শেষ হওয়ার কথা। তার পরেই ওই রাস্তায় গাড়ি চলাচল শুরু হতে পারে। তার ফলে চিড়িয়া মোড় থেকে খগেন চ্যাটার্জি রোড, চিৎপুর সেতু হয়ে গাড়ি সোজা পৌঁছবে বাগবাজারে।

মূলত টালা ব্রিজের উপরে ছোট গাড়ির চাপ কমাতেই খগেন চ্যাটার্জি রোড ও চিৎপুর লকগেট উড়ালপুলকে বেছে নেওয়া হচ্ছে। পুলিশের একটি অংশ বলছে, পুজোর পরে মেরামতি বা পুনর্গঠনের জন্য টালা সেতু পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে। তার প্রস্তুতি হিসেবেই এই পরীক্ষামূলক পদক্ষেপ করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি দমদম থেকে শ্যামবাজার পর্যন্ত তিনটি নতুন অটো রুটের প্রস্তাব জমা পড়েছে পুলিশের কাছে।

টালা ব্রিজের বেহাল দশার দরুন প্রথমে পণ্যবাহী ভারী ট্রাক এবং তার পরে বাস-সহ অন্যান্য ভারী গাড়ি চলাচল বন্ধ করেছে পুলিশ। বাসগুলি ঘুরপথে চালানো হচ্ছে। টালা সেতুতে ছোট গাড়ি চললেও তার গতি বেঁধে দেওয়া হয়েছে। বেলগাছিয়া দিয়ে বাস ঘুরিয়ে আনায় যানজট হচ্ছে আরজি কর রোডে। পুলিশি সূত্রে জানা গিয়েছে, বেলগাছিয়া ব্রিজের অবস্থাও ভাল নয়। এত বাস একসঙ্গে সেতুর উপরে দাঁড়িয়ে থাকায় চাপ পড়ছে।

টালা ব্রিজের এই সমস্যার জেরে বুধবার, চতুর্থীর দিনেও লম্বা গাড়ির সারি দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে আরজি কর এবং বেলগাছিয়া রোডে। যদিও পুলিশের দাবি, এ দিন পরিস্থিতি আয়ত্তের বাইরে যায়নি। তবে গাড়ির চাপ থাকায় শ্যামবাজার সংলগ্ন রাস্তায় রাত পর্যন্ত গাড়ি চলছিল ধীর গতিতে। গাড়ির সঙ্গে জুড়ে গিয়েছিল পুজোর কেনাকাটা এবং মণ্ডপের ভিড়ও। রাতের দিকে পরিস্থিতির উন্নতি হয়।